ঢাকা, বৃহস্পতিবার 17 August 2017, ০২ ভাদ্র ১৪২8, ২৩ জিলক্বদ ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

জৈন্তাপুরে উদ্ধার হওয়া লাশের ঘটনায় মামলা দায়ের প্রেমিকাসহ আটক ৪

জৈন্তাপুর সংবাদদাতা: জৈন্তাপুর উপজেলার বিরাইমারা (গড়েরপাড়) গ্রামের নিখোঁজ জামাল হোসেন(২৮) এর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের, প্রেমিকা সহ ৪জন আটক। শাস্তির দাবীতে শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়- গত ৫আগষ্ট জৈন্তাপুর উপজেলার বিরাইমারা(গড়েরপাড়) গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস মিয়ার ছেলে জামাল হোসেন(২৮) নিখোঁজ হন এনিয়ে ৭আগষ্ট নিহতের পিতা আব্দুল কুদ্দুছ সাধারন ডায়েরী করেন যাহার নং-২৮৭। ৮আগষ্ট মঙ্গলবার ১১টায় কলসী নদীতে হাত-পায়ে পাথর বাঁধা অবস্থায় জামালের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় তাৎক্ষনীক ভাবে পুলিশ ৪জনকে আটক করে। তারা হলেন জৈন্তাপুর উপজেলার জৈন্তাপুর ইউনিয়নের কেন্দ্রি ঝিঙ্গাবাড়ী গ্রামের ময়নুল ইসলামের স্ত্রী আমেনা বেগম(২২), একই পরিবারের সিরাজ উদ্দিন মিস্ত্রির ছেলে আয়নুল ইসলাম(৩০), জয়নুল ইসলাম(২৪), একই গ্রামের কলিম উদ্দিন বট্টি মিয়ার ছেলে মনির হোসেন(২২)।
এলাকাবাসি জানান- আমেনা বেগম নিহত জামালের নিকট আত্মীয় হওয়ায় দীর্ঘ দিন হতে তাদের মধ্যে প্রেম চলে আসছে। একপর্যায় জামাল এবং আমেনার পৃথক পৃথক স্থানে বিয়ে হয়। বর্তমানে জামাল হোসেন ১বৎসরের ১কন্যা সন্তানের জনক। প্রেম মানে না কোন বাঁধা তাই আমেনার সাথে থেকেই যায় জামালের সু-সম্পর্ক। এনিয়ে প্রায়ই একে অপরের সাথে যোগাযোগ অব্যাহৃত রাখে। একপর্যায় আমেনার স্বামীর পরিবার পরকিয়া সম্পর্কের বিষয়টি জেনে যায়। তারা সম্পর্ক ছিন্ন করতে আমেনাকে নিয়ে হত্যার পরিকল্পনা নীল নকশা তৈরী করে। সে অনুযায়ী ৫আগষ্ট শুক্রবার আমেনার মাধ্যমে জামালকে কেন্দ্রি গ্রামে নিয়ে তাকে শারিরিক ভাবে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করে নরপশুরা। শুধু হত্যা করে ক্রান্ত হয়নি নরপশুরা তারা নিহত জামালের অন্ডকোষ এবং একটি চোঁখ নষ্ট করে দেয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ