ঢাকা, বুধবার 27 September 2017, ১২ আশ্বিন ১৪২8, ০৬ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূতের সাথে চিটাগাং চেম্বার সভাপতির মতবিনিময়

চট্টগ্রাম অফিস: বাংলাদেশে নিযুক্ত থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত পানপিমন সোয়ান্নাপাংচে (চধহঢ়রসড়হ ঝঁধিহহধঢ়ড়হমংব) দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম’র সাথে ২১ সেপ্টেম্বর দুপুরে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। এ সময় চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, চেম্বার পরিচালকবৃন্দ জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), মোঃ জাহেদুল হক এবং ওমর হাজ্জাজ, থাই অনারারী কনসাল ও চেম্বারের সাবেক সভাপতি আমীর হুমায়ুন মাহমুদ চৌধুরী, পিএইচপি গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও চেম্বারের সাবেক পরিচালক মোঃ মহসিন, দূতাবাসের মিনিস্টার কাউন্সিলরসহ অন্যান্য কর্মকর্তা এবং চেম্বার সচিবালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন-বাংলাদেশে থাইল্যান্ডের পণ্য অত্যন্ত জনপ্রিয়। তাই এ সুযোগ কাজে লাগাতে চট্টগ্রামে থাইল্যান্ডের বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা প্রয়োজন। তিনি বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত কর অব্যাহতিসহ বিভিন্ন সুবিধা কাজে লাগানোর লক্ষ্যে থাই বিনিয়োগ আকর্ষণে রাষ্ট্রদূতের ব্যক্তিগত উদ্যোগ কামনা করেন। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে নির্মিত আন্তর্জাতিক মানের হোটেলে থাইল্যান্ডের বিখ্যাত হোটেল চেইনগুলোকে আমন্ত্রণের আহবান জানান চেম্বার সভাপতি। থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত পানপিমন সোয়ান্নাপাংচে বিদেশী বিনিয়োগ আকর্ষণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত ইনসেনটিভ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান। তিনি এসব সুবিধা ব্যবহারের লক্ষ্যে তাঁর দেশী ব্যবসায়ীদের অনুপ্রাণিত করতে উদ্যোগ গ্রহণ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। বাংলাদেশী চিকিৎসা প্রার্থী ও ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য ভিসা পদ্ধতি আরো সহজ করার লক্ষ্যে তাঁর দেশের সরকারের সাথে আলোচনা করবেন বলে জানান। দু’দেশের মধ্যে বিদ্যমান অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরো উন্নত হবে বলে প্রত্যাশা করেন রাষ্ট্রদূত। চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ বিশেষ করে যাঁরা চিকিৎসা  গ্রহণের পরবর্তীতে চেকআপের জন্য পুনরায় থাইল্যান্ড ভ্রমণ করেন তাঁদের ক্ষেত্রে কমপক্ষে এক বছরের ভিসা প্রদান এবং এ প্রক্রিয়া দ্রুততার সাথে সম্পন্ন করার অনুরোধ জানান।  আমীর হুমায়ুন মাহমুদ চৌধুরী থাইল্যান্ডের অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ উন্নত করার মাধ্যমে রেনং বন্দরের সাথে চট্টগ্রাম বন্দরের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি পণ্য পরিবহনে সময় সাশ্রয় করা সম্ভব বলে মনে করেন। চেম্বার পরিচালক জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর) চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা চলাকালীন সময়ে ভিসা সংক্রান্ত কাউন্সেলিং প্রদানের আহবান জানান। পরিচালক মোঃ জাহেদুল হক নার্সিং ইন্সটিটিউট স্থাপন করে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার অনুরোধ জানান। পরিচালক ওমর হাজ্জাজ উভয় দেশের প্রাইভেট সেক্টরের মধ্যে অধিকতর সমন্বয়ের উপর গুরুত্বারোপ করেন। রাষ্ট্রদূত ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের ৫ম তলায় রপ্তানিমুখী পণ্যের স্থায়ী প্রদর্শন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ