ঢাকা, বৃহস্পতিবার 24 August 2017, ০৯ ভাদ্র ১৪২8, ০১ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খাগড়াছড়িতে সিসিডিআর দুই হাজার গ্রাহকের সাড়ে চার কোটি টাকা আত্মসাত করেছে

খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা : খাগড়াছড়িতে সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভলেপমেন্ট রিচার্জ (সিসিডিআর) এনজিওর স্বত্তাধিকারী জাহেুদল আলমের বিরুদ্ধে দুই হাজার গ্রাহকের সাড়ে চার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
বুধবার খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন, মাবনববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্বারকলিপি দিয়েছে প্রতারিত গ্রাহক ও কর্মীরা। এসময় তারা প্রতিষ্ঠানের স্বত্তাধিকারী প্রতারক জাহেদুল আলমের বিচার দাবী করেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গ্রাহক সচল দাশ। এসময় বিপুল সংখ্যক গ্রাহক ও কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, ২০০৬ সালে খাগড়াছড়ি সদর উপজেলায় ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয়ের মাধ্যমে এলাকার হতদরিদ্র ও গরীব সদস্যদের নিয়ে গড়ে উঠা এনজিও সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভলেপমেন্ট রিচার্জ (সিসিডিআর)-এর যাত্রা শুরু হয়। পাঁচ বছর মেয়াদী ক্ষুদ্র সঞ্চয়ের মাধ্যমে দৈনিক ১০ টাকা হতে ১০০ টাকা সিলিং হারে প্রায় এক হাজার গ্রাহক এ প্রতিষ্ঠানে সঞ্চয় জমা দেয়। পরবর্তিতে ক্রমান্বয়ে জেলার অন্যান্য উপজেলাসহ ১১টি অফিসের মাধ্যমে প্রায় দুই হাজার গ্রাহক সাড়ে ৪ কোটি টাকা জমা দেয়।
অভিয়োগে জানা যায়, গত ৮-৯ বছর পর্যন্ত কার্যক্রম চালু থাকলেও মেয়াদ পূর্তি সদস্য সংখ্যা বেশি হওয়ায় প্রতিষ্ঠানের মালিক জাহেদুল আলম গ্রাহকদের টাকা দিতে গড়িমশি শুরু করেন। বিগত দুই বছর যাবত বেশ কিছু অফিস বন্ধ হলেও সাধরণ গ্রাহকের টাকা দিতে তালবাহনা শুরু করেন। গ্রাহকের বিভিন্নভাবে রাঙামাটি প্রধান কার্যালয়ে যোগাযোগ করলেও কোন সুরাহা হয়নি।
এক পর্যায়ে প্রতিষ্ঠানের মালিক জাহেদুল আলম গ্রাহকের এ বিপুল অর্থ আত্মসাত করে গা-ঢাকা দেওয়ায় গ্রাহকদের ভয়ে কর্মীরা চরম বিপদে দিন পার করছে। অনেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। ক্রমান্বয়ে সকল শাখা অফিস বন্ধ হওয়ার পর রাঙামাটি প্রধান কার্যালয়ও বন্ধ হয়ে যায়। কর্মকর্তাদের মোবাইলও বন্ধ হয়ে গেছে।
সাংবাদিক সম্মেলন শেষে ক্ষতিগ্রস্ত সহস্রাধিক গ্রাহক ও কর্মী খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন শেষে প্রতারক জাহেদুল আলমকে গ্রেফতার পূর্বক বিচারের দাবীতে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্বারকলিপি দেয়া হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ