ঢাকা, বৃহস্পতিবার 17 August 2017, ০২ ভাদ্র ১৪২8, ২৩ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নাটোরের কাদিরাবাদ স্যাপার কলেজ জেলায় শীর্ষ

নাটোর সংবাদদাতা: নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার কাদিরাবাদ স্যাপার কলেজ এবারের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় জেলায় গতবারের মতো এাবারো সবচাইতে ভাল ফলাফল করে শীর্ষ স্থান দখলে রেখেছে। এখানে ৫১৬জন পরীক্ষা দিয়ে ৫১২জন পাশ করার পাশাপশি জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০১জন। এর মধ্যে বিজ্ঞানে ১৮০ জন, ব্যবসা শিক্ষা শাখায়  ১২জন এবং মানবিকে ৯জন। এ ছাড়া সদরের নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা সরকারি কলেজ থেকে ৬৩১জন পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭০জন। সদরের অন্য কলেজ গুলোর মধ্যে নাটোর রাণী ভবানী সরকারি মহিলা কলেজ থেকে চারজন, নাটোর সিটি কলেজ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে দুইজন। নলডাঙ্গা উপজেলার কোন কলেজ থেকে কোন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পাওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার মধ্যে বড়াইগ্রাম অনার্স কলেজ থেকে ১০জন, শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব মহিলা কলেজ ও সেন্ট লুইচ স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৬জন করে, বনপাড়া ডিগ্রি কলেজে ৩জন, আজমআলী ও জোনাইল কলেজ থেকে একজন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে। গুরুদাসপুরের বিল চলন শহীদ শামসুজ্জোহা কলেজ থেকে ১৩জন এবং নাজিরপুর ও খুবজিপুর কলেজে থেকে একজন করে জিপিএ-৫পেয়েছে। জেলার সিংড়া উপজেলার সিংড়া গোল-ই-আফরোজ সরকারি কলেজ থেকে কোন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পায়নি। সিংড়া দমদমা স্কুল এন্ড কলেজ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫জন। জেলার লালপুর উপজেলার আব্দুলপুর সরকারি কলেজ থেকে কোন শিক্ষার্থী জিপি-৫ পায়নি। লালপুর ডিগ্র্রি কলেজ থেকে দুইজন, মোহরকয়া ডিগ্রি কলেজ ও কে এন বালিকা বিদ্যালয়ওকলেজ থেকে একজন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে। কারিগরি শাখায় মাজার শরীফ টেকঃ মহিলা কলেজ থেকে ৮জন ও মঞ্জিল পুকুর কৃষি ও কারিগরি কলেজ থেকে ৩জন এবং মাদরাসা বোর্ডে বালিতিতা ইসলামপুর ফাজিল মাদরাসা থেকে ২জন জিপিএ-৫ পেয়েছে। এ ছাড়া বাগাতিপাড়া উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ থেকে দুইজন, বাগাতিপাড়া মহিলা ডিগ্রি কলেজ থেকে একজন এবং লক্ষনহাটী স্কুল এন্ড কলেজের বিএম শাখা থেকে একজন জিপিএ-৫ পেয়েছে। কাদিরাবাদ স্যাপার কলেজের বার বার ভাল ফলাফল করা সর্ম্পকে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা বলেছেন, তাদের প্রতিষ্ঠানের ৩৯টি হোস্টেলে শিক্ষার্থীরা অবস্থান করে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শিক্ষকদের নিবিড় তত্বাবধানে থেকে লেখা পড়া করায় এবং সকল প্রকার নেশা থেকে দূরে থাকায় এই ভাল ফলাফল করা সম্ভব হয়েছে। বাহিরে ঘোরাঘুরি না করে সরকারের নিয়ম মেনে প্রতিষ্ঠানের ভিতরেই শিক্ষার্থীরা তাদের কলেজের শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়ার জন্যও এত ভাল ফলাফল হয়েছে বলে তিনি মনে করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ