ঢাকা, বৃহস্পতিবার 5 October 2017, ২০ আশ্বিন ১৪২8, ১৪ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নরসিংদীতে এক নারীকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে তিনজনের ফাঁসির আদেশ

নরসিংদী সংবাদদাতা : নরসিংদীর শিবপুরে ২০১৫ সালে এক নারীকে গণধর্ষণ ও হত্যার দায়ে তিনজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত। সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা হলো সুলতান মিয়া ওরফে জামাই সুলতান (৩৫), শফিকুল ইসলাম শরীফ (৩২) ও ওসমান গণি (৩৪)। আসামী সুলতান মিয়া কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর থানার গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত হোসেন আলী বেপারীর ছেলে, শফিকুল ইসলাম একই উপজেলার মধ্যপানান গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে এবং ওসমান গণি নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার জয়নগর গ্রামের মৃত আ: মোতালিবের ছেলে। এর মধ্যে তিন জনকেই ২০১ ধারায় ৭ বছরে করে সশ্রম কারাদন্ড, সুলতানকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক বছরের কারাদন্ডসহ সকলকে ১০ হাজার টাকা অর্থদ-, অনাদায়ে আরো তিন মাস করে কারাদণ্ডে  দন্ডিত করা হয়। বুধবার বিকেলে নরসিংদীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ বিচারক মো: গোলাম রাব্বানী এ  আদেশ দেন।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২রা ফেব্রুয়ারি তৎকালীন শিবপুর থানার এসআই মিজানুর রহমান কলাগাছিয়া নদীর তীর থেকে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার করে। দীর্ঘ তদন্তের পর উল্লেখিত ৩ আসামীকে গ্রেফতার করে। তাদের স্বীকারোক্তিতে নিহত মহিলার পরিচয় উদঘাটন করা হয়। নিহত মাহমুদা আক্তার (২৮) ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল থানার কিসমত আহমদাবাদ (চানপুর) গ্রামের মৃত বিল্লাল হোসেনের মেয়ে।
মামলায় ২৪ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্য প্রমাণে সন্দেহাতিতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় উল্লেখিত আসামীদের ফাঁসির আদেশ দেন। মামলাটির বাদি পক্ষে ছিলেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল নরসিংদীর স্পেশাল  পিপি এডঃ রীনা দেবনাথ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ