ঢাকা, মঙ্গলবার 10 October 2017, ২৫ আশ্বিন ১৪২8, ১৯ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মুশফিক দেশের ইমেজ নষ্ট করছে -বিসিবি সভাপতি

স্পোর্টস রিপোর্টার : দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে অধিনায়ক মুশফিকের একের পর এক মন্তব্যে দেশের ইমেজ নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট  বোর্ডেও (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। গতকাল এক অনুষ্ঠান শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুশফিকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ তোলেন বিসিবি বিগ বস পাপন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত ম্যানেজমেন্টের, সঙ্গে বোলারদের কঠোর সমালোচনা করেন মুশফিক। সর্বশেষ ব্লুমফন্টেইন টেস্টে টস জিতে ফিল্ডিং নেয়া এবং তার ফিল্ডিংয়ের জায়গা ঠিক করে দেয়া নিয়ে ম্যানেজমেন্টের ওপর দোষ চাপিয়ে আবারও আলোচনায় আসেন টেস্ট অধিনায়ক। আর এতেই তার উপর নাখোশ কিকেট বোর্ড সভাপতি।
মুশফিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উত্থাপন করতে গিয়ে বিসিবি সভাপতি পাপন বলেন, ‘তবে একটা জিনিস ঠিক, তার এভাবে মন্তব্য বাইরে গিয়ে করা- একটা কোচের কি হলো, সেটা আমার জানার দরকার নেই। ম্যানেজমেন্টের কি হলো তার দরকার নেই- এটা কিন্তু দেশের ইমেজের ব্যাপার। এটা কিন্তু দেশের ইমেজটাকে নষ্ট করে।’ মুশফিককে একটু নিজের মধ্যে কথা রেখে দেয়া টাইপ ছেলে বলেও মন্তব্য করেন বিসিবি তিনি। তিনি বলেন, ‘মুশফিক অন্যদের চেয়ে একটু আলাদা। আমি নেগেটিভ বলছি না। ও একটু নিজের মধ্যে বেশি রাখে, প্রকাশ করে কম। এখন ধরেন, যারা নাকি একটু নিজের মধ্যে চেপে থাকে, প্রকাশ করে কম তাদের মনের মধ্যে কি আছে তা বোঝা কিন্তু একটু কঠিন। ওরা আবার যখন বলে, তখন এমন সব কথা বলে যেটা নাকি আমরা আগে থেকে কেউ চিন্তাই করতে পারি না।’ মুশফিক সম্পর্কে বিস্তারিত বলতে গিয়ে উদাহরণও টানেন পাপন। তিনি বলেন, ‘উদাহরণ স্বরূপ বলা যায়, পৃথিবীতে এমন কোন অধিনায়ক নাই  যে বলবে টসে জেতাটা আমার জন্য ভুল ছিল। এই ধরনের কথা বলা, একটা ক্যাপ্টেন তো দূরে থাক, আমি চিন্তাই করতে পারি না কেউ এভাবে বলবে। এটা  কোন উত্তর হতে পারে? সবাই চাইবে, আমি টসে জিতবো। টস তো বোঝা যাচ্ছে কিছু তো একটা সমস্যা আছে। এট তো আগেই বুঝেছি।’ মুশফিক কোন একটা বিষয় নিয়ে অস্বস্তিতে আছে বলেও মনে করছেন বিসিবি প্রধান। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হচ্ছে না, এটা অধিনায়কত্ব নিয়ে সমস্যা। কিছু একটা ওর মধ্যে কাজ করছে। কিছু একটা অস্বস্তির মধ্যে রয়েছে সে। এটা হতে পারে ম্যানেজমেন্ট, কোচও হতে পারে, আমরাও হতে পারি কিংবা অন্য কেউ হতে পারে। আমি জানি না। ওই জিনিসটা মনে হয় বের করা দরকার।’ তবে মুশফিক দেশে ফিরলেই সব সমস্যার অবসান হবে বলে মনে করছেন পাপন। তিনি বলেন, ‘সিরিজ  শেষ হলে ও দেশে ফিরুক, কথা বলি। আরও অনুসন্ধান করি আমারা। এরপর সমাধানের চেষ্টা করবো। তারপর যদি দেখি, কোন কিছুতেই কিছু হচ্ছে না এবং অধিনায়কত্ব  ছেড়ে দিলে ওর জন্যও ভাল হবে, তখন দরকার হলে সিদ্ধান্ত নিবো। কিন্তু এখন কোন সিদ্ধান্ত  নেইনি।’ সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগের সুরে বেশ কিছু কথা বলেছিলেন মুশফিক। এসব অভিযোগের বিষয়ে বিসিবি সভাপতির মন্তব্য, ‘মুশফিকের অভিযোগের কোনও সতত্য আমরা পাইনি। আমাদের কাছে যেসব তথ্য আছে, মুশফিকের কথার সঙ্গে সেসবের মিল নেই।’  বোর্ড সভাপতি বিস্মিত হয়ে বলেন, ‘টস নিয়ে কোনও অধিনায়ক সংবাদ মাধ্যমে এ ধরনের কথা বলতে পারে না। এটা দলের জন্যও ভালো নয়। বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের শরীরী ভাষা দেখে মনে হয়নি তারা জেতার জন্য মাঠে নেমেছে।’ মুশফিকের বাউন্ডারি লাইনে ফিল্ডিং করার ব্যাখ্যাও তিনি মেনে নিতে পারেননি । তিনি বলেন, ‘সে  কাথায় ফিল্ডিং করবে সেই সিদ্ধন্ত টিম ম্যানেজমেন্টের ছিল না। সিদ্ধানতটি ছিল তার, এটা তার ওপরে কেউ চাপিয়ে  দেয়নি।’ ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেন , ‘মুশফিক ইস্যুতে এখনই  কোন রকম চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা ভাবছি না। এ বিষয়ে কোন চূড়ান্ত মন্তেব্যর সময় এখন আসেনি। সাধারণত আমরা কোন সিরিজের আগে না হয় পরে কথা বলি।
সিরিজের মাঝখানে  কোন কিছু নিয়ে আলাপ করি না। তাতে প্লেয়ারদেও পারফরমেন্সের ওপর প্রভাব ফেলে।’ আকরাম খান আরো কবলে, ‘অধিনায়ক হিসেবে মুশফিকের কোন প্রবলেম হলে তা আমাদের ( বোর্ডকে) আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো ভাল ছিল। কিন্তু তা না করে মুশফিক মিডিয়ায় বলছে। অবশ্য মুশফিক যে অভিযোগ করেছে, তা এখনো আমি শুনিনি। আমার কাছে এমন কোন খবর নেই। তারপরও তার কথাগুলো প্রেস মিটে না বলে আমাদের বললে ভাল করতো। তখন আমরা এটা নিয়ে আলাপ আলোচনা করতাম। নেক গুঞ্জন ছড়িয়ে গেছে মুশফিক আর অধিনায়ক থাকবেন না, কিংবা তাকে সড়িয়ে দেয়া হবে, এ প্রসঙ্গে কিছু বলতে বলা হলে আকরাম জাগো নিউজকে জানান,‘বোর্ড এ রকম কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি। আমাদের মধ্যে এসব নিয়ে কোন কথাই হয়নি। ইটস টু আর্লি টু সে।’ তবে আকরাম খান সবশেষে আরও একটা কথা বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শেষে পুরো সিরিজ নিয়ে বোর্ডে কথা হবে। পারফরমেন্স ও আনুসাঙ্গিক বিষয় খুটিয়ে দেখা হবে। তখনই হয়তো মুশফিক ইস্যু নিয়েও চুলচেরা বিশ্লেষণ হবে। জানে, ডিসেম্বরে শ্রীংলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজে নতুন কাউকে অধিনায়ক হিসেবে দেখাও যেতে পারে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ