ঢাকা, মঙ্গলবার 19 September 2017, ০৪ আশ্বিন ১৪২8, ২৭ জিলহজ্ব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এক বছরের ব্যবধানে খুলনার সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজের ফলাফল বিপর্যয়

খুলনা অফিস: খুলনা নগরের নামকরা সব সরকারি-বেসরকারি কলেজকে পেছনে ফেলে গত বছর এইচএসসি ফলাফলে চমক এনেছিল সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজ। কিন্তু বছর গড়াতেই ফলাফলে ব্যাপক ধস নেমেছে কলেজটিতে। গত বছরের তুলনায় পরীক্ষার্থী বৃদ্ধি পায় ৮৯ জন কিন্তু ফলাফলে অকৃতকার্য বৃদ্ধি পেয়েছে ১৯৫ জন। এদিকে জিপিএ-৫ কমেছে ৩২৩ জন। হঠাৎ এমন ফলাফলের কারণ নিয়ে সন্দিহান অভিভাবকরা।
জানা গেছে, এ বছর সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৭৪০ জন পরীক্ষার্থী। তার মধ্যে সোমবার প্রকাশিত ফলাফলে উত্তীর্ণ হয়েছে ৬৪৪ জন। যে পরিমাণ পরীক্ষার্থী পাস করেছে তা শতকরা হারে প্রকাশ করলে হয় ৭৫ শতাংশ। যা বিগত বছরের পাসের তুলনায় প্রায় ২৫ শতাংশ কম। এদিকে এ বছর কলেজ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র ৯ জন। যা গত বছরের তুলনায় নগণ্য।
গত বছর সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজ থেকে ৬৫১ জন পরীক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। তার মধ্যে একজন পরীক্ষা দেওয়ার সময় অসুস্থ হয়ে পড়ে। এজন্য তিনি এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেননি। গত বছরের প্রকাশিত ফলাফলে পরীক্ষায় কৃতকার্য হয় ৬৫০ জন। কলেজের পাসের হার ছিল ৯৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ, যা খুলনা জেলার শীর্ষে অবস্থান করেছিল। এ ছাড়া গতবছর কলেজ থেকে উত্তীর্ণদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৩৩২ জন।
তবে গত বছরের ন্যায় এ বছরও এইচএসসি পরীক্ষায় শুধু জিপিএ-৫ পাওয়ার ক্ষেত্রে জেলার শীর্ষে অবস্থান করছে খুলনা সরকারি এম এম সিটি কলেজ।
কলেজের অধ্যক্ষ সরদার ফেরদৌস আহম্মেদ বলেন, এ বছর তাদের কলেজে এইচএসসি ফলাফল ভালো হয়নি। এর সঠিক কারণ তিনি জানাতে পারেনি। আর এ ফলাফলকে তিনি ফলাফল বিপর্যয় হিসেবে মনে করেন না। তবে কেন এমন ফলাফল হয়েছে তা তিনি শিক্ষকদের সাথে বসে আলোচনা করবেন বলে জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য, রূপসা উপজেলার বেলফুলিয়া গ্রামে সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজটি অবস্থিত। ২০১৩ সাল থেকে সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজ আলোচনায় আসতে শুরু করে। ওই বছর বোর্ডে ১৫তম স্থান পায় কলেজটি। পরবর্তী বছর কলেজটি ২০১৪ সালে নবম স্থান অর্জন করে। ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু কলেজের যাত্রা শুরু হয়। ২০১৩ সালে কলেজটিকে জাতীয়করণ করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ