ঢাকা, শনিবার 7 October 2017, ২২ আশ্বিন ১৪২8, ১৬ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বড় সংগ্রহের পথে দক্ষিণ আফ্রিকা

রফিকুল ইসলাম মিঞা : প্রথম টেস্টের মতো দ্বিতীয় টেস্টেও দক্ষিণ আফ্রিকার দেয়া বিশাল রানের সামনে পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ। গতকাল আগে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম দিনেই তিন উইকেট হারিয়ে করেছে ৪২৮ রানের বিশাল স্কোর। দু’ ওপেনার এলগার আর মার্করামের সেঞ্চুরিতেই প্রথম দিনে দলটি বড় স্কোর করার সুযোগ পায়। দলের হয়ে চতুর্থ উইকেট জুটিতে হাশিম আমলা ৮৯ রানে আর অধিনায়ক প্লেসিস ৬২ রানে ব্যাটিংয়ে থাকায় প্রথম ইনিংসে বিশাল স্কোর গড়ার পথে স্বাগতিকরা। দু’ ওপেনারের পর সেঞ্চুরির পথে আছেন হাশিম আমলাও। সেঞ্চুরি থেকে তিনি ১১ রান দূরে আছেন। 

গতকাল প্রথম টেস্টের মতো টস জিতে আগে ফিল্ডিং নেন মুশফিকুর রহিম। ফলে আগের টেস্টের মতো প্রথমে ব্যাট করার সুযোগ পেয়ে শক্তহাতে দাঁড়িয়ে যান দুই ওপেনার ডিন এলগার ও এইডেন মারক্রাম। ওপেনিংয়ে ব্যাট করতে নামা এই দুই ব্যাটসম্যানকে ঠেকাতে প্রথম থেকেই প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান, শুভাশীষ রায় ও রুবেল হোসেন। সঙ্গে স্পিনার তাইজুলও ছিলেন। কিন্তু দ্রুত উইকেট নিতে ব্যর্থ ছিলেন এই চার বোলার। ফলে এই দুই ওপেনার সেঞ্চুরি করে দলকে বিশাল স্কোরের পথে নিয়ে যায়। ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাট করে এই দুই ব্যাটসম্যান প্রথম থেকেই দলের স্কোরটা বাড়িয়ে নেয়। আর এই জুটি ভাংগার আগেই দক্ষিণ আফ্রিকা পৌঁছে যায় ২৪৩ রানে। প্রথম দিকে শুভাশীষ আর মোস্তাফিজের শর্ট বলে খেলতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছিল ডিন এলগারের। তবে সময়ের সাথে নিজেকে মানিয়ে নিয়ে তুলে নিয়েছেন দশম সেঞ্চুরি। আর আউট হওয়ার আগে করেছেন সেঞ্চুরিসহ ১১৩ রান। দলীয় ২৪৩ রানে এলগারে বিদায়ে ভাংগে এই জুটি। ৫৪তম ওভারে শুভাশীষের শর্ট বলে পুল করতে গিয়েছিলেন। ঠিকমতো না হওয়ায় মোস্তাফিজের হাতে তালুবন্দী হন এলগার। আর বিদায় নেন ১১৩ রানে। এলগারের ১৫২ বলের ইনিংসে ছিল ১৭টি চার। এলগার আউট হলেও আরেক ওপেনার এইডেন মারক্রাম দলকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে সফল হন। কারণ আউট হওয়ার আগে তিনি সেঞ্চুরিসহ করেন ১৪৩ রান। ব্যক্তিগত ১৪৩ রানে তাকে বোল্ড করে আউট করেন পেসার রুবেল হোসেন। তার ১৮৬ বলের ইনিংসে ছিল ২২টি চার। আগের ম্যাচে মারক্রাম অভিষেক টেস্ট সেঞ্চুরি পাননি। তবে এবার আর সেই ভুলটা করেননি তিনি। তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। ফলে দলীয় ২৭৬ রানে বাংলাদেশ তুলে নেন দ্বিতীয় উইকেট। ব্যাট করতে নেমে গতকাল দলের হয়ে ভালো করতে পারেননি তেম্বা বাভুমা। আউট হয়েছেন মাত্র ৭ রানে। তাকেও আউট করেন শুভাশীষ। দলীয় ২৮৮ রানে উইকেটের পেছনে শুভাশীষের বলে লিটন দাসের গ্লাভসবন্দী হন বাভুমা। দলীয় ২৮৮ রানে তৃতীয় উইকেট হারানো দলকে এগিয়ে নিতে ব্যাট করছেন হাশিম আমলা ও ফাফ ডু প্লেসিস। দলের পক্ষে আমলা ৮৯ রানে আর প্লেসিস ৬২ রানে ব্যাটিংয়ে ছিলেন। এই জুটি ব্যাটিংয়ে থেকে দলকে ৪২৮ রানে নিয়ে প্রথম দিন শেষ করেছেন।

প্রথম টেস্টে ৩৩৩ রানের বিশাল ব্যবধানে হারার পর দ্বিতীয় টেস্টে চারটি পরিবর্তন নিয়ে গতকাল ব্রুমফন্টেইনে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের মাঠে নামে বাংলাদেশ। প্রথম টেস্টের চার বোলারদের মধ্যে তিনজনকে বাদ পড়তে হয়েছে। মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ ও শফিউল ইসলাম দলে জায়গা ধরে রাখতে পারেননি। তাদের বদলে একাদশে ঢুকেছেন তাইজুল ইসলাম, রুবেল হোসেন ও শুভাশীষ। এছাড়া ইনজুরিতে দ্বিতীয় টেস্টে নেই তামিম ইকবাল। তামিমের জায়গায় এসেছেন সৌম্য সরকার। প্রথম টেস্টের মতো দ্বিতীয় টেস্টেও টস জিতে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের আগে ফিল্ডিং নেয়ার কারণটা বুঝতে পারছে না ক্রিকেট ভক্তরা। হয়তো এর কারণটা মুশফিকই ভালো দিতে পারবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ