ঢাকা, বৃহস্পতিবার 10 August 2017, ২৬ শ্রাবণ ১৪২8, ১৬ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বিদেশী জরিপ জাহাজ কিনছে পেট্রোবাংলা

শাহেদ মতিউর রহমান : এবার নিজস্ব উদ্যোগে গভীর সমুদ্রে তেল গ্যাস অনুসন্ধানের উদ্যোগ নিয়েছে পেট্রোবাংলা। আর এ লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটি হাজার কোটি টাকার বেশি ব্যয়ে বিদেশ থেকে জরিপ জাহাজ কেনার প্রক্রিয়াও শুরু করেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে ইতোমধ্যে পেট্রোবাংলা প্রায় এক হাজার ২০০ কোটি টাকায় এ জরিপ জাহাজ কিনতে আন্তর্জাতিক ডকইয়ার্ড প্রি-সিলেকশনের জন্য এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট (ইওআই) আহ্বান করা হয়েছে। 

পেট্রোবাংলার এক কর্মকর্তা জানান, গভীর সমুদ্রে তেল-গ্যাস ও খনিজ সম্পদ অনুসন্ধানের জন্য একটি অত্যাধুনিক জরিপ জাহাজ কেনার প্রক্রিয়া শুরু করেছে সরকার। দরপত্র প্রক্রিয়া চূড়ান্ত ও মানসম্পন্ন জরিপ জাহাজ ক্রয় নিশ্চিত করার লক্ষ্যে জার্মানীর ‘টেকনোলগ সার্ভিসেস জিএমবিএইচ’ ও বাংলাদেশের ‘মেরিন হাউজ লিমিটেড’কে যৌথভাবে কনসালটেন্সি নিয়োগ করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ঝুলে থাকার পর কয়েক বছর আগে মিয়ানমার ও ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমার বিরোধ নিষ্পত্তির পর বঙ্গোপসাগরের বিশাল এলাকায় তেল-গ্যাস অনুসন্ধানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ভারত ও মিয়ানমার সাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনের কাজ শুরু করলেও এতদিন যাবৎ বাংলাদেশ পিছিয়ে রয়েছে।

এদিকে সংসদীয় কমিটিৎর একটি সূত্র জানায়, এ ব্যাপারে গত ৩ আগস্ট পেট্রোবাংলার সঙ্গে কনসালটেন্সি প্রতিষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। পেট্রোবাংলা প্রায় এক হাজার ২০০ কোটি টাকায় এ জরিপ জাহাজ কিনতে আন্তর্জাতিক ডকইয়ার্ড প্রিসিলেকশনের জন্য এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট (ইওআই) আহ্বান করা হয়েছে। জরিপ জাহাজ কেনার মধ্য দিয়ে বঙ্গোপসাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধানে বাংলাদেশ নতুন ইতিহাস সূচনা করবে বলে সংশ্বিলষ্টরা মনে করছেন।

সূত্র জানায়, দুই মাসের মধ্যে ওই জাহাজ ক্রয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। আর ২০১৮ সালের অক্টোবরে অনুসন্ধান শুরু হবে। কারিগরি দিক ও গবেষণার সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন এ জরিপ জাহাজ হবে মহাদেশের মধ্যে সবচেয়ে আধুনিক। টেকনোলগ সার্ভিসেস জিএমবিএইচ ও মেরিন হাউজ লিমিটেড যৌথভাবে ওই জাহাজের ডিজাইন ও সুপারভিশনসহ আনুসঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করবে বলে জানা গেছে।

পেট্রোবাংলা সূত্র আরো জানায়, মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রবিরোধ নিষ্পত্তির পর গভীর সমুদ্রে অনুসন্ধান কাজ পরিচালনার জন্য কয়েক দফায় দরপত্র ডেকেও প্রত্যাশিত সাড়া পায়নি পেট্রোবাংলা। অধিকাংশ ব্লকে ঐ সময়ে কোন দরপত্র জমা পড়েনি। কয়েকটি ব্লকে জমা পড়েছে একক দরপত্র। তাই এখন সিদ্ধান্ত নিয়ে পেট্রোবাংলা নিজেই এই জরিপ কাজ পরিচালনায় এগিয়ে আসছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ