ঢাকা, বুধবার 4 October 2017, ১৯ আশ্বিন ১৪২8, ১৩ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রোহিঙ্গা ইস্যুতে হেফাজতের মহাসমাবেশ শুক্রবার

স্টাফ রিপোর্টার: মিয়ানমারের আরাকানে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর গণহত্যা, নির্যাতনের প্রতিবাদে ও বাংলাদেশে আশ্রিত  রোহিঙ্গাদের জান-মালের নিরাপত্তা প্রদান করে আরাকানে ফেরত নেয়ার দাবিতে মহাসমাবেশ করবে হেফাজতে ইসলাম।
আগামী শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক লালদীঘি ময়দানে এ মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর কমিটি থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
বিবৃতিতে মহাসমাবেশ সফল করার জন্য ওলামায়ে কেরাম ও তৌহিদী জনতার প্রতি আহবান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী।
আবুল হাসানাত আমিনী বলেছেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর সরকারি বাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধরা যে মর্মান্তিক গণহত্যা চালিয়েছে, পৃথিবীর ইতিহাসে অতীতের সকল গণহত্যাকে হার মানিয়েছে। এই জঘণ্য গণহত্যা ও পাশবিক নির্যাতনের প্রতিবাদ করা দল-মত নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষের নৈতিক দায়িত্ব।
তিনি বলেন, নিজ দেশে রোহিঙ্গা সংখ্যালঘু মুসলিমরা আজ অধিকারহারা। ওদের নাগরিকত্ব নেই। ধর্ম-কর্ম ও চলাফেরার স্বাধীনতা নেই। নিজের আবাসভূমিতে বর্বর নির্যাতনের শিকার হয়ে আজ লাখ লাখ রোহিঙ্গা ঘর-বাড়ি ছেড়ে জীবন বাঁচাতে পালিয়ে আসছে বাংলাদেশে। এই পরিস্থিতিতে জাতিসংঘ ও ওআইসিসহ বিশ্বনেতাদেরকে মিয়ানমার সরকার ও সেনাবাহিনীর বর্বরতার বিরুদ্ধে কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে। রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাসমূহকে মানবতার পক্ষে জোরালো ভূমিকা পালন করতে হবে।
মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অফিসের মন্ত্রী টিন্ট সোয়ে’র বাংলাদেশ সফর সম্পর্কে তিনি বলেন, মিয়ানমারের মন্ত্রী বাংলাদেশ সফরে এসে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। আমি মনে করি, আন্তর্জাতিক চাপের মুখে এটি মিয়ানমারের একটি কূটচাল। সরকারকে বোকা বানিয়ে ফায়দা হাসিল করতে চাইছে মিয়ানমার। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের কঠোর সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ