ঢাকা, শুক্রবার 25 August 2017, ১০ ভাদ্র ১৪২8, ০২ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সিইসির নেতৃত্বে জাতীয় পরিষদ গঠনের প্রস্তাব মুক্তিজোটের

স্টাফ রিপোর্টার : নির্বাচন কমিশন এবং রাজনৈতিক দলগুলোর পারস্পরিক সম্পর্কের যৌথ বা প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে জাতীয় পরিষদ গঠনের জন্য নির্বাচন কমিশনকে প্রস্তাব দিয়েছে সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট। যে পরিষদের আহ্বায়ক থাকবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ইসির সঙ্গে আনুষ্ঠানিক সংলাপে এ প্রস্তাব দেয় দলটি। মুক্তিজোটের সঙ্গে সংলাপের মধ্য দিয়েই রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আনুষ্ঠানিক সংলাপ শুরু করলো ইসি।

সংলাপ শেষে ইসির সম্মেলন কক্ষে আলোচনার সার সংক্ষেপ তুলে ধরেন ইসি সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ।

তিনি বলেন: সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট জাতীয় পরিষদ গঠন, স্থায়ী ঠিকানায় ভোটারকরণ, ভোটদানের জন্য নাগরিকদের পাঁচ দিনের ছুটির ব্যবস্থা করা, প্রবাসীদের ভোট দেওয়ার সুযোগ দানসহ বেশ কিছু প্রস্তাব দিয়েছে কমিশনকে। কমিশন এসব প্রস্তাবকে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে বলেও জানান ইসি সচিব।

এর আগে বিকাল ৩টার দিকে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে এ সংলাপ শুরু হয়। মুক্তিজোটের প্রধান আবু লায়েস মুন্না নেতৃত্বে ১২ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল এ সংলাপে অংশ নেয়।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে সংলাপে অন্য চার কমিশনার, ইসি সচিবসহ অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচন কমিশনের সংলাপের আমন্ত্রণ পাওয়া প্রথম দল বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফ সংলাপে না আসায় বিকেলে থেকে শুরু হয় এ সংলাপ। সংলাপে না আসার কারণ হিসেবে দলটি বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ দেশের বন্যাদুর্গত মানুষকে ত্রাণ দেওয়ার কথা উল্লেখ করেছে।

এর আগে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানিয়েছেন, ইসিতে নিবন্ধিত ৪০টি রাজনৈতিক দলের মধ্যে ১২টি দলের সঙ্গে সংলাপের সময়সূচি চূড়ান্ত হয়েছে। এর মধ্যে ঈদের আগে ২৪ আগস্ট থেকে ৬টি দলের সঙ্গে সংলাপ হবে। ঈদের পরে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে আবার সংলাপ শুরু হবে। ইতোমধ্যে তাদের কাছে আমন্ত্রণপত্রও পাঠানো হয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপের মধ্য দিয়ে নির্বাচন বিশেষজ্ঞসহ অংশীজনদের সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ শুরু করে নির্বাচন কমিশন। সংলাপে সুশীল সমাজের ৫৯ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। পরে ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে কমিশন সংলাপে বসে। এই দুই দিনে অর্ধশত গণমাধ্যম প্রতিনিধির কাছ থেকে কমিশন বিভিন্ন পরামর্শ গ্রহণ করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ