ঢাকা, বৃহস্পতিবার 24 August 2017, ০৯ ভাদ্র ১৪২8, ০১ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সুনামগঞ্জবাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি রানীগঞ্জ সেতুর কাজ এগিয়ে চলছে

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরের কুশিয়ারা নদীতে রানীগঞ্জ সেতু নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে, প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর সহ জেলার হাওরপাড়ের বাসিন্দাদের যাতায়াত সুবিধা হবে,পাশাপশি জীবনযাত্রা অনেকটা বদলে যাবে। জগন্নাথপুর হবে নবীগঞ্জ ও ভৈরব উপজেলার মতো অন্যতম ব্যবসা কেন্দ্র।
সিলেট বিভাগের বৃহৎ রানীগঞ্জ সেতু’র কাজ ৮ মাস হয় শুরু হয়েছে। সংশিষ্টরা জানিয়েছেন ডিসেম্বর থেকে সেতু’র কাজ শুরু হয়েছে, ৮ মাসে ৩৭ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকী কাজ নির্ধারিত মেয়াদ ২০১৮ সালের জুন মাসের মধ্যেই শেষ হবে। পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়কের ৩০ কিলোমিটারের মাথার এই সেতু’র কাজ শেষ হলে সুনামগঞ্জ জেলাবাসীর সঙ্গে রাজধানী ঢাকার দুরত্ব কমবে ৫২ কিলোমিটার। সুনামগঞ্জের যোগাযোগ ব্যবস্থারও অভূতপূর্ব উন্নয়ন হবে।
জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের রানীগঞ্জ বাজার ও পাইলাগাঁও গ্রামের মধ্যবর্তী স্থানে কুশিয়ারা নদীর উপর ৭০২.৩২ মিটার দীর্ঘ সেতুর নির্মাণ কাজ এখন পুরোধমে চলছে। একশ ৮ কোটি ৪৭ লক্ষ ৮৬ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য সেতুটি পিসি গার্ডার এবং বক্স গার্ডারের সমন্বয়ে করা হচ্ছে। সেতুর প্রস্থ হবে ১০.২৫ মিটির। ১৫ টি স্প্যানের এই সেতুতে ১৪ টি পিয়ার থাকবে। এপ্রোচ সড়কের দৈর্ঘ্য হবে  আড়াই কিলোমিটার।
স্থানীয় লোকজন বলেছেন, দীর্ঘদিন ধরে কুশিয়ারা সেতু নির্মাণের স্বপ্ন দেখছেন তারা। এখন নির্ধারিত সময় ২০১৮ সালের ৩০  জুনের মধ্যেই যেন এই সেতুর উপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে রাজধানী ঢাকায় যাতায়াত করা যায় সেই দাবী তাদের।
তারা আরো বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থার বৈপ্লবিক পরিবর্তনে স্বপ্ন অল্প সময়ে রাজধানীতে যাতায়াতের কারণে ব্যবসা বাণিজ্য প্রসার লাগবের পাশাপশি বেকারত্ব দুরিকরণে জগন্নাথপুরে গড়ে উঠতে পারে ছোটখাটো শিল্প প্রতিষ্ঠান। যা স্থানীয় বাসিন্দাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ভুমিকা রাখবে। বর্তমানে ফেরী পারাপারের মাধ্যমে সড়কটি চালু করায় রাজধানীর সাথে স্বপ্ন সময়ে যোগাযোগের  পথ উন্মোচিত হয়েছে।
এদিকে গত (১৭ আগষ্ট) বৃহঃবার অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান সেতুর কাজ পরির্দশন করেন, তিনি কাজের অগ্রগতি দেখে খুশি হন। তিনি বলেন, যেভাবে কাজ চলছে আসাকরি মেয়াদের মধ্যেই কাজ শেষ হবে। তিনি আরো বলেন, এ সরকারের শাসনামলেই পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি মহাসড়ককে আমরা দুই লেন করব। আওয়ামী লীগের  নেতৃত্বে যখন দেশে উন্নয়নের জোয়ার দেখা দেয় ঠিক এ সময় অগ্রগতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু হয়ে যায়। এ ব্যপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে এসব ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে।
সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপদের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, রানীগঞ্জ সেতু’র ফাউন্ডেশনের নিচের ৭০ ভাগ পাইলিংয়ের কাজ ৮ মাসের মধ্যেই শেষ হয়েছে। বর্ষার আসার আগে যদি বুয়েট থেকে ডিজাইন পাওয়া যেত,তাহলে নদীর মাঝে কাজ শুরু করা যেত। অ্যাপ্রোচ সড়কের জন্য জমি অধিগ্রহণের কাজ শেষের দিকে। এভাবে কাজ হলে মেয়াদের মধ্যেই কাজ শেষ হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ