ঢাকা, বুধবার 11 October 2017, ২৬ আশ্বিন ১৪২8, ২০ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

চট্টগ্রাম অফিস : বাংলাদেশের তিন বারের সাবেক নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট, ভুয়া, ভিত্তিহীন ও কাল্পনিক মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল। ১০ অক্টোবর দুপুর ২টায় নগরীর কাজীর দেউরীস্থ নাসিমন ভবন দলীয় কার্যালয়ের সামনে নগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মুহাম্মদ সিরাজ উল্লাহর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলুর সঞ্চালনায় মিছিলোত্তর সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, জিয়াউর রহমান জিয়া, যুগ্ম সম্পাদক আলী মর্তুজা খান, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সদস্য জায়েদ বিন রশিদ, শেখ রাসেল প্রমুখ।

নগর ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয় থেকে বের হতে চাইলে পুলিশী বাঁধা সম্মুখীন হন। এসময় বিপুল সংখ্যক পুলিশ এসে লাঠিচার্জ করলে ছাত্রদল নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে অবস্থান নেয়। পুলিশের সাথে নেতাকর্মীদের ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে চাঁন্দগাও থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক গোলজার হোসেন সহ ৭/৮ জন ছাত্রদল নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। উক্ত সমাবেশ থেকে আটককৃত নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানানো হয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে গাজী সিরাজ বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও বেগম খালেদা জিয়া একে অপরের পরিপূরক। বাংলাদেশের গণতন্ত্রের উপর যতবারই আঘাত এসেছে ততবারই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে এদেশের মানুষ গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করেছে। বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি জনগণের অপরিসীম ভালবাসা ও আস্থার কারণেই তিনি আওয়ামীলীগ ও শেখ হাসিনার ষড়যন্ত্র ও রোষানলের শিকার। বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগের নানামুখী ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা, বানোয়াট, ভুয়া, ভিত্তিহীন ও কাল্পনিক মামলা দায়ের করা হয়েছে। বাংলাদেশের জনগণ যখন আবারও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ঘিরে গণতন্ত্র মুক্তির স্বপ্ন দেখছিল, ঠিক তখনই আওয়ামী সরকারের নীল নকশা অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করা হয়।

গাজী সিরাজ আরও বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দী করে রাখার মতন কোনো কারাগার বাংলাদেশে নেই। আওয়ামীলীগ যদি এমন দুঃসাসহ দেখায় তাহলে আমরা তাদের সেই কালো হাত ভেঙ্গে দিবো। বাংলাদেশের যে কোন কারাগার ভেঙ্গে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার ক্ষমতা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল নেতাকর্মীদের আছে। এদেশের জনগণ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র মুক্তির প্রতীক হিসেবে আস্থা ও ভালবাসার স্থানে রেখেছেন। বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মানে এদেশের ১৬ কোটি মানুষের সাথে ষড়যন্ত্র করা। আপনাদের সকল ষড়যন্ত্রের জবাব দেয়ার জন্য বাংলাদেশের জনগণ প্রস্তুত আছে। আপনারাও প্রস্তুত হউন জনগণের কাঠগড়ায় দাঁড়ানোর জন্য।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ