ঢাকা, মঙ্গলবার 19 September 2017, ০৪ আশ্বিন ১৪২8, ২৭ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রথমার্ধে ৩ গোলে পিছিয়ে থেকেও ভারতকে হারাল বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার : দেশের ফুটবলের ত্রাহী অবস্থার মাঝে ভুটান থেকে সুখবর দিলো বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৮ ফুটবলাররা। একবছর আগে যে ভুটান থেকে জাতীয় দলের ভুরাডুবি হয়েছিলো সেখানেই ভারতকে হারিয়ে এলো জাগরনের সংবাদ। সাফ অনুর্ধ্ব-১৮ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে  শুভ সূচনা করলো বাংলাদেশ। গতকাল সোমবার ভুটানের থিম্মুতে অনুষ্টিত উদ্ভোধনী দিনের ম্যাচে ৪-৩ গোলে ভারতকে হারিয়ে অবিশ্বাষ্য ও স্মরনীয় একটি জয় পেল লাল-সবুজ দলটি। অবিশ্বাষ্য ও স্মরনীয় জয় এই অর্থে যে ভারতের মত দলের বিপক্ষে প্রথমার্ধে ৩ গোলে পিছিয়ে থেকে ৪-৩ গোলে জয় পাওয়ার ইতিহাস। ফুটবলে এমন স্মরণীয় দিন গত এক দশকেও এসেছিল কি না সন্দেহ। বরং তলানীতে নামতে নামতে বাংলাদেশের ফুটবল নিয়েই যেন আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে এ দেশের মানুষ। এমনই এক পরিস্থিতিতে দেশের ফুটবলের প্রতি আবারও নজর ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হলেন অনুর্ধ্ব-১৮ দলের ফুটবলাররা। গত আসরে সেমিফাইনালে ভারতের কাছে হেরে বিদায় নেয়া বাংলাদেশ দলের এবার লক্ষ্য ছিলো জয়। সেই লক্ষ্যে খেলতে নামলেও শুরুটা ভাল হয়নি। প্রথমার্ধের পুরো সময় রক্ষনভাগ সামাল দিতেই ব্যস্ত থাকতে হয়েছে জাফর ইকবাল, রহমতদের। এরই মাঝে রক্ষনভাগের ভুলে হজম করতে হয়েছে তিন গোল। ১৯ মিনিটেই রক্ষণভাগের ভুলে লালপুজার গোলে পিছিয়ে পরে বাংলাদেশ। ১২ মিনিট পরেই ভারতীয়দের আবার পেনাল্টি উপহার দেন বাংলাদেশ অধিনায়ক টুটুল হোসেন বাদশা। স্পটকিক থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেছে ভারতীয়রা। আর বিরতিতে যাওয়ার ঠিক আগমুহূর্তে ফ্রি কিক থেকে দর্শনীয় গোলে ৩-০। খেলার এমন ফলাফলে নিশ্চিজত পরাজয় মনে হলেও কোচ মাহবুব হোসেন রক্সি ও ফুটবলাররা মনোবল হারায়নি।
 বিরতিতে কোচ তাঁর খেলোয়াড়দের দারুনভাবে উজ্জীবিত করে ভারতের বিপক্ষে লড়াইয়ে নামালেন। দ্বিতীয়ার্ধের ৪৫ মিনিট হবে শুধু তাদের, এই পণ নিয়েই যেন মাঠে প্রবেশ করলেন জাফর ইকবাল, রহমত মিয়ারা। বাংলাদেশ দলের জয়ের নায়ক উইঙ্গার জাফর ইকবাল। নিজে জোড়া গোল করেছে, করিয়েছে আরও একটি। ৫৫ মিনিটে কর্নার থেকে হেডে গোল করে গোলের খাতা খুলে ৩-১ করে জাফর। ৯১ মিনিটে জয়সূচক গোলটিও এসেছে তার হেড থেকে। মাঝের দুটি গোল রহমত মিয়া ও সুফিলের। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই ভারতীয়দের চেপে ধরে বাংলাদেশ। ফুল প্রেসিং করে ভারতীয় ডিফেন্ডারদের ভুল করতে বাধ্য করে জাফর, সুফিলরা। এমনই এক ভুলে ইনডিরেক্ট ফ্রি কিক পায় বাংলাদেশ। ৬০ মিনিটে সে কিক থেকে ৩-২ করে রহমত। সমতায় ফিরতে তখনো এক গোল বাকি। আক্রমণে আরও মরিয়া হয়ে ওঠে বাংলাদেশ। ৭৪ মিনিটে বামপ্রান্ত থেকে জাফরের ক্রসে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে হেডে গোল করে সুফিল। ৩-৩ গোলে সমতা, প্রথমার্ধ বিবেচনা করলে এটাই বা কম কিসের। কিন্তু জাফর যে পণ করেই মাঠে নেমেছে আজ। যোগ করা সময়ে কর্নার থেকে গোল করে ৪-৩ বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ