ঢাকা, বুধবার 27 September 2017, ১২ আশ্বিন ১৪২8, ০৬ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চৌগাছায় ৩০ টাকা কেজি চাল বিক্রি শুরু

এম এ রহিম চৌগাছা (যশোর) : যশোরের চৌগাছায় সরকারের ৩০ টাকা কেজি চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। কিন্তু আতপ চাল হওয়ায় তা কিনছেনা ক্রেতা সাধারণ। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশ ছোঁয়া সাধারণ মানুষ দিশেহারা। নিম্ন আয়ের মানুষের অর্ধাহারে দিনাতিপাত। নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর বাজারে আগুন লেগেছে। কয়েক দিনের ব্যাবধানে  চৌগাছা বাজারের দৃশ্যপট রাতারাতি পাল্টে গেছে। ১০/১৫ দিনের ব্যবধানে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর দাম বেড়ে গেছে ৩/৪ গুণ। কয়েকদিনের ব্যবধানে  চাল, ডাল, আটা, ময়দা, চিনি, কেজিতে ৮ থেকে ১০ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। পাশাপাশী ভোজ্যতেল, পিঁয়াজ, রসুন, বেগুন, শশা, কাঁচা মরিচসহ তরিতরকারির দাম বেড়েছে অস্বাভাবিক। মাছ, মাংস, ডিমের বাজারে যাচ্ছেনা সাধারণ ক্রেতারা। অপরদিকে সরকার নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে স্থানীয় ডিলারদের মাধ্যমে বাজারে ৩০ টাকা কেজি চাউল বিক্রির বিশেষ উদ্যোগ নিলেও আতপ চাল হওয়ায় চৌগাছাতে তার কোন প্রভাব পড়েনি। হু-হু করে  বেড়েয় চলছে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। যা এখন আকাশচুম্বি সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে।
  রোববার সরজমিনে উপজেলার বড় কাঁচা বাজার চৌগাছা, সলুয়া, পুড়াপাড়া, ধুলিয়ানী, সিংহঝুলী, হাকিমপুর, পাতিবিলা বাজারসহ অন্যান্য বাজার ঘুরে জানা যায় বাজারগুলোতে নিত্য  প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম রাতরাতি বৃদ্ধি পেয়েছে। চৌগাছা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও সর্দার এন্টার প্রাইজের মালিক এসএম শফিকুর রহমান জানান নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কেজিতে বেড়েছে ৮-১০ টাকা।
তরিতরকারির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে দ্বিগুনেরও বেশি। মসুরের ডাল কেজিতে বেড়েছে ২০ টাকা। খেসারীর ডালের দাম কেজিতে ৫৫ টাকা থেকে বেড়েছে ৭০ টাকায়। সয়াবিন তেল বেশি কিছুদিন ধরে ৮৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছিল, বর্তমান মূল্য ১শ/১০৫ টাকা। এদিকে গরম মসলার বাজারেও আগুন লেগেছে রীতিমত এলাচ শ ১৫০ টাকা, জিরা শ ৪৫ টাকা ডালচিনি শ ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বর্তমানে চাল, আটা ও ময়দার  দামও বৃদ্ধি পেয়েছে দ্বিগুণ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ