ঢাকা, বুধবার 06 September 2017, ২২ ভাদ্র ১৪২8, ১৪ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কেরালায় গরুর গোশত খাওয়া যাবে -নয়া কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আলফোন্স

৫ সেপ্টেম্বর, পার্স টুডে : কেরালায় গরুর গোশত খাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে জে আলফোন্স। গত সোমবার তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, ‘বিজেপি’র এটা বলার অধিকার নেই যে, গরুর গোশত খাওয়া চলবে না। আমরা দেশের কোনো অংশের মানুষের খাদ্যাভ্যাস ঠিক করে দিতে পারি না। লোকেরাই ঠিক করবেন তারা কী খাবেন।’ সাবেক আমলা থেকে সদ্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীপদে নিযুক্ত হওয়া কে জে আলফোন্স বলেন, ‘গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিকার যেরকম রাজ্যে গরুর গোশত খাওয়া চলবে বলে জানিয়েছেন সেরকম একইভাবে কেরালাতেও গরুর গোশত খাওয়া চলবে।’ তিনি বলেন, ‘বিজেপিশাসিত গোয়াতে যদি গরুর গোশত খাওয়া যায় তাহলে কেরালাতেও এর ব্যবহারে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। ’ আলফোন্স বলেন, ‘মোদি ক্ষমতায় এলে খ্রিস্টানদের জ্বালিয়ে দেয়া হবে, গির্জা ধ্বংস করা হবে বলে ২০১৪ সালে অনেক প্রচার হয়েছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট বলে দিয়েছেন, যেই ধর্ম বিশ্বাস করেন সেই ধর্ম পালন করুন। আমি আপনাদের রক্ষা করব। ’প্রধানমন্ত্রী সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করতে মানুষকে একসঙ্গে আনার জন্য ভালো কাজ করেছেন বলেও আলফোন্স মন্তব্য করেন। ভারতের বিভিন্ন অংশে গরু পাচার, গরুর গোশত ভক্ষণ, গরু জবাই ইত্যাদির অভিযোগকে কেন্দ্র করে যখন হিন্দুত্ববাদী গো-রক্ষকদের তা-ব ও গণপিটুনিতে মানুষজনকে হত্যা করা হচ্ছে তখন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কে জে আলফোন্সের মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকারের পক্ষ থেকে এক নিন্দেশে জবাইয়ের জন্য কোনো গবাদিপশু হাট থেকে কেনাবেচা যাবে না বলে বলা হয়। কিন্তুগত জুলাইতে ওই নিন্দেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্ট ৩ মাসের জন্য স্থগিতাদেশ দিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন সমন্বিত বেঞ্চ জানায়, মাদ্রাজ হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ গোটা দেশেই প্রযোজ্য হবে। মানুষের জীবন-জীবিকাকে অনিশ্চয়তার মধ্যে ঠেলে ফেলে দেয়া যায় না।  এর আগে গত মে মাসে মাদ্রাজ হাইকোর্টের মাদুরাই বেঞ্চ থেকে এক মাসের জন্য স্থগিতাদেশ দেয়া হয়। সেসময় বিচারপতি এম বি মুরলিধরণ এবং বিচারপতি সি বি কার্তিকেয়ন বলেন, কোনো ব্যক্তির পছন্দমত খাবার বাছাই করা তার ব্যক্তিগত বিষয় এবং সেই অধিকারে কেউ হস্তক্ষেপ করতে পারে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ