ঢাকা, বুধবার 27 September 2017, ১২ আশ্বিন ১৪২8, ০৬ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নেইমারের জন্য আট ফুটবলারের চাকরি যাচ্ছে

গত ৪ আগস্ট ২২২ মিলিয়ন ইউরোর রেকর্ড গড়ে বার্সা থেকে নেইমারকে উড়িয়ে নেয় পিএসজি। নেইমারকে কেনার আগে থেকেই আলোচনার টেবিলে ছিল, কী বলে উয়েফাকে বুঝ দেবে ফরাসি ক্লাবটি। কারণ নেইমারের দলবদলে ইউরোপীয় ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা উয়েফার ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লে (এফএফপি) নীতির লঙ্ঘন হতে পারে, এমন প্রশ্ন উঠেছিল জোরেশোরে। সে সময় কারো কথার তোয়াক্কা করেননি পিএসজি মালিক নাসের আল খেলাইফি। উল্টো নেইমারের পর মোনাকো থেকে এমবাপ্পেকে কিনে নিলেন ১৮০ মিলিয়ন ইউরোতে। নেইমারের ২২২ মিলিয়ন ইউরোর দলবদলের পর যা হচ্ছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অঙ্কের আর্থিক লেনদেন। উয়েফার চোখ ফাঁকি দিতে আগামী মৌসুমে এমবাপ্পের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক চুক্তি করার পরিকল্পনাও আঁটে পিএসজি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পার পেল না ক্লাবটি। উয়েফার কাছে কৈফিয়ত দিতেই হচ্ছে পিএসজিকে। এদিকে বেশ কয়েকটা ফরাসি সংবাদমাধ্যম দাবি করছে, এক নেইমারের জন্য উয়েফার গ্যাঁড়াকলে পড়ল প্যারিস সেন্ট জার্মেইন (পিএসজি)। নেইমারকে কিনে কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করায় অন্যরা উয়েফাকে লেলিয়ে দিয়েছে। উল্লেখ্য, ক্লাবগুলোর আর্থিক সক্ষমতার ভিত্তিতে উয়েফা ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লে (এফএফপি) নীতি রেখেছে। যাতে একটি ক্লাব কখনো সর্বশেষ তিন মৌসুমে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর বেশি ক্ষতির মধ্যে থাকতে পারবে না। নেইমারের বদলিতে কেবল বার্সেলোনাকেই দিতে হয় ২২২ মিলিয়ন ইউরো। এর সঙ্গে আছে বোনাসের হিসাব। পিএসজি কয়েক মৌসুম ধরে কাতারি পেট্রো ডলারের টাকাই ঢালছে। ক্লাবটি এখনো লাভের মুখে নেই। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ