ঢাকা, বৃহস্পতিবার 5 October 2017, ২০ আশ্বিন ১৪২8, ১৪ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মুরাদনগরে ভাতিজা হত্যার দায়ে চাচা-চাচী কারাগারে

মো. আবু ইউসুফ, মুরাদনগর (কুমিল্লা) থেকে : কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন আকবপুর ইউনিয়নের বলিঘর গ্রামে ভাতিজা কাউছার মিয়াকে (৩৮) পিটিয়ে নির্মম ভাবে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উক্ত ঘটনায় আটক চাচা রুক্কু মিয়া (৫৫) ও চাচী ফিরোজা বেগমকে (৫১) বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের মা পিয়ারা বেগম বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।
জানা যায়, বাঙ্গরা বাজার থানাধীন আকবপুর ইউনিয়নের বলিঘর গ্রামের মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে রুক্কু মিয়ার সাথে নগদ টাকা ও জমি সংক্রান্ত বিষয়াদি নিয়ে বড় ভাই মৃত দারু মিয়ার ছেলে কাউছার মিয়ার দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ চলে আসছে। উক্ত দ্বন্দের জের ধরে কাউছার মিয়াকে মঙ্গলবার সকাল অনুমান ৯টায় রুক্কু মিয়ার ঘরে ডেকে নেয়। তখন রুক্কু মিয়া, তার স্ত্রী ফিরোজা বেগম, ছেলে জুয়েল মিয়া, মেয়ে সাবিনা ইয়াছমিন, জেসমিন আক্তার ও তাছলিমা আক্তার পরস্পর যোগসাজসে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে কাউছার মিয়ার হাত-পা বেঁধে, মুখে কাপড় গুঁেজ ক্ষুন্তি দিয়ে পিটিয়ে দু’পা ভেঙ্গে ফেলাসহ সারা শরীর রক্তাক্ত জখম করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য কুমেক হাসপাতালে পাঠায়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে কাউছার মিয়া বিকাল অনুমান ৪টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। ঘটনার পরপরই পালিয়ে যাওয়ার সময় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী উক্ত ঘটনায় জড়িত চাচা রুক্কু মিয়া ও চাচী ফিরোজা বেগমকে আটক করে রাখে। পরে পুলিশ এসে উত্তেজিত জনতার কবল থেকে আসামীদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ভাতিজা কাউছার মিয়াকে হত্যা করার কথা অপটকে স্বীকার করে। বুধবার দুপুরে কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ বিচারক তাদেরকে কুমিল্লার কেন্দ্রিয় কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। এ দিকে কুমেক হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে বুধবার বিকেলে কাউছার মিয়ার লাশ গ্রামের বাড়িতে আনা হলে স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ ভারি হয়ে ওঠে।
অপর দিকে নিহত কাউছার মিয়ার বোন শিরিনা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, আসামীরা পরস্পর যোগসাজসে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আমার ভাইকে নির্মম ভাবে হত্যা করেছে। আমি আমার ভাই হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ পাঠিয়ে ভিকটিমকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করি। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কাউছার মিয়া মারা যায়। একই সাথে পালিয়ে যাওয়ার সময় জড়িত মূল দু’আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠাই। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ