ঢাকা, সোমবার 9 October 2017, ২৪ আশ্বিন ১৪২8, ১৮ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় কাঁচা মরিচের ডাবল সেঞ্চুরি

খুলনা অফিস : কাঁচা মরিচের ঝাঁজে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে খুলনাঞ্চলের মানুষ। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে ১০০-১২০ টাকার কাঁচা মরিচ এখন বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়।
বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কেজি প্রতি কাঁচা মরিচের দাম ১৯০ থেকে ২০০ টাকা। একশ’ গ্রাম মরিচের দাম ১৯-২০ টাকা। যেখানে গত সপ্তাহেও একশ’ গ্রাম কাঁচা মরিচ বিক্রি হয়েছে ১০ থেকে ১২ টাকায়।
নগরীর শামসুর রহমান রোডে বাজার করতে আসা গৃহিনী আঞ্জুমান আরা মুক্তা বলেন, বাজারে কোনো কিছুরই দাম কম না। এখন কাঁচা মরিচের দিকে তো তাকানোই যায় না। কিন্তু বাসায় নানা পদের রান্নায় কাঁচা মরিচ লাগেই। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমাদের তো আয় বাড়েনি। জিনিস পত্রের দাম বাড়ছে। এতে সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। তারপরও কিছু করার নাই।
ওই বাজারের কাঁচা সবজি বিক্রেতা আব্দুস সাত্তার জানান, পাইকারি বাজারে বাড়লে তার প্রভাব খুচরা বাজারেও পরে। বর্তমানে দ্বিগুণের বেশি দাম দিয়ে পাইকারি বাজার থেকে মরিচ আনতে হচ্ছে। বাজারের অপর বিক্রেতা আহম্মদ আলী সোনা বলেন, কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিক্রি কমেছে। এখন ২৫০ গ্রাম মরিচ ৫০ টাকার (কেজি ২০০ টাকা) নিচে বিক্রি করলে লোকসান দিতে হবে। পাইকারি বাজার থেকে এক পাল্লা (৫ কেজি) মরিচ ৮৫০ টাকায় কিনেছি। এরপর যাতায়াত ভাড়া আছে। কেনা দামই পড়েছে কেজি ১৭০ টাকা। অন্যান্য খরচ যোগ করলে এর চেয়ে কম দামে বিক্রি করা সম্ভব নয়।
পাইকারি আড়তে পাঁচ কেজি কাঁচা মরিচ এক হাজার থেকে এক হাজার ১৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। তবে বৃহস্পতিবার থেকে কিছুটা কমে ৮৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে বলে জানান এক ব্যবসায়ী।
আড়তদার করিম আলী বলেন, এখনও বাজারে তেমন ভাল মরিচ নেই। অন্যদিকে দেশে বন্যার কারণে মরিচ উৎপাদন আগেই কমেছে। ফলে বাজারে দেশি মরিচের সরবরাহ কম। এ কারণে কাঁচা মরিচের দাম বেড়েছে। তবে আমদানি করা মরিচের সরবরাহ বৃদ্ধি পেলে দাম আবারও কমবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ