ঢাকা, শুক্রবার 25 August 2017, ১০ ভাদ্র ১৪২8, ০২ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ফটিকছড়িতে কোরবানি পশু বিক্রি বাড়ছে

ফটিকছড়ি সংবাদদাতা: জমে উঠছে ফটিকছড়িতে কোরবানি পশুর হাট। বিগত কয়েক বছরের মত এই বছরও কোরবানি পশুর মূল্য একটু বেশি বলে জানান ব্যবসায়িরা ও ক্রেতারা। সরে জমিনে উপজেলা বিভিন্ন কোরবানি পশুর হাট পরির্দশনে দেখা যায় ঈদুল আযহার আর মাত্র  কয়েকদিন বাকি থাকায় জমে উঠেছে কোরবানী পশুর হাট। ক্রেতা বিক্রেতাদের উৎসব উদ্দিপনার মধ্যে দিয়ে মুখরিত হয়ে উঠেছে কোরবানি পশুর হাট, উপজেলার নাজিরহাট, বিবিরহাট, নানুপুর, আজাদীবাজার, মোং তকির হাট, সমিতির হাট, খিরাম, দৌলত মুনসির হাট, বখতপুর শান্তিরহাট, রনজুর হাট, কমিটি বাজার, আনন্দ বাজার, চারালিয়া হাট, সন্যাসির হাট, কাজির হাট, নারায়ন হাট, র্মিজাহাট, শান্তিরহাট, দাঁতমারা বাজার, হেয়াকো বাজার, চিকনছড়া বাজার, বাগান বাজার, কয়লা বাজার, বালুটিলা বাজারসহ আরো বিভিন্ন বাজার ও মৌসুমী ব্যবসায়ীদের অস্থায়ী গরু বিক্রির স্থান ইতোমধ্যে ক্রেতাÑবিক্রেতাদের ক্রয় বিক্রয়ের খেলায় জমে উঠেছে দারুণভাবে। এ সব কোরবানি পশুর হাটে স্থানীয় গরু ছাগলের পাশাপাশি বেপারিরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল হতে কোরবানি পশু সংগ্রহ করে বিক্রি করে। এমন কি ভারত, মিয়ানমার থেকে আসা গরু মহিষও এসব হাট বাজারে পাওয়া যায়। এসব কোরবানি পশুর হাটে ৫০ হাজার থেকে লাখ দেড়লাখ টাকা মূলোর গরু।৪/৫ হাজার থেকে ১৫/২০ হাজার টাকা মূলোয় র্পযন্ত ছাগল পাওয়া যায়। এ দিকে বিগত কয়েক বছরের মত এই বছরও গরু ছাগলের মূলো অনেক বেশি বলে জানান ক্রেতাÑবিক্রেতারা ফলে মধ্যবিত্ত পরিবার গুলো হিমশিম খাছে কোরবানি পশু ক্রয়ে। বিক্রেতারা দর কষাকষি র্পযায়ে তেমন একটা সুবিধা হচ্ছে না বলে জানান, র্বতমান দেশের আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি ভাল হওয়াই দারুন ভাবে জমেছে ফটিকছড়ির হাট বাজার।     

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ