ঢাকা, মঙ্গলবার 3 October 2017, ১৮ আশ্বিন ১৪২8, ১২ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বিজিবি-বিএসএফের সীমান্ত সম্মেলন শুরু আজ নয়াদিল্লীতে

স্টাফ রিপোর্টার : বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের (বিএসএফ) মহাপরিচালক পর্যায়ের সীমান্ত সম্মেলন আজ মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে ভারতের নয়াদিল্লীত। এই সম্মেলনে যোগ দিতে বিজিবি’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেনের নেতৃত্বে ২৪ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল এরইমধ্যে দিল্লী গেছেন। আজ কাল ৯ টায় নয়াদিল্লীর বিএসএফের সদর দফতরে এ সম্মেলন হবে।

বিজিবি’র সদর দফতর সূত্রে জানানো হয়, বিজিবি প্রতিনিধি দলের মধ্যে মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন ছাড়াও বিজিবি’র সরাইল, যশোর, রংপুর এবং চট্টগ্রাম রিজিয়ন কমান্ডার, বিজিবি সদর দফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর, যৌথ নদী কমিশন, ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদফতর এবং বাংলাদেশ জরিপ অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা রয়েছেন।

অপরদিকে, বিএসএফ মহাপরিচালক কে কে শর্মার নেতৃত্বে ২৬ সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধিদল এ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন। ভারতীয় প্রতিনিধিদলে বিএসএফ সদর দফতরের ঊর্র্ধ্বতন কর্মকর্তা, ফ্রন্টিয়ার আইজি, ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, জাতীয় তদন্ত সংস্থা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর, সার্ভে অব ইন্ডিয়া এবং যৌথ নদী কমিশনের কর্মকর্তারা প্রতিনিধিত্ব করবেন।

সীমান্ত সম্মেলন উপলক্ষে উভয় দেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর মধ্যে বিদ্যমান সুসম্পর্ক আরও সুসংহত করার লক্ষ্যে বিজিবি পরিচালিত সীমান্ত পরিবার কল্যাণ সমিতির (সিপকস) সভানেত্রী রওশন আরা হোসেনের নেতৃত্বে ১২ সদস্যের প্রতিনিধিদলও ভারত গেছেন। সিপকস প্রতিনিধিদল বিএসএফ পরিচালিত বিএসএফ ওয়াইভস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন এবং অ্যাসোসিয়েশনের বিভিন্ন কর্মকান্ড পরিদর্শন করবেন বলে জানা গেছে।

সম্মেলনের প্রথম দিনের কর্মসূচি অনুযায়ী বিজিবি মহাপরিচালক ভারত সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এবারের সম্মেলনের আলোচ্য বিষয়ের মধ্যে রয়েছে- সীমান্ত এলাকায় নিরস্ত্র বাংলাদেশী নাগরিকদের গুলি, হত্যা, আহত করা, নিরীহ বাংলাদেশী নাগরিকদের গ্রেফতার ও আটক করা, সীমান্ত লঙ্ঘন, অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম, বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ, আগ্নেয়াস্ত্র, গোলাবারুদ, বিস্ফোরক দ্রব্য চোরাচালান ও বিভিন্ন প্রকারের মাদকদ্রব্য চোরাচালান, বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ভারতীয় মোবাইল নেটওয়ার্ক কভারেজ, সীমান্তের ১৫০ গজের মধ্যে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক ও নির্মাণ কাজ, উভয় দেশের সীমান্ত নদীসমূহের তীর সংরক্ষণ।

এছাড়াও পারস্পরিক আস্থা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা হবে সম্মেলনে। আগামী ৬ অক্টোবর সম্মেলনের যৌথ আলোচনার দলিল (জয়েন্ট রেকর্ড অব ডিসকাশন্স-জেআরডি) স্বাক্ষরিত হবে। এছাড়াও সীমান্ত সম্মেলন উপলক্ষে ৫ অক্টোবর নয়াদিল্লীতে বিজিবি-বিএসএফ প্রীতি হ্যান্ডবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ