ঢাকা, বুধবার 06 September 2017, ২২ ভাদ্র ১৪২8, ১৪ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দিনাজপুরের ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা পুনরায় আমন রোপণ শুরু করেছে

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদদাতা: টানা বর্ষণে দিনাজপুরের বিভিন্ন উপজেলায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে আমন ধানের লাগানো রোপা। কৃষকেরা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে অতিকষ্টে রোপন করেছিল আমন ধান। প্রথম দিকেই দুর্যোগ তেমন না থাকায় ভাল উৎপাদনের আশা করেছিল উৎপাদনের সাথে জড়িত থাকা কৃষকেরা। কিন্তু বিধিবাম সর্বনাশী বন্যা ধুলার সাথে মিশে দিল কৃষকের লাগানো আমন ধান। দির্ঘদিন পানিবন্দি থাকায় ধানের চারাগুলো পানিতে পচে নষ্ট হয়ে যায়। এরপর শুরু করে বন্যার পানি কমতে। জমিগুলো এখন রোপা ছাড়াই পড়ে আছে। এদিকে সরকারি ভাবে কৃষকের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কৃষকদের পুনর্বাসনের চেষ্টা করছেন কৃষি মন্ত্রণালয়। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকেরা জানায়, এখনো যদি বীজ পাওয়া যায় । তাহলে তাদের ঘরে আবারো উঠে আসবে আমন ধান। এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু রেজা আসাদুজ্জামান জানান, তার উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকেরা ক্ষতি থেকে উত্তরণের জন্য নতুনভাবে বীজতলা তৈরি সহ আমন চারা ক্রয় করে পুনরায় রোপণ কাজ শুরু করেছে।
গত সোমবার বিকেলে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার ৪নং শালখুরিয়া ইউনিয়নের শালখুরিয়া মাঠে কৃষক জহুরুলের এক বিঘা জমিতে থাকা জিরাশাল ধানের চারা ১০ হাজার টাকা দরে দিনাজপুর সদরের কৃষকের নিকট বিক্রি করে। সকাল থেকেই ২০-৩০ জন শ্রমিক জমির রোপা ধানের গাছ উঠিয়ে ট্রাক্টর যোগে দিনাজপুরে নিয়ে যাচ্ছে। এছাড়াও নবাবগঞ্জ উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন কুশদহ, বিনোদনগর, দাউদপুর, মাহমুদপুর করতোয়া ও ঘীর্নয় নদীর তীর সংলগ্ন জমিগুলো রোপা ধান পানিতে নষ্ট হয়ে যায়। পুনরায় জমি রোপণের কাজ শুরু করেছে কৃষক।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ