ঢাকা, বৃহস্পতিবার 24 August 2017, ০৯ ভাদ্র ১৪২8, ০১ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এমপি আমানুর রহমানকে বিচারিক আদালতে হাজির করার নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খানকে বিচারিক আদালতে হাজির করার নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। মামলার ধার্য দিনে বিচারিক আদালতে আমানুর রহমানকে হাজির করা হয় না বলে আদালতকে অবহিত করা হলে এই আদেশ দেয়া হয়। শুনানিতে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এস কে) সিনহা এটর্নি জেনারেলের উদ্দেশে বলেন, এতে তো আপনার লজ্জা পাওয়ার কথা। রাষ্ট্র কি করে?
গতকাল বুধবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের তিন বিচারপতির বেঞ্চ এই নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে আবেদনের শুনানি আগামী ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত মুলতবি (স্ট্যান্ড ওভার) করা হয়েছে।
এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম শুনানিতে বলেন, ধার্য তারিখে নিম্ন আদালতে তাকে (আমানুর) হাজির করা হয় না। এ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা দেয়ার আরজি জানান তিনি। পরে আদালত আবেদন শুনানি মুলতবি করে ওই আদেশ  দেন।
শুনানিতে এটর্নি জেনারেল বলেন, আমি শুনেছি, আদালতে তাকে আনা হয় না। এ সময় প্রধান বিচারপতি বলেন, এতে তো আপনারই লজ্জা পাওয়ার কথা। রাষ্ট্র কী করে? পরে আদালত আদেশ দেন।
এর আগে জামিন বিষয়ে আদেশ সংশোধন চেয়ে আবেদন তুলে ধরে আমানুর রহমানের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী রোকন উদ্দিন মাহমুদ। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মুস্তাফিজুর রহমান খান।
গত ৮ মে এই মামলায় সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খানের জামিন চার মাসের জন্য স্থগিত করেন আপিল বিভাগ। পাশাপাশি এ সময় পর্যন্ত শুনানি মুলতবি রাখা হয়।
এর আগে গত ১৩ এপ্রিল ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় টাঙ্গাইল-৩ আসনের সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খানের জামিন দেন হাইকোর্ট। এ সময় কেন আমানুর রহমান খানকে জামিন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।
আওয়ামী লীগের টাঙ্গাইল জেলা কমিটির সদস্য ফারুক আহমেদকে ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি গুলী করে হত্যা করা হয়। তিন দিন পর তার স্ত্রী টাঙ্গাইল মডেল থানায় অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনকে আসামী করে মামলা করেন। এ মামলায় গত বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি আমানুর রহমান, তার তিন ভাইসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর ১৮ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলের আদালতে আত্মসমর্পণ করেন আমানুর রহমান। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। সেই থেকে তিনি বকারাগারে রয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ