ঢাকা, বুধবার 13 September 2017, ২৯ ভাদ্র ১৪২8, ২১ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আশাশুনিতে বজ্রপাতে দুইজন নিহত

সাতক্ষীরা সংবাদদাতা : সাতক্ষীরার আশাশুনিতে বজ্রপাতে দুইজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কাঁদাকাটি ও তুয়াডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। নিহতরা হলেন, উপজেলার কাঁদাকাটি গ্রামের মোক্তার আলির ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৪৫) ও তুয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত মঙ্গল মন্ডলের ছেলে ভজহরি মন্ডল (৫০)।

স্থানীয়রা জানান, সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে মৎস্য ঘের ব্যাবসায়ি জাহাঙ্গীর বৃষ্টির মধ্যে তিনি তার নিজ ঘেরে মাছ ধরছিলেন। এ সময় হঠাৎ আকস্মিক বজ্রপাতে তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এর আগে সকাল ৭ টার দিকে ভজহরি মন্ডল কাজের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে যাওয়ার সময় বাড়ির পাশে সড়কের উপর হঠাৎ বজ্রপাত ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন। তাদের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিদুল ইসলাম শাহিন এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সাতক্ষীরায় ৫৬৪ টি মন্ডপে অনুষ্ঠিত হবে দুর্গা পূজা : সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব আসন্ন শারদীয় দুর্গা পূজা’র আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। ইতিমধ্যে রং তুলির কাজ কোথাও শেষ হয়েছে আবার কোথাও দ্রুত গতিতে চলছে। তবে আনন্দঘন পরিবেশ বিরাজ করছে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর এ পূজার মহা ষষ্টী। এবার সাতক্ষীরা জেলার ৭ টি উপজেলার ৭৮টি ইউনিয়নের ৫৬৪ টি পূজা মন্ডপে মন্ডপ তৈরী করা হচ্ছে। এর মধ্যে অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে ১০৬ টি মন্ডপকে। গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে ১৩৭ টি মন্ডপকে। বাকি ৩২১ টি মন্ডপে কোন ঝুঁকি নেই।

শারদীয় দুর্গাউৎসব উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। প্রতিটি মন্ডপে এবার নিরাপত্তা জোরদার করার লক্ষে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোরভাবে অবস্থান করবে বলে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্যে জানাগেছে, আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত শারদীয় দূগা উৎসব পালনে সাতক্ষীরা জেলায় ৫৬৪ টি পূজা মন্ডপ প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। এরমধ্যে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মোট ১০৫ টির মধ্যে ৫৪ টি মন্ডপে কোন ঝুকি নাই, বাকী ৩৬ টি গুরুত্বপূর্ন ও ১৬ টি মন্ডপকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কলারোয়া উপজেলায় ৪০ টি পূজা মন্ডপের মধ্যে ৬ টিতে কোন ঝুকি নাই, বাকী ১৩ টি গুরুত্বপূর্ণ ও ২১ টি অধিক গুরুত্বপূর্ণ। তালা উপজেলার ১০৭ টির মধ্যে ৬৭টিতে কোন ঝুকি নাই, বাকী ২৫টি গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ ১৫টি। পাটকেলঘাটা থানার আওতায় ৭২ টি পূজা মন্ডপের মধ্যে ৬৪ টিতে কোন ঝুকি নাই, বাকী ৫ টি গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ ৩টি। দেবহাটা উপজেলার ২০ টির মধ্যে ১০ টিতে কোন ঝুকি নাই, বাকী ৫টি গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ ৫টি। আশাশুনি উপজেলার ১০৪ টির মধ্যে ৭৮ টিতে কোন ঝুকি নাই, বাকী ১২ টি গুরুত্বপূর্ন ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ ১৪ টি। কালিগঞ্জ উপজেলার ৫২ টির মধ্যে ৫ টিতে কোন ঝুকি নাই, বাকী ২৫ টি গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ ২২টি এবং শ্যামনগর উপজেলায় ৬৪ টি পূজা মন্ডপের মধ্যে ৩৭ টিতে কোন ঝুকি নাই , বাকী ১৬ টি গুরুত্বপূর্ণ ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ ১১টি পূজা মন্ডপকে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এদিকে আসন্ন শারদীয় দূর্গা পূজাকে সামনে রেখে জেলায় আইন শৃখংলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।

 জেলা পুলিশের দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণভাবে পালনের সুবিধার্থে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এবার পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশ, আনছার, স্থানীয় পূজা কমিটি, স্বেচ্ছসেবক ও নির্বাহী ম্যিোজস্ট্রেটের অধীনে ভ্রাম্যমাণ পুলিশ টিম নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে।

সার্বিক বিষয়ে সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন জানান, সাতক্ষীরা জেলায় এবার মহসাড়ম্বরে ৫৬৪ টি পুজা মন্ডপে শারর্দীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ দূর্গা পূজা সুন্দর ও সুষ্ঠভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে ৬৭ টি মোবাইল টিম সার্বক্ষনিক মাঠে থাকবে। তিনি আরো জানান, যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইন শৃখংলা রক্ষা বাহিনী সর্বদা প্রস্তুত থাকবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ