ঢাকা, সোমবার 9 October 2017, ২৪ আশ্বিন ১৪২8, ১৮ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আশুগঞ্জে দু‘গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৩০ বাড়ীঘর ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : পূর্ব বিরোধের জের ধরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামে শনিবার দুপুরে প্রতিপক্ষের লোকজনের হামলায় নারী-পুরুষসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত রোকেয়া বেগম ও জায়েদা বেগম নামে ২ জন নারীসহ ৫জনের অবস্থা আশংকাজনক। আহতদেরকে জেলা সদর হাসপাতাল ও স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।এসময় দাঙ্গাবাজরা অন্তত ১০/১২টি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট এবং ২ টি বসতঘরে অগ্নিসংযোগ করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকায় দু‘গ্রুপের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শি সূত্রে জানা যায়, একটি পরকিয়া প্রেমের ঘটনার জের ধরে উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের নজর হাটির মনু মিয়া মেম্বারের বাড়ী ও মগল মিয়ার বাড়ীর লোকজনের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলছিল। এরই ধারাবাহিকতায় ঈদুল আজহার তিনদিন পর ওই দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
এসময় সংঘর্ষ চলাকালে মগল মিয়ার পক্ষের হাসান সহ কয়েকজনকে পুলিশ আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দেওয়া হয়।
সাজাভোগ করে মুক্ত হয়ে এসে শনিবার দুপুর ১টায় হাসানের নেতৃত্বে মগল মিয়ার বাড়ীর অর্ধ সহস্রাধীক লোক মনু মিয়া মেম্বারের পক্ষের বাড়িঘরে অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা মনু মেম্বারের বাড়ীর ১০/১২টি ঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করে এবং ২টি ঘরে অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে দেয়।এসময় উভয় পক্ষের সহস্রাধীক লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের নারী-পুরুষসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়। আহতদেরকে জেলা সদর হাসপাতাল ও স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।পরে খবর পেয়ে আশুগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে দুপুর ৩টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
এব্যাপারে মনু মেম্বারের বাড়ীর মোঃ শফিক মিয়া জানান তাদের একটি নারী নির্যাতন মামলায় গ্রেফতার এড়ানোর জন্য আমরা বাড়ীতে না থাকার সুযোগে মগল মিয়া,ফজল মিয়া,নুরু হাজী ও হাসানের নেতৃত্বে অর্ধ সহস্রাধীক লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অতর্কিত ভাবে আমাদের বাড়িঘরে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে। এসময় তারা ১০/১৫টি ঘর ভাংচুর ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে মগল মিয়া জানান আমারদের একটি নারী নির্যাতন মামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে মনু মেম্বারের বাড়ীর লোকজনই প্রথম আমাদের উপর হামলা করেছে।
এব্যাপারে আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. বদরুল আলম তালুকদার জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ