ঢাকা, বুধবার 4 October 2017, ১৯ আশ্বিন ১৪২8, ১৩ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ডুমুরিয়ায় পুলিশ সদস্য’র বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ

খুলনা অফিস : খুলনার ডুমুরিয়ায় পুলিশে চাকরিরত এক যুবকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়ন ও প্রতারণার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি এক যুবতীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমজ সম্পর্কের চার বছর পর এখন তাকে প্রত্যাখ্যান করছেন বলে অভিযোগ এনে যুবতীর মা বাদি হয়ে ডুমুরিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ডুমুরিয়া উপজেলার শোভনা ইউনিয়নের উত্তর চিংড়া গ্রামের পরিমল বিশ্বাস সরো’র ছেলে রাজকুমার বিশ্বাস (২১) একই উপজেলার গোলনা গ্রামের অধীর বিশ্বাসের কন্যার (১৭) সাথে প্রায় চার বছর আগে প্রেমজ সম্পর্ক করেন। যা উভয় পরিবারের মধ্যে জানাজানিও হয় এবং নয়া আত্মীয়তায় রূপ নেয়। ফলে ওই যুবতী সরল বিশ্বাসে তার সাথে দৈহিক সম্পর্কেও জড়িয়ে পড়েন। এরই মধ্যে প্রেমিক রাজকুমার বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে চাকরির চেষ্টা করেন। টাকার প্রয়োজন হলে দুই পরিবারের মধ্যে আলোচনা শেষে দুই লাখ চল্লিশ হাজার টাকাও দেয় মেয়েটির মা শেফালী রাণি বিশ্বাস। এভাবে চার বছর অতিবাহিত হওয়ার পর সম্প্রতি পূজার ছুটিতে রাজকুমার বিশ্বাস বাড়িতে আসেন এবং গত ২৭ সেপ্টেম্বর রাতে তাদের সাক্ষাত হয়। রাজকুমার প্রেমজ সম্পর্ক অস্বীকার করে তাকে নানা ধরনের হুমকি-ধামকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। ঘটনাটি নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে বৈঠক হলে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করা হয়। পরে মেয়েটির মা শেফালী রাণি বাদি হয়ে ২৮ সেপ্টেম্বর ডুমুরিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
বাদি শেফালী রাণি বিশ্বাস বলেন, ওদের সম্পর্কের বিষয়টি আমি জেনেই রাজকুমার ও তার অভিভাবকদের অবহিত করি। তখন তাদের আগ্রহ থাকায় আমরাও রাজি হয়েছিলাম। এখন দেখছি প্রতারণা শুরু করেছে।
রাজকুমারের মেঝ ভাই প্রেম কুমার বিশ্বাস বলেন, আমার ছোট ভাই রাজকুমার প্রচন্ড অসুস্থ। তার সাথে কথা বলা যাবে না। আর এই মেয়েলি ঘটনা নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। তবে এখনও মীমাংসা হয়নি।
ডুমুরিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আব্দুল খালেক বলেন, একটা অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ