ঢাকা, মঙ্গলবার 3 October 2017, ১৮ আশ্বিন ১৪২8, ১২ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আশুরা মুসলমানদের ত্যাগের মাধ্যমে দ্বীন প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে টিকে থাকার শিক্ষা দেয়

সিলেট ব্যুরো : বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী সিলেট মহানগরীর সেক্রেটারি মাওলানা সোহেল আহমদ বলেছেন- ১০ই মহররম পবিত্র আশুরা মুসলিম মিল্লাতের সর্ববৃহৎ  শোক দিবস।  বেদনা বিদুর দিনটি মুসলিম জাহানকে বারবার শোকাহত করে। সেদিন কারবালার ময়দানে ইয়াজিদ বাহিনীর বর্বরতা ও মানবতার মুক্তিদুত মহানবী (সা:) এর দৌহিত্র ইমাম হোসেন-এর শাহাদাতের ইতিহাস মুসলমানদের জন্য ত্যাগের এক অনন্য নজির স্থাপন করে। পবিত্র আশুরা আমাদের শিক্ষা দেয় ইসলাম ফুল বিছানো পথে আসেনি। ইসলাম এসেছে কাঁটা বিছানো পথে। যারা যুগে যুগে ইসলামকে প্রতিষ্ঠায় কাজ করেছেন তাদের উপরে নেমেছে যুলুম আর নির্যাতন। বাংলাদেশেও ইসলাম-ইসলামী নেতৃত্বে বিরুদ্ধে সুগভীর ষড়যন্ত্র চলছে। যারা সত্যিকারের ইসলামের পথে থাকবে তাদের উপর জুলুম-পীড়ন চলবেই। পবিত্র আশুরা প্রতিটি মুসলমানকে ত্যাগের মাধ্যমে দ্বীন প্রতিষ্ঠার কঠিন ময়দানে ঠিকে থাকার শিক্ষা দেয়।
তিনি গতকাল রোববার পবিত্র আশুরা উপলক্ষে সিলেট মহানগর জামায়াত আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- মহানগর জামায়াত নেতা জাহেদুর রহমান চৌধুরী, ক্বারী আলাউদ্দিন, মাহমুদুর রহমান দিলোয়ার, এডভোকেট আজিম উদ্দিন ও মাওলানা আব্দুল লতিফ প্রমুখ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, ইনসাফ ভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণে যারা কাজ করবে তাদের জন্য আশুরার ত্যাগ প্রেরণা দিয়ে যায়। বর্তমানেও যারা সারা দুনিয়ায় ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে তাদের উপরেও নির্যাতনের স্টিম রোলার চালানো হচ্ছে। জেল জুলুম নির্যাতন থেকে ফাঁসির মঞ্চে যেতে হয়েছে ইসলামী আন্দোলনের শীর্ষ নেতাদের। কোন অপরাধ নয়, শুধুমাত্র আল্লাহর জমিনে আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠায় নেতৃত্ব দেয়ায় নিরপরাধ শীর্ষ জামায়াত নেতৃবৃন্দকে বিচারের নামে অবিচার চালিয়ে শহীদ করা হয়েছে। কোন ষড়যন্ত্রই বাংলাদেশে ইসলামের অগ্রযাত্রা ঠেকিয়ে রাখতে পারবেনা। পবিত্র আশুরার সুমহান ত্যাগের শিক্ষা নিয়ে ইমাম হোসেন-এর অনুসারীরা ইসলামী আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ