ঢাকা, সোমবার 18 September 2017, ০৩ আশ্বিন ১৪২8, ২৬ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাজধানীতে স্বামীর হাতে স্ত্রী কর্মচারীর হাতে মালিক খুন

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর মিরপুরে স্বামীর হাতে তাসলিমা সুলতানাইভা (৪০) নামে এক স্ত্রী খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় স্বামীকে আটক করা হয়েছে। গতকাল রোববার দুপুরে মিরপুর পূর্ব মনিপুর একটি বাড়ির ৩য় তলা  থেকে স্ত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়।
মিরপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ইভা তার স্বামী মনিরুজ্জামান ওরফে সাদা বাবু ও দুই সন্তানকে নিয়ে মিরপুর পূর্ব মনিপুর এলাকার একটি বাড়ির তয় তলায় থাকতেন। তিনি আরও জানান, নিহত ইভার মুখ-মন্ডলে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামী তাকে ভোতা অস্ত্র দিয়ে মুখ-মন্ডলে আঘাত করে হত্যা করেছে। এ ঘটনায় স্বামী মনিরুজ্জামানকে আটক করে বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক ) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে , বাড্ডায় এক দোকান কর্মচারীর হাতে আবুদল আউয়াল (৪৫) নামে এক ফার্মেসি মালিক খুন হয়েছেন। গতকাল দুপুরে বাড্ডার সাঁতারকুল রোডের লিভা মেডিক্যাল স্টোরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কর্মচারী ফখরুলকে আটক করেছে পুলিশ।
বাড্ডা থানার সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) কামারুজ্জামান জানান, কর্মচারী ফখরুল ধারালো ছুরি দিয়ে মালিক আব্দুল আউয়ালকে আঘাত করে। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্ত কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে। তবে কেন, কী কারণে এই ঘটনা ঘটেছে, সে বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি।

পৃথক দুর্ঘটনায় দুই যুবক নিহত
পৃথক দুর্ঘটনায় দুই যুবক নিহত হয়েছেন। মিরপুর বেড়িবাঁধে সড়ক দুর্ঘটনায় শনিবার রাতে নিহত হন শাকিব (২০)। অপরদিকে, ক্যান্টনমেন্ট-বিমানবন্দরের মাঝামাঝি স্থানে রেললাইনে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত হন সজিব মোল্লা (২০)। তাদের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।
শাকিবের বাবা আহসান হাবীব জানান, শাহ আলী থানার নবাবের বাগ এলাকার ১৫১/২ নম্বর বাসায় তার বাসা। শাকিব শনিবার রাত ৮টার দিকে মিরপুর বেড়িবাঁধে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়। তখন পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি আরও জানান, পরে সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ১২টা ৫০ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।
অপরদিকে, শনিবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে রেললাইনের ক্যান্টনমেন্ট-বিমানবন্দর মধ্যবর্তী স্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যান সজীব মোল্লা (২০)। গতকাল রোববার রেলওয়ে পুলিশ তার মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়। সজীব গুলশানের যমুনা ব্যাংক লিমিটেডে পিয়ন পদে চাকরি করতেন। কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় তিনি ভাড়া বাসায় থাকতেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ