ঢাকা, শনিবার 16 September 2017, ০১ আশ্বিন ১৪২8, ২৪ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চলতি মাসের শেষেই দেশে ফিরছেন খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টার : পায়ের আর্থারাইটিসের চিকিৎসাজনিত কারণে দেশে ফেরা পিছিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। বৃহস্পতিবার রাতে লন্ডন বিএনপি শাখার সভাপতি এম এ মালেক বলেন, ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) ১৫ তারিখ দেশে ফেরার সম্ভাব্য যে সিডিউল ছিলো তা পেছানো হয়েছে। উনার পায়ের হাঁটুর চিকিৎসা চলছে। তিনি জানান, দেশে ফেরার আগে লন্ডনসহ প্রবাসী বিএনপির নেতা-কর্মীদের সাথে একটি পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান হবে। এর দিনক্ষণ এখনো ঠিক করা হয়নি।

এদিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ম্যাডামের সাথে বুধবার রাতে কথা হয়েছে। উনি জানিয়েছেন তার পায়ের আর্থারাইটিসের চিকিৎসা চলছে। কয়েকটি পরীক্ষা ডাক্তাররা দিয়েছেন, সেগুলো শেষ হলে পরেই তিনি দেশে ফিরবেন।

জানা গেছে, খালেদা জিয়া নিজেই দেশে ফিরতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। তার চিকিৎসা সম্পন্ন হলেই তিনি দেশে ফিরবেন। আগামী ২৪ অথবা ২৬ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়া দেশে ফিরতে পারেন বলে জানা গেছে। 

গত ৫ সেপ্টেম্বর গণমাধ্যমে সাংবাদিকদের বিএনপি মহাসচিব জানিয়েছিলেন যে, পায়ের চিকিৎসা শেষ হলে সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সাপ্তাহেই দেশের ফিরবেন খালেদা জিয়া। খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য গত ১৫ জুলাই লন্ডন যান। ৮ অগাস্ট লন্ডনের মুরফিল্ড হাসপাতালে তার ডান চোখের অস্ত্রোপচার হয়। সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। এরপর তার পায়ের আর্থারাইটিসের চিকিৎসা শুরু হয়।

পূর্ব লন্ডনের কুইসস্টোন এলাকায় তারেক রহমানের বাসায় উঠেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন। বাসায় তারেক রহমানের স্ত্রী জোবাঈদা রহমান, মেয়ে জাইমা রহমান রয়েছেন। ছোট ভাই মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান, তার দুই মেয়ে জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমানও আছেন সেখানে। সর্বশেষ ২০১৫ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর খালেদা লন্ডনে যান। সেবার ছেলে তারেক রহমান ও তার স্ত্রী-মেয়ে এবং ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী ও দুই মেয়েকে নিয়ে ঈদ উদযাপন করে দেশে ফেরেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ