ঢাকা, শনিবার 30 September 2017, ১৫ আশ্বিন ১৪২8, ০৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সহায়তায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসতে হবে -মিয়া গোলাম পরওয়ার

 

বাংলাদেশের শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেছেন, রোহিঙ্গা শরনার্থীদের সহযোগিতা,শিক্ষা,চিকিৎসা,পুনর্বাসনে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসতে হবে। রোহিঙ্গাদের আইনি, রাজনৈতিক ও মানবিক সহযোগিতা এবং পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি তিনি আহ্বান জানিয়েছেন।

গত বৃহস্পতিবার ঢাকার এক মিলনায়তনে ফেডারেশনের জেলা সভাপতি সম্মেলনে তিনি এই সব কথা বলেন। ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হারুন অর রশিদ খানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা জেলা উত্তরের প্রধান উপদেষ্টা এখলাছ উদ্দিন। সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি গোলাম রব্বানী, সহ- সাধারণ সম্পাদক কবির আহমদ, সহ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ উল্লাহ, সহ সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সভাপতি লস্কর মোহাম্মদ তসলিম, সহ সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য মনসুর আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর হাসান রাজু, দপ্তর সম্পাদক আবুল হাশেম,সহ শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ বাছির। সম্মেলনে বিভিন্ন শিল্পাঞ্চল ও বিভিন্ন ট্রেডের শ্রমিক নেতবৃন্দসহ সকল মহানগরী ও জেলা সভাপতিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

 জেলা সভাপতি সম্মেলণের শুরুতেই পার্শ¦বর্তী রাষ্ট্র মিয়ানমার সরকার আরকান রাজ্যের রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্টির উপর মিথ্যা ও বানোয়াট অযুহাতে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীকে ব্যবহার করে চরম নির্যাতন, নীপিড়ন, নারী ও শিশুদের হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে তার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়। 

অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, একটি রাষ্ট্রের নিরাপত্তা বাহিনীর তত্ত্ববধানে শুধুমাত্র মুসলিম জনগোষ্ঠি হওয়ার কারণে এ রকম হত্যাযজ্ঞ একটি মানবতা বিরোধী জগণ্য অপরাধ। আজকের সম্মেলন মিয়ানমারের বিপন্ন রোহিঙ্গা মুসলমান জনগোষ্ঠির প্রতি অব্যহত গণহত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতন, বাড়ি-ঘরে অগ্নি সংযোগ ও বিতাড়ন বন্ধের জন্য মিয়ানমার সরকারের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছে। সাথে সাথে বাংলাদেশ সরকার জাতিসংঘ এবং বিশ্ব সংস্থার গুলোকে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান। 

তিনি বলেন,নিজ দেশে মানবাধিকার বঞ্চিত রোহিঙ্গাদের শুধু আশ্রয় দিলেই হবে না। তাদের আইনি, রাজনৈতিক ও মানবিক সহযোগিতা নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য জাতিসংঘসহ বিশ্ব সম্প্রদায়কে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, প্রায় পাঁচ লাখেরও বেশি মিয়ানমারের বেসামরিক নাগরিক সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশ প্রবেশ করায় তাদের দুর্দশায় আমরা গভীরভাবে ব্যথিত। প্রতিদিন হাজার হাজার লোক বিপজ্জনক ভ্রমণ করে সীমান্ত অতিক্রম করছে এবং নারী, শিশু, বৃদ্ধ জনগণ ও প্রতিবন্ধিরা বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় জেলা কক্সবাজারের বান্দরবানে আশ্রয় নিচ্ছে। মিয়ানমার থেকে আগত এসব নিরীহ জনগণ মারাত্মক সংকট মোকাবেলা করছে এবং এদের মধ্যে অনেকেই চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে খোলা আকাশের নীচে বসবাস করছে।

মিয়া গোলাম পরওয়ার মিয়ানমার সম্পর্কে বলেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও সীমান্তরক্ষী বাহিনী যেভাবে রোহিঙ্গাদের প্রতি বর্বর নির্যাতন, ধর্ষণ, হত্যা ও অগ্নিসংযোগ চালাচ্ছে, তা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল ঘটনা। এই ঘটনা থেকে মুসলিম বিশ্ব নেতৃবৃন্দকে নতুন করে কিছু ভাবতে হবে। ঐক্যবদ্ধ ভাবে মোকাবেলা না করতে পারলে ভবিষ্যতে মুসলমানদের এর থেকেও কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হবে।

তিনি অনতিবিলম্বে, জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আইনি, রাজনৈতিক, চিকিৎসা,পুনর্বাসন সহ মানবিকভাবে সাহায্য করা সহ সকল বেসামরিক নাগরিকের মানবিক সহযোগিতা এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, সকল পেশায় বেতন স্কেল বৃদ্ধি হলেও শ্রমজীবী মানুষের বেতন বাড়েনি। তিনি উক্ত সম্মেলনে শ্রমিকদের ন্যুনতম মজুরী ১৫০০০/টাকা করার দাবি জানান।

মিয়া গোলাম পরওয়ার সরকারের সমালোচনা করে বলেন, বর্তমান সরকার ব্যাপক বিদ্যুৎ উৎপাদন করার কথা প্রচার করলেও সারাদেশে লোডশেডিং এ জনদুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। গ্রাম অঞ্চলের সাধারণ নাগরিক, শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি নগর ও শিল্প অঞ্চলে কল-কারখানা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। তিনি মানুষের এসব সমস্যা সমাধানে সরকারকে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান জানান। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ