ঢাকা, বুধবার 11 October 2017, ২৬ আশ্বিন ১৪২8, ২০ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাজধানীর হুকুম দখলে ক্ষতিগ্রস্তরা সঠিক মূল্য প্রাপ্তিতে বঞ্চিত হচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার : আইন অনুযায়ী সরকার হুকুম দখলে ক্ষতিগ্রস্তরা বাজার মূল্যের ৩ গুণ বেশী পাওয়ার কথা থাকলেও রাজধানীর জমির মালিকরা বঞ্চিতই থেকে যাচ্ছে। কেননা, শহরে অনেক জায়গা সরকারী মূল্য তিনগুণ করলেও বাজার মূল্যের সমান হচ্ছে না।

জানা যায়, স্থায়ী সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও হুমুক দখল ক্ষতিপূরণের বিল-২০১৭ গত ১৪ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদে পাস হয়। আইনটি দেশের বেশীর ভাগ ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদের জন্য শুভ সংবাদ হলেও রাজধানীর জমির মালিকদের জন্য মোটেই শুভ সংবাদ নয়। কেননা, শহর এলাকায় ভূমি হুকুম দখলে ক্ষতিগ্রস্তদেরকে এই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩ গুণ বেশী ক্ষতিপূরণের টাকা প্রদান করলেও জমির বর্তমান বাজার মূল্য তারা পায় না। এর কারণ হচ্ছে, সরকার যে নীতিতে ক্ষতিপূরণ বিল তৈরি করে তা হচ্ছে, জমি রেজিষ্ট্রির সময় সরকার নির্ধারিত যে মূল্যে জমি রেজিষ্ট্রি করা হয়, তার ভিত্তিতেই ক্ষতিপূরণ বিল তৈরি করা হয়।

গুলশান থানার ভাটারা মৌজাস্থ ৯৫১, ৯৪৬, ৯৪৪, ৯৪২ নং দাগের বাড়ী শ্রেণীর জমির মৌজা রেট অনুযায়ী মূল্য হচ্ছে প্রতি অযুতাংশ ১৮,২৮৬ টাকা এবং ডোবা শ্রেণীর প্রতি অযুতাংশের মূল্য হচ্ছে ২,৩৪৮ টাকা, যেখানে জমির প্রতি অযুতাংশের বর্তমান বাজার মূল্য ২ লাখ টাকারও বেশী।

নতুন অধিগ্রহণ আইন, ২০১৭ অনুযায়ী, জমির বাজার মূল্যের ৩ গুণ মূল্য প্রদানের বিধান থাকলেও তা বর্তমান বাজার মূল্যে থেকেই খুবই নগন্য। ভাটারা মৌজা উক্ত দাগসমূহ সংলঘœ আমেরিকান দূতাবাস, ভারতীয় দূতাবাস, বারিধারা আবাসিক এলাকা, কূটনৈতিক জোন ইত্যাদি। এই এলাকার জমি গুলশান, ধানমন্ডি, বনানী এলাকার বর্তমান বাজার মূল্যের সমান।

উল্লেখ্য, কম গুরুত্বপূর্ণ এলাকার জমির রেজিষ্ট্রেশন মূল্য ও ভাটারা মৌজার চেয়ে অনেক বেশী, যা খুবই অসামঞ্জস্যপূর্ণ। যেমন, কারওয়ান বাজার মৌজার রেট প্রতি অযুতাংশ উঁচু জমি ৯০ হাজার টাকা, মগবাজারের বাগনোয়াদ্দা মৌজার প্রতি অযুতাংশ উঁচু জমি ১ লাখ ১০ হাজার টাকা, কাকরাইল মৌজার প্রতি অযুতাংশ উঁচু জমি ২ লাখ ৪ হাজার টাকা বিষয়টি গভীরভাবে পর্যালোচনা করলে দেখা যাবে, এখানে ভাটারা মৌজার সাথে উপরে উল্লেখিত মৌজার জমির মূল্যের রয়েছে বিস্তর ব্যবধান এবং সম্পূর্ণ রূপে বাস্তবতা বিবর্জিত।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সরকার শীঘ্রই ভাটারা মৌজার ৯৫১, ৯৪৬, ৯৪৪, ৯৪২ নং দাগের কমবেশী ৪ বিঘা উঁচু জমি গুলশান লেক পাড় সড়কের জন্য হুকুম দখল করতে যাচ্ছে। অধিগ্রহণ প্রক্রিয়াধীন ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকরা যেন সঠিক বাজার মূল্য পায়, এ জন্য তারা সরকারের নিকট জোন দাবী জানিয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ