ঢাকা, শনিবার 7 October 2017, ২২ আশ্বিন ১৪২8, ১৬ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় স্বামীর অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবল স্ত্রী ও তার প্রেমিক এএসআইকে শাস্তিমূলক বদলি

খুলনা অফিস : খুলনার সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় কর্মরত মহিলা পুলিশ কনস্টেবল রাজিয়া সুলতানা ও এএসআই মো. মাহামুদলকে আপত্তিকর অবস্থায় পাওয়া পর শাস্তিমূলক বদলি করা হয়েছে। গত রোববার গভীর রাতে রাজিয়ার স্বামী রবিউল ইসলাম নিজ বাসায় তাদের হাতেনাতে ধরার পর লিখিত অভিযোগে তাদেরকে শাস্তিমূলক বদলি করা হয়।

সোনাডাঙ্গা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মমতাজুল হক জানান, পুলিশ কনস্টেবল রাজিয়া সুলতানাকে (কং নং-৬৩৮৮) লবণচরা থানায় এবং এএসআই মো. মাহামুদুল হাসানকে (কং নং-৪৪৩০) রূপসা পুলিশ বক্সে বদলি করা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়টি ডিপার্টমেন্টালভাবে তদন্তাধীন। রাজিয়া ও তার স্বামীর সাথে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল বলে তিনি জানান।

রাজিয়া সুলতানার স্বামী খুলনা ওয়াসা’র কর্মচারী মো. রবিউল ইসলাম খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, নগরীর সোনাডাঙ্গা মডেল থানাধিন বৌ-বাজার সংলগ্ন এলাকায় ১৫৫/৫ নম্বর হোল্ডিংয়ের সৈয়দ মঞ্জিলের নিচতলা বাসায় ভাড়া থাকেন রবিউল ও তার স্ত্রী পুলিশ কনস্টেবল রাজিয়া সুলতানা। আড়াই বছর বয়সের তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

গত ১ অক্টোবর রাত ৯টার দিকে রবিউল ওয়াসার পানির পাম্পের ডিউটিতে বের হন। এরপর রাত ২টার দিকে তিনি বাসায় ফিরে স্ত্রী রাজিয়াকে দরজা খুলতে ডাকাডাকি করেন। রাজিয়া দরজা খুলতে রাজি হচ্ছিল না। একপর্যায়ে অতিরিক্ত ডাকাডাকির পর দরজা খুলে দেন।

বাসায় ঢুকে রবিউল তাদের শোবার ঘরে তালা মারা দেখতে পান। শোবার ঘরের তালা খুলে এএসআই হাসানকে খাটের নিচে দেখতে পেয়ে তিনি চিৎকার করেন। হাসান বের হয়ে তার গলা ও মুখ চেপে ধরে। এ সময় তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এক পর্যায়ে এলাকাবাসীর চিৎকার টের পেয়ে হাসান খালি পায়ে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী হাসানের জুতা প্রমাণের জন্য তাদের কাছে রেখেছেন। কিছুক্ষণ পরেই সোনাডাঙ্গা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। এলাকাবাসী জানায়, প্রায় সময় এএসআই হাসান রাজিয়াকে মোটরসাইকেলে করে বাসার সামনে নামিয়ে দিয়ে যেত। স্বামীর অনুপস্থিতিতে তারা দু’জন সেদিন অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়েছিলো। শিশু কন্যা সন্তান নিয়ে এখন রবিউল ওই বাসায় রয়েছেন। তবে পুলিশের সহায়তায় পুলিশ থাকবে এমনই আশঙ্কায় ভুগছেন রবিউল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ