ঢাকা, মঙ্গলবার 08 August 2017, ২৪ শ্রাবণ ১৪২8, ১৪ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মিরপুরে পোশাক শ্রমিকদের দু‘দফা অবরোধ পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ-ভাঙচুর যানজট

বকেয়া বেতন-ভাতা ও শ্রমিক ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে গতকাল সোমবার মেরিডিয়ান ফ্যাশন লিমিটেডের শ্রমিকরা মিরপুর ১নং গোলচক্কর ও সনি সিনেমার সামনে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে রাজধানীর মিরপুর-১ নম্বরে সড়কে দফায় দফায় অবরোধ করে যানবাহন ভাঙচুর করেছেন মেরিডিয়ান ফ্যাশনস লিমিটেড নামের পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গেলে শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বিকেলের এ ঘটনায় মিরপুর ও আশপাশের রাস্তাঘাটে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এর আগে সকালের দিকেও এক ঘণ্টাব্যাপী এ ধরনের পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজনের ভাষ্য, মেরিডিয়ান গার্মেন্টসের নয়জন শ্রমিককে কয়েক দিন আগে কর্তৃপক্ষ ছাঁটাই করে। গতকাল রোববার সকালে শ্রমিকেরা গিয়ে দেখতে পান, তাঁদের কারখানাটি ৯ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। মিরপুর থেকে কারাখানাটি অন্য জায়গায় স্থানান্তর করা হচ্ছে বলেও শ্রমিকদের মধ্যে গুজব ছড়ায়। কারখানার শ্রমিকদের বেতন প্রতি মাসে ১২ তারিখে দেওয়া হতো। এসব কারণে ক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা মিরপুর-১ নম্বরের কিয়াংসি চায়নিজ রেস্টুরেন্টের সামনের বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করেন। তাঁদের সঙ্গে এসে আশপাশের অন্যান্য পোশাক কারখানার শ্রমিকেরা যোগ দেন। তাঁরা কয়েকটি পোশাক কারখানার সামনে কাচ, ফটক ভাঙচুর করেন। একপর্যায়ে তাঁরা মিরপুর-১ নম্বরে চিড়িয়াখানা সড়ক অবরোধ করেন।

বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা শিয়ালবাড়ি এলাকায় রাইজিং গার্মেন্টস নামের একটি পোশাক কারখানা ভাঙচুরের চেষ্টা চালান। কিন্তু ভাঙতে না পেরে পুলিশের গাড়িসহ বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করেন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গেলে শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

শেলি নামে মেরিডিয়ানের এক অপারেটর বলেন, গত ঈদের মাসে ১৫ দিনের বেতন দেওয়া হয়। এরপর থেকে কোনো বেতন দেওয়া হয়নি। এ নিয়ে শ্রমিকদের পক্ষে ২১ জনের একটি দল মালিকপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করছিল। তাঁদের বকেয়া বেতন দিয়ে ছাঁটাই করা হয়। তাই এ ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে এবং বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধ, কারখানা খুলে দেওয়ার দাবিতে শ্রমিকেরা পথে নেমেছেন।

এদিকে শ্রমিকদের ধর্মঘটকে দায়ী করে কারখানা বুধবার পর্যন্ত বন্ধ করা হয়েছে বলে জানায় মেরিডিয়ান ফ্যাশনস লিমিটেড কর্তৃপক্ষ। এ সম্পর্কিত একটি নোটিশ কারখানার সামনে টানিয়ে দেওয়া হয়। নোটিশে বলা হয়, ‘এতদ্বারা সকল শ্রমিকদের অবগতির জন্য জানানো হচ্ছে যে অবৈধ ধর্মঘটের কারণে বাংলাদেশের শ্রম আইন ২০০৬, ধারা ১৩ অনুযায়ী ফ্যাক্টরি আগামী ০৭-০৮-২০১৭ থেকে ০৯-০৮-২০১৭ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হইল। পরিস্থিতি অনুকূলে না এলে এ বন্ধের মেয়াদ আরও বাড়ানো হইবে।’

স্থানীয়রা জানান, মেরিডিয়ান ফ্যাশনস লিমিটেডের শ্রমিকদের মিরপুর ১ নম্বর এলাকায় শুরু হওয়া বিক্ষোভে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কোরিয়ান, ট্যানুয়েল, কোর্ডিয়ান ও পদ্মাসহ আশপাশের কয়েকটি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরাও যোগ দেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শেষে দুপুরের পর থেকে সনি সিনেমা হলের সামনের মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ চালিয়ে যায় শ্রমিকরা।

বকেয়া বেতন-ভাতা ও প্রতি মাসের ৭ তারিখের মধ্যে বেতন দেওয়ার দাবিতে আন্দোলনের পর তাদের ২২ জন কর্মীকে কর্তৃপক্ষ ছাটাই করে বলে অভিযোগ পোশাক শ্রমিকদের ।

নাজমা বেগম নামে কারখানাটির আরেক শ্রমিক বলেন, “গত কয়েকদিন ঘরে শুনছিলাম- কারখানা বন্ধ করে দেওয়া হবে। যদি কারখানা বন্ধই করে দেয়, তাহলে শ্রম আইন অনুযায়ী তিন মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধ করতে হবে। ওভারটাইম যা ছিল তা দিতে হবে।”

এর আগে সকালে মিরপুর ১ নম্বরে এলাকার রাস্তা অবরোধ করা শ্রমিকদের সরাতে গেলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ওপর তারা হামলা করে বলে জানিয়েছিলেন মিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান।

শ্রমিকরা সনি সিনেমা হল, চিড়িয়াখানা সড়ক এবং ১ নম্বরসহ আশেপাশের এলাকার ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন গলি থেকে পুলিশের উপর হামলা করছে জানিয়ে তিনি বলেছিলেন, “বেশ কিছু গাড়ি তারা ভাংচুর করেছে। পুলিশ তাদের বুঝিয়ে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে।”

সংঘর্ষ শুরু হলে মিরপুর এলাকায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দোকানপাটও বন্ধ করে দেয় মালিকরা। বিকালে সংঘর্ষ থামলেও সড়ক অবরোধ চলতে থাকায় মিরপুর এলাকায় তীব্র যানজট তৈরি হয়।

মিরপুর থানার এসআই মো. আরিফ হোসেন বলেন, “সকাল থেকেই তারা এখানে অবস্থান নিয়েছে। এরপর থেকেই আমারা তাদেরকে রাস্তা ছেড়ে যাওয়ার জন্য বলেছি।কিন্তু তা তারা শোনেনি ।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ