ঢাকা, মঙ্গলবার 3 October 2017, ১৮ আশ্বিন ১৪২8, ১২ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রধান বিচারপতির ছুটি নেয়া অস্বাভাবিক -আমীর খসরু

 

স্টাফ রিপোর্টার: প্রধান বিচারপতির এক মাসের ছুটি নেয়াকে অস্বাভাবিক বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, এটা ভালো কোন ইঙ্গিত বহন করছে না। দেশের একটির পর একটি গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করার যে ধারাবাহিকতা তার সর্বশেষ নজির বিচারবিভাগ। এটি ধ্বংস হলে মানুষের শেষ আশ্রয়স্থলও আর থাকবে না। সাধারণ মানুষের যাওয়ার কোন জায়গা থাকবে না। গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘বাংলাদেশ ও সংকট’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

বাংলাদেশ জাতীয় দলের ৪১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়। সভায় জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদার সভাপতিত্বে ও মহাসচিব রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় আরো বক্তৃতা করেন, বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি, স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, ন্যাপের মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, জাতীয় পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব এ এস এম শামীম, ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মামুন বিল্লাহ, বিএনপি নেতা এম এ হান্নান, কাজী মনিরুজ্জামান মনির, মিয়া মো: আনোয়ার, রকিবুল ইসলাম, ইসমাইল তালুকদার, এম জাহাঙ্গীর আলম, আবুল মনসুর ভুঁইয়া প্রমুখ। 

আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আগামী নির্বাচন নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র চলছে কিনা তা নিয়ে মানুষ চিন্তিত। দেশে ও দেশের বাইরে থেকে সরকারের কর্মকান্ড নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, সরকারের এ ধরনের অপচেষ্টা সফল হবেনা। মিয়ানমারের পররাষ্ট্র দফতরের প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার ব্যাপারে সময়সীমা বেধে দিতে হবে। সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সময় সময়সীমা বেধে দেয়ায় তারা রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে বাধ্য হয়েছিল। রোহিঙ্গাদের ত্রাণ দেয়া নিয়ে আওয়ামীলীগ রাজনৈতিক নাটক করছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, তারা নিজেরা ত্রাণ দিচ্ছেনা। বিদেশী ত্রাণ সরকারের মন্ত্রীরা শুধু বন্টন করছেন। কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে আওয়ামী লীগের অফিস খোলার সমালোচনা করে তিনি বলেন, তারা সেখানে ব্যবসায়িক কর্মকান্ড পরিচালনা করছে। ত্রাণ লুটপাটের প্রস্তুতি নিচ্ছে। বিএনপির কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের নেতাকার্মীরা রোহিঙ্গাদের মাঝে অব্যাহতভাবে ত্রাণ বিতরণ করছে বলেও তিনি জানান। 

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, সরকার জাতিসংঘে পুরোপুরি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। নিরাপত্তা পরিষদে মিয়ানমারকে চাপ দেয়ার মত কোন উদ্যোগ নিতে পারেনি। 

জেবেল রহমান গাণি বলেন, প্রধান বিচারপতি ছুটি নেয়ায় জাতি আশংকিত। দেশে কি হতে যাচ্ছে তা নিয়ে জনমনে নানা উদ্বেগ উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে। 

আবু নাসের রহমাতুল্লাহ বলেন, সরকার যখন গুলি করে নৌকা ডুবি ঘটিয়ে রোহিঙ্গাদের হত্যা করছিল তখন সর্বপ্রথম বেগম খালেদা জিয়াই তাদের জন্য সীমান্ত খুলে দেয়ার আহবান জানিয়েছিলেন। তিনিই রোহিঙ্গাদের এ দেশে আশ্রয় দেয়ার কথা বলেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ