ঢাকা, শুক্রবার 11 August 2017, ২৭ শ্রাবণ ১৪২8, ১৭ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রধানমন্ত্রীকে নরেন্দ্র মোদির চিঠি ও বই প্রদান 

বাসস : ইন্ডিয়া টুডে ম্যাগাজিনের সিনিয়র সম্পাদক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক উদয় মহুরকরের লেখা বই ‘মার্চিং উইথ এ বিলিয়ন’-এর একটি কপি গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, হাইকমিশনার শেখ হাসিনার নিকট তাঁর কার্যালয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি পত্রও হস্তান্তর করেন।

তিনি বলেন, ভারতীয় হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রীকে এ বইয়ের একটি ব্যক্তিগত কপিও প্রদান করেন।

উদয় মহুরকর এই বইয়ে নরেন্দ্র মোদি সরকারের মিডটার্ম পর্যালোচনা করেন।

‘মার্চিং উইথ এ বিলিয়ন’-এ মোদি সরকারের ক্ষমতার তিন বছরের নানা দিক ও শাসন এবং সরকারের কাজের প্রধান ক্ষেত্রসমূহ গুরুত্ব পায়।

আমাদের সময়.কম জানায়, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম চিঠির বিষয়বস্তু নিয়ে তিনি কিছু বলেননি।

শীর্ষনিউজ জানায়, ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতে ২০১৭ সালের এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর এবং সফরকালে সম্পাদিত রেকর্ড সংখ্যক সমঝোতা স্মারক ও চুক্তির বাস্তবায়ন এবং অগ্রগতির কথা তুলে ধরেন।

সেই সাথে দু'দেশের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার উদ্দেশে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে গতিশীল রাখতে প্রধানমন্ত্রীর উচ্চ পর্যায়ে মতবিনিময়ের প্রশংসা করেন হর্ষ বর্ধন।

অপরদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের অগ্রগতির বিষয়েও সন্তোষ প্রকাশ করেন।

বইটি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকারের তিন বছরের অবকাঠামো, পররাষ্ট্র বিষয়ক, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি, সামাজিক ক্ষেত্র, আর্থিক, কৃষি, ডিজিটাল প্রযুক্তিসহ শাসনের মূল ক্ষেত্রসমূহের অগ্রগতির বিষয়ে পর্যালোচনা করেছে।

বইটিতে পররাষ্ট্র নীতির ওপর দৃষ্টিভঙ্গি অংশে বাংলাদেশকে নরেন্দ্র মোদি সরকারের অধীনে ভারতের প্রধান উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

এতে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জিরো টলারেন্স নীতির প্রশংসা ও স্বীকৃতির কথা উল্লেখ রয়েছে।

বইটিতে দুই দেশের সীমান্ত চুক্তির সফল বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যতিক্রমধর্মী নেতৃত্ব এবং সহযোগিতার বিষয়েও গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

বইটিকে 'বিশ্বের সব চেয়ে বড় গণতন্ত্রের অগ্রগতির ও অর্জনের সময়োপযোগী দর্শন এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অধীনে ভারত আঞ্চলিক উন্নয়নে চ্যাম্পিয়ন হয়ে থাকবে'- বলে বর্ণনা করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

 

জার্মান এমপি উহির সাক্ষাৎ 

বাসস : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সস্তায় শ্রম এবং অন্যান্য সুযোগ সুবিধা লুফে নিয়ে বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে জার্মানীর উদ্যোক্তাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

সফররত জার্মান পার্লামেন্ট সদস্য ড. হ্যান্স পিটার উহি গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কার্যলয়ে সাক্ষাত করতে এলে শেখ হাসিনা এ আহবান জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহ্সানুল করিম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী দু’দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

বৈঠকে শেখ হাসিনা জার্মান এমপিকে বলেন, তার সরকার বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি আরো বাড়াতে সারা দেশে একশ’টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করছেন।

বৈঠকে জার্মান এমপি ড. হ্যান্স জিটুজি ভিত্তিতে ই পাসপোর্ট প্রকল্প বিষয়ে দু’দেশের মধ্যে সমঝোতা স্বাক্ষরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ