ঢাকা, সোমবার 14 August 2017, ৩০ শ্রাবণ ১৪২8, ২০ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রায়ের ড্রাফট লিখেছেন একটি ইংরেজি পত্রিকার সম্পাদক

 

গতকাল রোববার সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের দক্ষিণ হলে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। সমাবেশে আরও বক্তব্য রখেন- আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী এডভোকট আব্দুল মতিন খসরু, প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল বাসেত মজুমদার, আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম, সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক এডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন এমপি, এডভোকেট লায়েকুজ্জামান মোল্লা, এডভোকেট আজহার উল্লাহ ভঁইয়া এডভোকেট ডালিয়া খানম এমপি, ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পী এমপি প্রমুখ।

সমাবেশে ফজলে নূর তাপস বলেন, আমরা জানি এ রায়ের ড্রাফট কোথা থেকে এসেছে। একটি ইংরেজি পত্রিকার সম্পাদক এ ড্রাফট লিখে দিয়েছেন। আমরা এ কাজের নিন্দা জানাই। স্বপ্রণোদিত (সুয়োমোটো) হয়ে রায়ের আপত্তিকর অংশ এক্সপাঞ্জ করারও দাবি জানান তিনি।

ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস আরও বলেন, আমাদের কথা একদম পরিষ্কার। আপনারা জানেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের যে রায় হয়েছে, সেই রায়ে যে সার্টিফিকেট দেয়া হয়েছিল, সেটি একটি পয়েন্টে দেয়া হয়েছিল। সেটি হলো আর্টিকেল ৯৬ (২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭) প্রযোজ্য হবে কি না, সাংবিধানিক হবে কি না। কিন্তু আমরা দুঃখের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি, সেই ইস্যু বাদ দিয়ে ভিন্ন ইস্যু নিয়ে কথা বলা হয়েছে। একটি অপশক্তি ষড়যন্ত্র করেছে।

তিনি বলেন, আপনারা জানেন, যখনই দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, সংবিধান ও গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হয়েছে, আইনজীবী সমাজ তখনই জেগে উঠেছে, রুখে দাঁড়িয়েছে। আজ সেই ষড়যন্ত্র দানা বেধেছে। তাই আইনজীবী সমাজের এই প্রতিবাদ সমাবেশ। আমাদের এই প্রতিবাদ সমাবেশ চলবেই।

তিনি বলেন, অপ্রাসঙ্গিক, অসাংবিধানিক, অগণতান্ত্রিক যেসব বক্তব্য লেখা হয়েছে ছয়জন বিচারপতি সেটার সঙ্গে একমত পোষণ না করে বিরত থেকেছেন। আমরা তাদের ধন্যবাদ জানাই। সঙ্গে সঙ্গে অপ্রাসঙ্গিক বক্তব্যগুলো অনতিবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানাই।

আগামী বুধবার ষোড়শ সংশোধনীর রায়ে অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্য করার প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও উল্লেখ করে তিনি বলেন, সারা দেশব্যাপী সকল বারে আমাদের এই প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজিত হচ্ছে এবং তাতে জনগণ আছে। পরদিন বৃহস্পতিবারও আমাদের কর্মসূচি পালন করা হবে।

গত ১ অগাস্ট সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা জাতীয় সংসদের কাছে ন্যস্ত করার সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে ৭৯৯ পৃষ্ঠার ওই রায় প্রকাশ করা হয়। রায়ে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেন, চতুর্থ সংশোধনীর মাধ্যমে সংবিধানের ১১৬ অনুচ্ছেদের যে সংশোধন আনা হয় তা সংবিধানের ১০৯ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সরাসরি সাংঘর্ষিক। রায়ের পর্যবেক্ষণে, গণতন্ত্র, রাজনীতি, সামরিক শাসন, নির্বাচন কমিশন, সুশাসন, দুর্নীতি, বিচার বিভাগের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপসহ বিভিন্ন বিষয় উঠে এসেছে।

এরপর গতকাল শনিবার বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ তিনদিনের কর্মসূচি ঘোষণা করে। এই কর্মসূচির প্রথম দিনে প্রতিবাদ কর্মসূচি আয়োজন করে সংগঠনটি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ