ঢাকা, সোমবার 9 October 2017, ২৪ আশ্বিন ১৪২8, ১৮ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের আকাশচুম্বি মূল্যবৃদ্ধিতে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে -পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, দেশের সামগ্রিক অবস্থা ভাল নয়। সর্বত্র অশান্তি বিরাজ করছে। চাল, ডাল, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের আকাশচুম্বি মূল্যবৃদ্ধির কারণে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। কাঁচাবাজার, তরিতরকারির দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি, কাঁচা মরিচের দাম ২৫০/৩০০ টাকা। এত দাম দিয়ে সাধারণ মানুষের কিনে খেয়ে বেঁচে থাকাই অত্যন্ত কঠিন হয়ে পড়েছে। এমতাবস্থায় একটি দেশ চলতে পারে না। তারপর আবার বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারা চলছে। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর চেষ্টা থেকে বিরত থাকতে তিনি সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।
গত শনিবার রাজধানীর রামপুরাস্থ জামিয়া কারীমিয়া আরাবিয়ার অভিভাবক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। জামিয়ার প্রিন্সিপাল শায়খুল হাদীস মাওলানা মকবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন মুফতি মোহাম্মদ হেমায়েতুল্লাহ, মুফতি জাবের মাহমুদ, মুফতি ওয়ালী উল্লাহ, মুফতি ফরীদ আহমাদ প্রমুখ।
পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, দেশের বৃহৎ একটি অংশ কওমী মাদরাসায় পড়–য়া ছাত্র। যাদের পিছনে সরকারের ন্যুনতম কোন খরচ নেই। তা স্বত্ত্বেও কওমী মাদরাসার ছাত্ররা দেশ, ইসলাম ও মানবতার কল্যাণে অসামান্য অবদান রেখে চলছেন। ইলমে ওহীর এই শিক্ষা ব্যবস্থাকে নস্যাৎ করতে দেশী-বিদেশী তাগুতি শক্তিগুলো সিন্ডিকেট ভিত্তিক অপপ্রচার চালিয়েছে। শেষতক কুরবানীর চামড়া নিয়েও তেলেসমাতি করা হয়েছে। উদ্দেশ্য হলো কওমী শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করা। কিন্তু আল্লাহর অশেষ রহমতে কওমী শিক্ষা ব্যবস্থার অনিবার্যতা দিন দিন আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনেক অভিভাবক সন্তানকে কওমী শিক্ষায় শিক্ষিত করতে পেরে গর্ববোধ করছেন। এমনকি হাই সোসাইটির অনেককেও তাদের আদরের সন্তানকে কওমী মাদরাসায় পড়াচ্ছেন। এটা ইলমে ওহীর শিক্ষার বৈশিষ্ট্য।
পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, যতদিন ইলমে নববীর এই শিক্ষা ব্যবস্থা বিদ্যমান থাকবে ততদিন দুনিয়া টিকে থাকবে। যারা আল্লাহর নূরকে নিভিয়ে দিতে চাইবে তারাই ধ্বংস হয়ে যাবে, ইনশাআল্লাহ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ