ঢাকা, মঙ্গলবার 01 August 2017, ১৭ শ্রাবণ ১৪২8, ৭ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সাপাহারে দুই শিক্ষার্থী নিখোঁজের ১০ দিন পর ঘরে ফেরায় পরিবারে স্বস্তির নিঃশ্বাস

সাপাহার সংবাদদাতা : নওগাঁর সাপাহার উপজেলার দুই স্কুল ছাত্র নিখোঁজের ৭দিন পর বগুড়া শহর হতে জয়পুরহাট র‌্যাব-৫ কর্তৃক উদ্ধার হয়ে দশম দিনে রাজশাহী র‌্যাব সদর দপ্তর হতে পিতা-মাতার কোলে ফিরে এসেছে।
গত ২১ জুলাই শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাজেদুল আলম এর পুত্র ওই স্কুলের দশম  শ্রেণির ছাত্র আহসানুল আলম অনুপম ও তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু উপজেলার মির্জাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জালাল উদ্দীনের একই বিদ্যালয়ে পড়–য়া দশম শ্রেণির ছাত্র নাইমুর রহমান দুর্জয় পরিবারের লোকজনদের বোকা বানিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়। তাদের নিখোঁজের পর পরিবারের লোকজন চরম দুর্ভাবনায় পড়ে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে তাদের নিখোঁজের বিষয়টি ফলাও করে প্রকাশিত হয় এবং দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় ও খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। কয়েক দিন পর নিখোঁজ দুই বন্ধুর নিকট থাকা টাকা পয়সায় টান পড়লে রহস্য জনক ভাবে নিখোঁজের ৭দিন পর ২৯ জুলাই শনিবার সকালে তারা তাদের গ্রামের বাড়িতে থাকা মাহমুদুল হাসান নামের এক বন্ধুকে টাকা সহ ফোনে বগুড়ায় তাদের কাছে ডেকে পাঠায়। নিখোঁজ দুই বন্ধুর ফোন পেয়ে গ্রামের ওই বন্ধু সঙ্গে সঙ্গে সংবাদটি সাপাহারে এসে অনুপমের পিতাকে জানায়। এর পর তিনি তৎক্ষণাত ওই ফোনের নম্বার সহ বিষয়টি জয়পুর হাট র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক মেজর মুরাদ হোসেনকে জানালে তারা মোবাইল ট্যাকিং করে দুপুর আড়াইটার দিকে ফিলিমি স্টাইলে বগুড়া রেল স্টেশন এলাকা হতে তাদের আটক করে। নিখোঁজ দুই বন্ধুকে উদ্ধারের পর র‌্যাব তাদেরকে দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় অনুসন্ধান চালিয়ে কোন প্রকার রহস্য খুঁজে না পাওয়ায় গত রোববার রাত্রি ১২টার দিকে রাজশাহী র‌্যাব সদর দপ্তর হতে আটক দুই বন্ধুকে তাদের পিতা-মাতার নিকট হস্তান্তর করে বলে অনুপমের পিতা সাজেদুল আলম স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান। এর পর নিখোঁজ সন্তানদের ফিরে পেয়ে রাতেই তারা নিজ বাসা সাপাহারে ফিরে আসে। নিখোঁজ সন্তানদের ফিরে পেয়ে বর্তমানে পরিবারের সকলে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে এবং নিখোঁজ দুই বন্ধুর পিতা-মাতা তাদের উদ্ধারে দেশের চলমান মিডিয়া ও আইন সৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বাংলাদেশ র‌্যাবের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ