ঢাকা, বুধবার 4 October 2017, ১৯ আশ্বিন ১৪২8, ১৩ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দ্বিতীয় টেস্টের পিচ নিয়ে ভাবনা

স্পোর্টস রিপোর্টার : পচেফস্ট্রুমে প্রথম টেস্টের পিচ নিয়ে ক্ষোভ ছিল স্বাগতিক অধিনায়কের। কারণ যেভাবে চেয়েছিলেন, সেভাবে কোনও সহায়তাই পাননি পিচ থেকে। তারপরেও তাদের পেসারদের দাপট ছিল পচেফস্ট্রুমে। স্বাগতিকদের জয়টাও ছিল ৩৩৩ রানের। ম্যাচ শেষেও আলোচানার বিষয় হচ্ছে এ ধরনের ফ্লাট উইকেটে মুশফিকুর রহিম কেন ব্যাটিং নেননি। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা দাঁড়াতেই পারেনি প্রোটিয়া এই পেস আক্রমণের সামনে। প্রথম টেস্ট শেষে ভাবনা দ্বিতীয় টেস্টে পিচের অবস্থা নিয়ে। প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিসের কথাতেই পাওয়া গেছে এমন আভাস, আশা করছি ব্লুমফন্টেইনের পিচে কিছুটা ঘাস থাকবে। থাকবে কিছুটা বাউন্স। প্রথম টেস্টের পিচে কী চেয়েছিলেন প্রোটিয়া অধিনায়ক? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, কন্ডিশন যেটা ছিল সেটাতে সত্যিই আমি হতাশ হয়েছি। বাউন্স ও গতি চাইলেও সেটা পাইনি। তারপরেও এই পিচে বোলারদের পারফরম্যান্স প্রশংসাযোগ্য। পচেফস্ট্রুমে পিচ স্পিন করেনি সেভাবে। বাংলাদেশের মতো দলের বিপক্ষে সেটা সন্তোষজনক হিসেবেই দেখেছেন তিনি, গ্রাউন্ডসম্যানরা আমাকে বলেছিল যে তিন থেকে চার দিন বল স্পিন করবে না। আসলেই উইকেটে সেভাবে স্পিন ধরেনি। এটা সন্তোষজনক ছিল। সাধারণত পচেফস্ট্রুমের পিচে থাকে গতি ও বাউন্স। কিন্তু মৌসুমের শুরুর দিকে হওয়াতে এবং বৃষ্টি সেভাবে না হওয়াতে পিচের আচরণ ছিল ভিন্ন। আর সেই আচরণের সঙ্গেই ঘরের মাঠের সঙ্গে মিল পাচ্ছিল বাংলাদেশ। তারপরেও এমন ফ্ল্যাট পিচে কোনও প্রতিরোধই দিতে পারলো না দ্বিতীয় ইনিংসে। ৩২.৪ ওভারে মাত্র ৯০ রানেই গুটিয়ে গেছে সফরকারীরা। শুক্রবার  দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগে গতকালই বাংলাদেশ স্কোয়াড গতকালই ব্লুমফন্টেইন রওয়ানা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ