ঢাকা, শুক্রবার 29 September 2017, ১৪ আশ্বিন ১৪২8, ০৮ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পার্বতীপুর জংশন এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী, ছিনতাইকারী ও অপরাধীদের অবাধ বিচরণ

আমজাদ হোসেন পার্বতীপুর: পার্বতীপুর জংশন এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী, মাদকসেবী, ছিনতাইকারী ও অপরাধীদের স্বর্গরাজ্যে পরিনত হয়েছে। এই জংশন এলাকা ঘিরে অপরাধীদের একটি সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। রেলপুলিশ ও প্রশাসনের রহস্য জনক নিঃস্কৃওতায় যাত্রী সাধারন ও জংশন এলাকায় বসবাসকারী কর্মচারীরা অপরাধীদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে।
উত্তরাঞ্চালের বৃহত্তর ও ঐতিহ্যবাহী চার লাইনের জংশন স্টেশন পার্বতীপুর দিয়ে নীলসাগর, একতা, দ্রুতযান, সীমান্ত, রুপসা, বরেন্দ্র, ও দোলন-চাপা এক্সপেস ট্রেন ঢাকা, খুলনা ও রাজশাহী সহ বিভিন্ন রুটে ৪২ টি ট্রেন দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার যাত্রী এই রেলষ্টেশনের উপর দিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাতায়াত করে থাকে। সরকার প্রতি বছর এ জংশন থেকে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব পেলেও যাত্রী সেবার মান যাত্রীদের নিরাপত্তা নাই বললেই চলে। পার্বতীপুর জংশন স্টেশনে ৫টি প্লাটফরম ২টি ওয়েটিং রুম আছে। ১নং প্লাটফর্মের মোসাফির খানা ও ওয়েটিং রুম ২টি  সব সময় টিকেট কালোবাজারি, মাদকসেবি ও বখাটের দখলে থাকে।
রাতে ওয়েটিং রুম ২টিতে মাদক সেবীদের আড্ডা বসে। ফলে যাত্রীরা নিজের নিরাপত্তার কথা ভেবে ঐ ওয়েটিং রুমে বিশ্রাম না নিয়ে প্লাটফর্মেই বসে থাকে গন্তব্যস্থলের ট্রেনের অপেক্ষায়। মোসাফির খানায় যাত্রীদের বসার ব্যবস্থা  থাকলেও ভদ্রযাত্রী বিশেষ করে মহিলা যাত্রীদের ঐ স্থানে বসে  থাকা খুব কষ্ট সাধ্য ও ঝুকিপূর্ন হয়ে পড়েছে। বখাটেরা মেয়ে যাত্রী দেখলেই অশালীন বাক্য বিনিময় করে থাকে। বিভিন্ন গন্তব্যে যাওয়ার জন্য ৫টি প্লাটফর্মেই  ট্রেনে উঠা ও নামার সময় যাত্রীদের গলার চেইন, মোবাইল সেট, টাকা পয়সা, ব্যাগ, হ্যান্ডব্যাগ ছিনিয়ে নেয়া ছিনতাইকারীদের নিত্যদিনের ঘটনায় পরিনত হয়েছে।
ছিনতাইয়ের স্বিকার হওয়া যাত্রীরা রেলথানায় অভিযোগ করলে ছিনতাইকারীরা আটক কিংবা ছিনতাই হয়ে যাওয়া মালামাল উদ্ধার করতে বরাবরই নিরব থাকে রেলওয়ে পুলিশ প্রশাসন।
পুলিশের নিস্কৃওতায় জংশন এলাকায় বেপরোয়া হয়েছে ছিনতাইকারীরা। জংশন ষ্টেশনের পূর্বপাশে রেল লাইনের ধার ঘেষে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠা ক্লাব ও বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের অফিসে অবাধে চলছে জুয়ার আসর। এসব জুয়ার আসরে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকার জুয়া খেলা হয়। আর এসব জুয়ার আসর গুলোকে কেন্দ্রকরে জংশন এলাকায় গড়ে উঠেছে ছিনতাইকারীদের সিন্ডিকেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ