ঢাকা, সোমবার 9 October 2017, ২৪ আশ্বিন ১৪২8, ১৮ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আবারও পিছিয়েছে বনানীর রেইনট্রিতে ধর্ষণ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ

স্টাফ রিপোর্টার : অসুস্থতার কারণে বাদী সাক্ষ্য দিতে না আসায় বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ আবার পিছিয়ে দিয়েছে আদালত। গতকাল রোববার ঢাকার দুই নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক জয়শ্রী সমাদ্দার শুনানি এক সপ্তাহ পিছিয়ে ১৬ অক্টোবর সাক্ষ্য শুরুর নতুন তারিখ ঠিক করে দেন। এ নিয়ে আলোচিত এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ চতুর্থবারের মত পিছিয়ে গেল। এর আগে গত ২৪ জুলাই, ৬ অগাস্ট, ১০ সেপ্টেম্বর সাক্ষ্যগ্রহণের দিন থাকলেও তা হয়নি।
দুই নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক শফিউল আজম ছুটিতে থাকায় গতকাল রোববার এ আদালতে ছিলেন ভারপ্রাপ্ত বিচারক জয়শ্রী সমাদ্দার। বাদীর সাক্ষ্যগ্রহণের মধ্যে দিয়ে এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হওয়ার কথা ছিল এদিন। কিন্তু তার অসুস্থতার কথা বলে রাষ্ট্রপক্ষ শুনানি পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন করলে বিচারক তা মঞ্জুর করেন বলে জানান বাদীপক্ষের আইনজীবী মহিলা আইনজীবী সামিতির ফাহমিদা আক্তার রিংকি। বিচারক এর আগে জানিয়েছিলেন, এ মামলার বিচার হবে রূদ্ধদ্বার কক্ষে (ক্যামেরা ট্রায়াল)।
এই মামলার বাদী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া এক তরুণী। গত ২৮ মার্চ তাকে এবং তার এক বন্ধুকে জন্মদিনের অনুষ্ঠানের কথা বলে ওই হোটেলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করা হয় বলে তার অভিযোগ। ঘটনার দুই মাস পর ওই তরুণী বনানী থানায় আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদ, তার দুই বন্ধু এবং দুই কর্মচারীকে আসামী করে মামলা করেন।
আলোচিত এ মামলার দুই মাসের মাথায় গত ১৩ জুলাই পাঁচ আসামীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠন করে। মামলার অপর আসামীরা হলেন- সাফাতের বন্ধু সাদমান সাকিফ, নাঈম আশরাফ, সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল হোসেন ও দেহরক্ষী রহমত আলী।
মামলার অভিযোগপত্রে মোট ৪৭ জনকে সাক্ষী করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের নারী সহায়তা ও তদন্ত বিভাগের পরিদর্শক ইসমত আরা এমি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ