ঢাকা, বুধবার 30 August 2017, ১৫ ভাদ্র ১৪২8, ০৭ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাজশাহীতে পৃথক তিন সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশসহ নিহত ৪

রাজশাহী অফিস : রাজশাহীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক পুলিশ সদস্যসহ চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৬ জন। অন্যদিকে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট এক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। আর এক গৃহবধূর গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।
গতকাল মঙ্গলবার রাজশাহী মহানগরী এবং জেলার গোদাগাড়ী, মোহনপুর ও দুর্গাপুরে এসব ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) সদস্য সেলিম রেজা (৫৩), চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কাঁঠালবাড়িয়া গ্রামের জালাল হোসেনের ছেলে জাহিদ হাসান (১৮), রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার উজানপাড়া গ্রামের মৃত আবদুল আজিজের ছেলে আক্তার আলী (৭৫), তানোর উপজেলার মু-ুুমালা চুনিয়াপাড়া গ্রামের মিনারুল ইসলামের স্ত্রী রুবিনা খাতুন (৩৫)। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিহত হয়েছেন দুর্গাপুরের ব্যবসায়ী আসরাফ আলী এবং আত্মহত্যা করেছেন নগরীর সিপাইপাড়া এলাকার স্নিগ্ধা খাতুন।
মোহনপুর থানার পুলিশ জানায়, নিহত ডিএসবি সদস্য সেলিম রেজা জেলার পবা থানা জোনে কর্মরত ছিলেন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে একটি মোটরসাইকেলে চড়ে সেলিম রেজা ও এসআই আবদুল কাইয়ুম রাজশাহী-নওগাঁ মহাসড়ক হয়ে মোহনপুরের কেশরহাট যাচ্ছিলেন। এ সময় মোহনপুর উপজেলা সদরে বিপরীতমুখি একটি বাসের সঙ্গে তাদের মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে এই দুই পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হন। পরে তাদের রামেক হাসপাতালে পাঠালে সেখানে সেলিম রেজা মারা যান। দুর্ঘটনার পর ঘাতক বাসটি জব্দ করা গেলেও পালিয়ে গেছেন এর চালক ও হেলপার। এদিকে গোদাগাড়ী থানার পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার ভোররাত ৩টার দিকে একটি ট্রাকটি উপজেলা সদর ডাইংপাড়া মোড়ে দাঁড়িয়েছিল। এসময় ট্রাকের হেলপার জাহিদ রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কে ট্রাকের পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় পেছন থেকে রাজশাহীমুখি একটি ট্রাক এসে জাহিদকে চাপা দেয়। স্থানীয় লোকজন তাকে গোদাগাড়ী হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে জাহিদ মারা যান। দুর্ঘটনার পর ঘাতক ট্রাকের চালক ও হেলপার ট্রাক ফেলে পালিয়ে যায়। পরে ট্রাকটি জব্দ করে থানায় নিয়েছে পুলিশ। এরপর ভোর ৬টার দিকে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কে গোদাগাড়ীর উজানপাড়া এলাকায় অজ্ঞাত একটি গাড়ির চাপায় আফসার আলী গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকেও উদ্ধার করে গোদাগাড়ী হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃদ্ধ আফসার আলী মারা যান। এদিকে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার পুলিশ জানায়, গতকাল বেলা ১১টার দিকে নগরীর শিরোইল এলাকায় এক দুর্ঘটনায় রুবিনা খাতুন নামে তানোরের এক নারী নিহত হন। তিনি অটোরিকশার যাত্রী ছিলেন। ওই অটোরিকশায় তার স্বামী, মেয়ে এবং খালাতো বোনও ছিল। তারা আহত হয়েছে। পুলিশ জানায়, রাজশাহী রেলস্টেশনের সামনে বেলা ১১টার দিকে একটি বাস, একটি অটোরিকশা এবং দুটি মোটরসাইকেলের মধ্যে চতুর্মুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে দুই মোটরসাইকেলের চালক আহসান হাবিব ও জিয়ারুল ইসলামসহ অটোরিকশার সব যাত্রী আহত হন। এ সময় আশপাশের লোকজন তাদের রামেক হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে নেয়ার পর রুবিনা খাতুন মারা যান।
বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ব্যবসায়ী নিহত : গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে দুর্গাপুর উপজেলার গোপালপাড়া গ্রামের ঝিনায়ের মোড়ে বৈদ্যুতিক তার থেকে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আসরাফ আলী (৪২) নামের এক মুদি ব্যবসায়ীর মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃত আবদুর রহমানের ছেলে। সকালে আসরাফ আলী তার দোকানে গিয়ে বিদ্যুৎ না থাকায় মেইন সুইচ বন্ধ না করেই ওই বৈদ্যুতিক লাইন পরিদর্শন করতে থাকেন। এক পর্যায়ে তিনি ওই বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে পড়ে ঘটনাস্থলেই হয়ে মারা যান।
গৃহবধূর আত্মহত্যা : রাজশাহী মহানগরীর সিপাইপাড়া এলাকায় গলায় ফাঁস দিয়ে স্নিগ্ধা খাতুন (২৩) নামের এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেন। তিনি জেলার মোহনপুর উপজেলার বিদিরপুর এলাকায় মিঠুন হোসেন ওরফে মিঠুর স্ত্রী। রাজপাড়া থানার পুলিশ জানায়, সিপাইপাড়া এলাকার একটি তিনতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলায় তারা ভাড়া থাকেন। মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্নিগ্ধা ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেন। এ সময় ঝুলতে দেখে প্রতিবেশীরা এসে ধরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু হাসপাতালে নেয়া হলে চিকৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ