ঢাকা, মঙ্গলবার 3 October 2017, ১৮ আশ্বিন ১৪২8, ১২ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হোমিওপ্যাথি : প্রশ্ন আছে অনেক

-অধ্যাপক ডা. আহমদ ফারুক
প্র: আমার বয়স ৩২। শ্বাসকষ্ট। কাশি। শ্লেষ্মা যায়। সকালেই বেশি। হোমিওপ্যাথিতে ভাল হবে কি?
-চৌধুরী আঃ সাত্তার, ঢাকা।
উ: লক্ষণ দেখে মনে হচ্ছে ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিস। পরীক্ষা-নিরীক্ষার দ্বারা নিশ্চিত হতে হবে। হোমিওপ্যাথিতে এর ভাল চিকিৎসা রয়েছে। আমাদের অভিজ্ঞতায় নিয়মিত দীর্ঘদিন ওষুধ সেবনে রোগীরা ভাল ফল পায়।
প্র: কাশির সাথে রক্ত যাওয়ার কারণ জানতে চাই। 
-মশিউর রহমান, ঢা.বি.
উ: কাশির সাথে রক্ত যাওয়ার অনেক কারণ রয়েছে। যেমন: যক্ষ্মা, ফুসফুসের ক্যান্সার, ফুসফুসের ফোঁড়া, ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিস, ব্রঙ্ককিয়েকটেসিস, ব্রঙ্কিয়াল এডেনোমা, পালমোনারী ইনফারকশন, হৃদযন্ত্রের রোগ-মাইট্রাল স্টেনোসিস, মূত্রযন্ত্রের গুডপাস্তুরস সিনড্রোম (Goodpasteure’s syndrome),  প্রভৃতি কারণে কাশির সাথে রক্ত যেতে পারে। কাশির সাথে রক্ত গেলে কোনো বিলম্ব না করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ বাঞ্ছনীয়। তবে রক্ত যাওয়ার পর পর হোমিওপ্যাথি ওষুধ ‘আর্নিকা-৩০’ ঘন ঘন কয়েকবার সেবনে রোগী সাময়িক আরাম পাবে। পরবর্তীকালে যথানিয়মে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় এ ধরনের রোগীরা ভাল ফল পেয়ে থাকেন।
প্র: পাইলস বা অর্শ রোগের কারণ কী এবং এর হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা কার্যকর কি না?
-মৌলভী আখতার হোসেন, সিলেট
উ: পাইলস বা অর্শ রোগের প্রকৃত কারণ এখনো জানা যায়নি। এর বংশগত প্রভাব রয়েছে। এ ছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়রিয়া, অনিয়মিত পায়খানার অভ্যাস, তরিতরকারি, ফলফলাদি না খাওয়ার অভ্যাস থাকলে পাইলস হতে পারে। মেয়েদের গর্ভাবস্থায় পাইলস দেখা দিতে পারে। হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় পাইলস ভালো হতে পারে। এ জন্য বিজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিতে হবে।
প্র: আপনি বলেছেন, ভালো চিকিৎসক হতে হলে অর্গানন ভালোভাবে জানতে হবে। অর্গানন কার অনুবাদ পড়ব?
-ডা: সাদিয়া ইসলাম, ঢাকা
উ: অর্গানন অব মেডিসিন জার্মান ভাষায় লিখিত। আধুনিক ইংরেজি অনুবাদ জাস্ট কুনজলী প্রমুখ কর্তৃক, আমেরিকা ও লন্ডন থেকে প্রকাশিত বইটি আমার কাছে অত্যন্ত ভালো অনুবাদ বলে মনে হয়। বাংলা অনুবাদগুলোতে অনেক বিভ্রান্তি রয়েছে।
প্র: ভিটামিন সি ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে। কি ধরনের ক্যান্সার প্রতিরোধ করে ভিটামিন সি?
-মুজাম্মেল হোসেন, ঢাকা
উ: অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ভিটামিনগুলোর মধ্যে ভিটামিন সি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন সি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। ভিটামিন সি যেসব ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে তার মধ্যে রয়েছে মুখ, অন্ননা, পাকস্থলী, প্যানক্রিয়াস, রেকটাম, জরায়ু মুখ, স্তন এবং ফুসফুস ক্যান্সার। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবারের মধ্যে রয়েছে আমলকি, আমড়া, আম, আঙুর, পেয়ারা, ফুলকপি, বাঁধাকপি, আলু, টমেটো, লেবু, কমলা, কাঁচামরিচ, পেঁপে ইত্যাদি প্রতিদিন প্রচুর ভিটামিন সি গ্রহণ করুন এবং সুস্থ থাকুন।
প্র: পড়ে গিয়ে ব্যথা পেলে কিংবা থেঁতলে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে কোন হোমিওপ্যাথি ওষুধ আছে কি?
-সাইদুর রহমান, ঢাকা
উ: এ ধরনের আঘাতের প্রাথমিক চিকিৎসায় হোমিওপ্যাথি ওষুধ ‘আর্নিকা মন্টেনা-৩০ শক্তি’ ব্যবহারে দ্রুত ফল পাওয়া যায়।
প্র: দিন দিন আমার শরীর শুকিয়ে যাচ্ছে। আমার প্রায়ই কাশি থাকছে। জ্বর জ্বর ভাব সব সময়। কোন ব্যবস্থা আছে কি।
উ: আপনার পুরো ইতিহাস এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষার দ্বারা রোগ চিহ্নিত করে চিকিৎসা দিতে হবে।
প্র: ম্যানিয়া রোগের চরিত্র এবং তার ভাল ওষুধ জানতে চাই।
-ডা. আবদুল্লাহ, ঢাকা।
উ: ম্যানিয়ার (Mania) রোগী নিজেকে দুনিয়ার সেরা মনে করে। সে সহজেই রেগে যায়, তার মেজাজ খিটখিটে। সে নিজেকে বিশেষ ক্ষমতাধর মনে করে। অন্যরা তার ক্ষতি করার চেষ্টা করছে বলে বিশ্বাস করে। তার কোন অসুখ আছে তা সে অস্বীকার করে। কোন কারণ ছাড়াই নিজেকে সে সুখী ভাবে। সে দ্রুত কথা বলে। তার ঘুম কম হবে। চিকিৎসা নিতে সে অস্বীকার করবে। সে কাল্পনিক শব্দ, কথা শুনতে পায়- ইত্যাদি চরিত্র দেখে ম্যানিয়া রোগী চিহ্নিত করা যায়। হোমিওপ্যাথিতে এ জন্য অনেক ওষুধ রয়েছে, যেমন, অ্যানকার্টিয়াম, আর্সেনিক, বেলেডোনা, কারসিনোসিন, হায়েসিয়ামাস, লাইকোপডিয়াম, নাক্সভম, প্লাটিনা, স্ট্রেমোনিয়াম ইত্যাদি। মনে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে রোগীর পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা যেমন দিতে হবে, তেমনি কাউন্সেলিং করতে হবে।
প্র: গর্ভাবস্থায় হোমিওপ্যাথি ওষুধ প্রয়োগের বিধান জানতে চাই।
ডা. সাব্বির আহমদ, ঢাকা
উ: গর্ভাবস্থায় পরিচর্যার উদ্দেশ্য হচ্ছে, গর্ভজনিত কারণে মা ও শিশুর মৃত্যু প্রতিরোধ করা। এছাড়া গর্ভবতী মায়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি এবং নিরাপদ প্রসব নিশ্চিত করা। এ জন্য বিজ্ঞানী হানেমান গর্ভাবস্থার প্রথম দিকে মাকে শক্তিকৃত ‘সালফার’ প্রয়োগ করতে বলেছেন (অর্গা. ২৮৪)। এছাড়া গর্ভের বিভিন্ন পর্যায়ের অবস্থা বিবেচনা করে লক্ষণানুসারে হোমিওপ্যাথি ওষুধ প্রয়োগ করলে আশানুরূপ ফলাফল পাওয়া যায়।
প্র: গর্ভাবস্থায় পরিচর্যা বিষয়ে ঢাকায় আপনারা প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। কিন্তু আমরা যারা মফস্বলে আছি তাদের জন্য কি ব্যবস্থা?
উ: আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আমরা ঢাকার বাইরের ডাক্তারদের জন্য দূরশিক্ষণ পদ্ধতিতে প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছি। আগ্রহীরা ৬ মাস মেয়াদী দূরশিক্ষণ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করার জন্য রোড-১১, বাড়ি-৩৮, নিকুঞ্জ-২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯, ফোন: ০১৭১২-৮১৭১৪৪ ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারেন।
প্র: গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য কেন হয় এবং এর প্রতিকার কি?
-ডা. সায়মা বানু, ঢাকা।
উ: গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা যায় মূলত স্ত্রী হরমোন প্রোজেস্টেরন-এর প্রভাবে। এছাড়া গর্ভাবস্থায় দৈহিক কাজকর্ম কম করার জন্যও এ সময়ে শারীরিক পরিবর্তন পাচন প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করার জন্য কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা যায়। এ সময় আয়রন ট্যাবলেট সেবনের জন্য কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে। কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিকারে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করতে হবে। টাটকা ফল-ফলাদি এবং শাকসবজি খেতে হবে। নিয়মিত হাঁটাচলা এবং সাধারণ ঘরের কাজ করা। হোমিওপ্যাথি ওষুধ এ সময় ভাল কাজ করে। যেসব ওষুধ এ সময় ভাল কাজ করে তার মধ্যে রয়েছে অ্যালুমিনা, ব্রায়োনিয়া, কোলিনসোনিয়া, নাক্সভম, সিপিয়া ইত্যাদি।
প্র: গর্ভাবস্থায় জন্ডিস দেখা দিলে কোন হোমিওপ্যাথি ওষুধ কাজ করে কি?
উ: গর্ভাবস্থায় জন্ডিস দেখা দিলে অ্যাকোনাইট, নাক্সভম এবং ফসফরাস ভাল কাজ করে। তবে প্রকৃত কারণ বিবেচনা করেই ওষুধ প্রয়োগ করতে হবে।
প্র: মেডিটেশন সম্পর্কে আপনার মতামত গত পর্বে জানতে পারলাম। মুসলিম হিসেবে আমি এর অনুসরণ করলে কোন ক্ষতি আছে কি? এ সম্পর্কে একটি ভালো বইয়ের নাম জানতে চাই।
-ডা. মোহাম্মদ উল্লাহ, ঢাকা
উ: একজন মুসলিমের কাছে ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ বৈজ্ঞানিক জীবন বিধান। একমাত্র আল্লাহর ইবাদত করাই তার উদ্দেশ্য। ভিন্ন কোন পন্থা অনুসরণ করা ইসলামে অনুমোদনযোগ্য নয়। তেমনি ‘মেডিটেশন’ হিন্দু, বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারীদের কাছে উপাসনাতুল্য। এ বিষয়ে জানতে পড়তে পারেন ১. Meditation and Its Practices, লেখক : স্বামী অধীশ্বরানন্দ এবং The Science of Meditation, লেখক: রহিত মেহতা। মনে রাখবেন মুসলিমের জন্য সব সমস্যার সমাধান রয়েছে আল-কুরআনে। মনকে সুস্থ, সবল এবং শক্তিশালী রাখতে কুরআন অনুযায়ী জীবন পরিচালনার কোন বিকল্প নাই। তাছাড়া ‘আধ্যাত্মিকতা’ কিংবা ‘ধ্যান জ্ঞানের সাথে ইসলামের কোন সম্পর্ক নাই। ইসলাম থেকে বিচ্যুৎ জীবনধারার কারণেই মানসিক সমস্যার উদ্ভব হচ্ছে বলে ইসলামিক সাইকোথেরাপিস্টরা বিশ্বাস করেন। তাই জীবন সমস্যার সমাধানে কুরআনই আমাদের ভরসা হওয়া কর্তব্য। অন্য কোন পদ্ধতি নয়।
প্র: আমরা জানি, হোমিওপ্যাথিতে কোন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের ধারণা নেই। অথচ আপনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক তৈরির কথা বলছেন, কেন?
-ডা. আসাদউল্লাহ, ঢাকা
উ: যদি কোন চিকিৎসক বিএইচএমএস ডিগ্রী নেয়ার পর কোন বিষয়ে উচ্চতর শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ লাভ করে তবে তাকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের মর্যাদা দেয়া যায়। যেমন- কেউ যদি অর্গানন অব মেডিসিন কিংবা মেটিরিয়া মেডিকা, ইত্যাদি বিষয়ে উচ্চতর প্রশিক্ষণ লাভ করেন তবে তাকে আমরা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে স্বীকৃতি দিতে চাই। এ ধরনের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরাই উন্নত চিকিৎসা দিতে সক্ষম।
প্র: যারা গ্যারান্টি দিয়ে ক্যান্সার চিকিৎসার দাবি করছে, তাদের ব্যাপারে আপনার বক্তব্য কি?
-ডা. মহসীন আলী সরদার, ঢাকা
উ: প্রথমত: যিনি চিকিৎসক তিনি কোন রোগের চিকিৎসায় গ্যারান্টি দিতে পারেন না। সুতরাং গ্যারাণ্টি দিয়ে চিকিৎসার দাবি যারা করছে তারা চিকিৎসকের মর্যাদা পেতে পারেন না।
প্রঃ মহিলাদের মাসিক স্রাবের সময়ে ঔষধ প্রয়োগের বিধান কি?
-ডা. আমেনা বেগম, বরিশাল
উ: বিজ্ঞানী হানেমান মহিলাদের মাসিক স্রাব শুরুর পূর্বে এবং মাসিক স্রাব চলাকালীন সময়ে ক্রনিক রোগে ঔষধ প্রয়োগ করতে নিষেধ করেছেন। যদি প্রয়োজন হয় তাহলে স্রাব চলার চতুর্থ দিন থেকে ঔষধ প্রয়োগ করা যেতে পারে। কোন কোন ক্ষেত্রে যেমন অপরিপক্ব মাসিক, অত্যধিক রক্তস্রাব কিংবা দীর্ঘদিন স্রাব চলতে থাকলে চতুর্থ দিনে নাক্সভমিকা প্রয়োগ করতে হয়। এরপর আবার ৬ষ্ঠ দিন থেকে এন্টিসোরিক ঔষধ দিতে হবে (ক্রনিক ডিজিজেজ-পৃ: ২৩৫)।
প্রঃ প্রোস্টেট গ্লান্ড বৃদ্ধির ঔষধ জানতে চাই।
-ডা. সাহাবুদ্দিন, ঢাকা
উ: বয়স্কলোকের প্রোস্টেট গ্লান্ড বৃদ্ধিতে ব্যারাইটি কার্ব, ক্যালকেরিা কার্ব, কনিয়াম, পলিস, সেবাল সেরুলেটা, থুজা, ইত্যাদি থেকে বাছাই করে প্রয়োগ করুন।
প্র: পুরনো কান পাকায় হোমিওপ্যাথি ওষুধ কার্যকর কি?
-ডা. অসিম সরকার, ঢাকা
উ: হ্যাঁ, পুরনো কানপাকায় হোমিওপ্যাথি ওষুধ কার্যকর। কারণ নির্ণয় করে যথাযথভাবে বাছাই করে ওষুধ প্রয়োগ করলে উপকার পাওয়া যাবে। ওষুধ হিসেবে আর্সেনিক অ্যালবাম, ক্যালকার্ব, মার্ক সল, সরিনাম, পালস, সাইলিমিয়া ইত্যাদি থেকে বাছাই করে প্রয়োগ করুন।
প্র: বাচ্চাদের নাক দিয়ে রক্তপড়া। ওষুধ চাই।
-ডা. ফরিদ আহমদ, ঢাকা
উ: নাক দিয়ে রক্তপড়ার কারণ নির্ণয় করে চিকিৎসা দিতে হবে। আর্নিকা, বেলেডোনা, ফেরাম ফস ইত্যাদি থেকে বাছাই করে প্রয়োগ করুন।
প্র: হৃদরোগীদের ঘুমের সমস্যা। হোমিওপ্যাথি ওষুধ দেয়া যাবে কি?
-ডা. আনছার আলী, ঢাকা
উ: বিভিন্ন ধরনের হৃদরোগ রয়েছে। তাই অবস্থা বিবেচনা করে অরাম মেট, বোরাক্স, ডিজিটালিস, অপিয়াম, ইত্যাদি থেকে বাছাই করে প্রয়োগ করুন।
প্রশ্ন : আমার শিশুর বয়স ৩ মাস। মাথায় এক ধরনের আস্তরণ পড়ে। হোমিওপ্যাথির ওষুধ চাই।
-সালমা ইসলাম, ঢাকা
উত্তর : ছোট্ট শিশুদের মাথার এ ধরনের আস্তরণকে ক্রেডল ক্যাপ (Cradle Cpa) বলে। সাবান দিয়ে মাথা ধুয়ে দিনে একবার বা দু’বার অলিভ অয়েল লাগান। সাথে হোমিওপ্যাথি ওষুধ পালসেটিলা-৩০ শক্তি, মা সেবন করবেন দিনে একবার, তিন দিন পর্যন্ত।
প্রশ্ন : আমার স্ত্রীর পরপর ৩২ বার গর্ভপাত হয়েছে। এখন সে কি গর্ভধারণ করতে পারবে?
-তামিন হাওলাদার, বরিশাল
উত্তর : গর্ভপাতের কারণ চিহ্নিত করে চিকিৎসা দিলে আপনার স্ত্রী পুনরায় গর্ভধারণ করতে পারবে। একজন বিজ্ঞ হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক আপনাকে সহযোগিতা করতে পারবেন।
প্রশ্ন : আমার বীর্যে শুক্রাণুর পরিমাণ প্রয়োজনের চেয়ে কম। আমার বিয়ে ৫ বছর। হোমিওপ্যাথিতে আমার চিকিৎসা সম্ভব কি?
-সাইদুর রহমান, যশোর।
উত্তর : জি, ভাই, হোমিওপ্যাথি চিকিৎসায় আপনি ভালো ফল পেতে পারেন।
প্রশ্ন : কম্পিউটারে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা কি সম্ভব? 
- ডা: আমিন, ঢাকা
উত্তর : চিকিৎসক তার যোগ্যতা, দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা দিয়ে রোগীর চিকিৎসা করবেন। কম্পিউটার প্রযুক্তি এখানে লোক দেখানো মাধ্যম। রোগ নির্ণয় কিংবা ওষুধ নির্বাচন চিকিৎসকের ব্যক্তিগত দক্ষতা দ্বারা করতে হয়।
প্রশ্ন : আপনাদের প্রকাশিত ‘হোমিওপ্যাথি’ বুলেটিন কি নিয়মিত প্রকাশিত হয়?
- ডা: সাইদুর রহমান, চট্টগ্রাম
উত্তর : হোমিওপ্যাথিক এডুকেশন সোসাইটি কর্তৃক ‘হোমিওপ্যাথি’ বুলেটিন নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে। উন্নতমানের এ বুলেটিন চিকিৎসকদের জন্য পড়া খুবই জরুরি। বুলেটিনটি বিনামূল্যে সরবরাহ করা হয়। কোনো চিকিৎসক কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে এটি পেতে চাইলে কুরিয়ার চার্জসহ ৩৫ টাকা বিকাশ (০১৭৪৭১২৯৫৪৭) করতে পারেন প্রতি সংখ্যার জন্য।
প্রশ্ন : অক্টোবর মাস ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস। আপনাদের কর্মসূচি জানতে চাই।
-ডা: অলিউর রহমান, ঢাকা
উত্তর : বিস্তারিত কর্মসূচি জানতে হলে এসএমএস করুক ০১৫৫৬৬৩৯৬৪ নম্বরে।
প্রশ্ন : হোমিওপ্যাথি ওষুধ নির্বাচনে রেপার্টরির ভূমিকা কী?
-ডা: আরিফ হাসান, যশোর
উত্তর: রেপার্টরি হচ্ছে লক্ষণের অভিধান। তাই অভিধান হিসেবেই এর ব্যবহার করতে হবে। গাণিতিক যোগফল দ্বারা লক্ষণ সামগ্রিকতা বিবেচনা করা ঠিক নয়। রোগীর বিশেষ বৈশিষ্ট্যসূচক লক্ষণ দ্বারা ওষুধ নির্বাচন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে চিকিৎসকের জ্ঞান এবং দক্ষতার বিকল্প নেই।
প্রশ্ন : হোমিওপ্যাথিক ক্যান্সার সোসাইটি কিভাবে রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে থাকে?
-সালমা, ঢাকা
উত্তর: বাংলাদেশ হোমিপ্যাথিক ক্যান্সার সোসাইটি তার চিকিৎসাকেন্দ্রে নির্দিষ্ট রেজিঃ ফি গ্রহণ করে চিকিৎসা দেয়। প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সমন্বয়ে বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা দেয়া হয়। গরিব দুস্থ রোগীদের জন্য বিশেষ সুবিধা দেয়া হয়। সুষ্ঠু এবং প্রাতিষ্ঠানিক চিকিৎসা প্রদানের উদ্দেশ্যে সোসাইটি একটি হাসপাতাল প্রকল্প পরিচালনা করছে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করতে পারেন : রোড-১১, বাড়ি-৪৮, নিকুঞ্জ-২, খিলক্ষেত, ঢাকা। মোবাইল : ০১৭১২৮১৭১৪৪।
উত্তরদাতা : নির্বাহী পরিচালক, আইএইচএমআর। ফোন: ০১৭৪৭১২৯৫৪৭

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ