ঢাকা, সোমবার 9 October 2017, ২৪ আশ্বিন ১৪২8, ১৮ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

১০ গ্রামের দুঃখ চন্ডিপুর খালের সেতু

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) সংবাদদাতা: দুই উপজেলার সংযোগ সেতু সংস্কারের অভাবে ৬ বছর ধরে জোড়াতালি দিয়ে স্থানীয়রা পারাপারের ব্যবস্থা করলেও কর্তৃপক্ষের কোন নজর নেই সেতুটি পুনঃনির্মাণের। উপজেলার পার্শ্ববর্তী বলেশ্বর নদী সংলগ্ন চাড়াখালী-চন্ডিপুর খালের জনগুরুত্বপূর্ণ সেতুটি ২০১০ সালে বিধ্বস্ত হয়ে চলাচলের অযোগ্য হয়ে যায়। এই সেতু দিয়ে প্রতিদিন চিংড়াখালী ইউনিয়নের ৬ গ্রাম ও পত্তাশী, পাড়েরহাট ইউনিয়নের ৪ গ্রামের বাসিন্দাদের পার হতে হয়। স্কুল, কলেজ সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের উপজেলা সদরে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম এই সেতুটি। অথচ ৬ বছর ধরে সেতুটি জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে থাকলেও বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসছে না। প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ১০ গ্রামের মানুষ এ সেতুটি দিয়ে পারাপার হচ্ছে। অথচ কর্তৃপক্ষ সেতুটি সংস্কার বা পুনঃনির্মাণ করছে না। বর্তমানে সেতুটির উত্তর প্রাপ্ত একেবারে দেবে যাওয়ায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সর্বসাধারণকে পারাপার হতে হচ্ছে। চন্ডিপুর গ্রামের ইউপি সদস্য মোঃ রফিকুল ইসলাম শিল্পি জানান, জনগুরুত্বপূর্ণ বলেশ্বর খালের উপর নির্মিত দুই উপজেলার সংযোগ সেতুটি পুনঃনির্মাণ করা খুবই জরুরী। সংস্কারবিহিন অবস্থায় এভাবে পড়ে থাকলে সেতুটি অচিরেই ধসে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পত্তাশী ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন হাওলাদার জানান, মোড়েলগঞ্জ ও ইন্দুরকানী উপজেলার বলেশ্বর খালের সংযোগ সেতু অচিরেই নির্মাণ করা প্রয়োজন। উপজেলা সহকারি প্রকৌশলী হাজ্জাজ হোসেন জানান, সেতুটি দুই উপজেলার মধ্যবর্তী হওয়ায় প্রশাসনিক জটিলতায় বরাদ্দে বিলম্ব হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ