ঢাকা, শনিবার 16 September 2017, ০১ আশ্বিন ১৪২8, ২৪ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় এলপি গ্যাসের দাম বেড়েই চলেছে

খুলনা অফিস : খুলনায় বেড়েই চলেছে তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম (এলপি) গ্যাসের দাম। গত আগস্ট’র প্রথম থেকে ক্রেতাদের কাছ থেকে সিলিন্ডার প্রতি নেয়া হচ্ছে একশ’ টাকা বেশি। ফলে প্রতি সিলিন্ডার গ্যাস কিনতে বাড়তি টাকা গুণতে হচ্ছে সাধারণ গ্রাহকদের। যা গ্রাহকের মাসিক খরচের খাত বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

নগরীর বড় মির্জাপুরের গৃহবধূ মুক্তা বলেন, রান্নার জন্য মাসে অন্তত এক সিলিন্ডার গ্যাস কিনতে হয় তাকে। আগস্টে যে গ্যাস আটশ’ ৪০ টাকায় কিনেছিলেন, গত মাসে সে গ্যাস কিনেছিলেন নয়শ’ টাকায় আবার ব্যবসায়ীরা এখন তা চাচ্ছেন নয়শ’ ৫০ টাকা।

নগরীর বিভিন্ন গ্যাস কোম্পানির ডিলার, খুচরা বিক্রেতা ও ক্রেতারা বলছেন, শুক্রবার পর্যন্ত ওমেরা, ক্লিনহীট, বিএম এনার্জি, যমুনা ৯৫০ টাকা, সেনা ৮৮০ টাকা, বসুন্ধরা ৮৫০ টাকা এবং টোটাল কোম্পানির এলপি গ্যাসের প্রতিটি ১২ কেজি ওজনের সিলিন্ডার বিক্রি হয়েছে ৯৬০ টাকায়।

নতুন রাস্তার মোড় কাশিপুর বিআইডিসি রোডের আমিন গ্যাস সাপ্লাই এর স্বত্বাধিকারী মো. নুরুল আমিন নুরু সানজিদা ট্রেডার্স এর স্বত্বাধিকারী মো. নূরুজ্জামান জানান, বিভিন্ন কোম্পানির ডিলারদের কাছ থেকে কয়েক দিন ধরে তাদের বেশি দামে সিলিন্ডার গ্যাস কিনতে হচ্ছে। ফলে বিক্রি করতে হচ্ছে বেশি দামে। কোন পরিবেশক কোন কোম্পানিকে কেন দাম বৃদ্ধি পেল তা নিয়ে জবাবদিহি করতে পারে না। আমরা না নিলে অনেক পরিবেশক আছে ওই কোম্পানির কাছে। তারাই বেশি দামে কিনবে।

নগরীর কাশিপুর এলাকার বসুন্ধরা এলপি গ্যাস লি., যমুনা গ্যাস, টোটাল গ্যাস, ক্লীনহীট গ্যাস, ওমেরা এলপি গ্যাস এবং বিএমএলপি গ্যাসের পরিবেশক মেসার্স তালুকদার ট্রেডার্স এর জাহিদুর রহমান অসীম জানান, বেশি বিনিয়োগ করে কম মুনাফার ব্যবসা হলো এই গ্যাস । আমরা ১২ কিজি সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রি করে মাস শেষে সামান্য কমিশন পাই। আন্তর্জাতিক বাজারে গ্যাসের দাম বাড়লে এবং কোম্পানি দাম বাড়ালে আমরা নিরুপায় হয়ে যাই। তবে আমরা পরিবেশকরা মনে করি এলপি গ্যাসের এ সেক্টরটিতে সরকারের বাজার মনিটরিং বৃদ্ধি করা প্রয়োজন।

ওমেরা এলপি গ্যাসের দক্ষিণাঞ্চলের অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার আরিফুল ইসলাম মারুফ জানান, আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি টন গ্যাসে ৪৫ ডলার বৃদ্ধি পেয়েছে। যার প্রভাবে এখন খুচরা বাজারে পড়ছে। এখানে দেশীয় কোন কোম্পানির কোন কিছু করার থাকে না।

খুলনা এলপি গ্যাস ব্যবসায়ী মালিক সমিতি খুলনার সভাপতি শেখ মো. তোবারক হোসেন তপু বলেন, বিশ্ব বাজারের দোহাই দিয়ে দেশীয় কোম্পানিগুলো আইনের তোয়াক্কা না করে রাতারাতি এলপি গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করছে। এর প্রধান কারণ আমি মনে করি সরকারকে বেকায়দায় ফেলানো ছাড়া আর কিছুই নয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ