ঢাকা, শনিবার 14 October 2017, ২৯ আশ্বিন ১৪২8, ২৩ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় পুলিশের ওপর মাদক বিক্রেতাদের হামলা মামলা দায়ের ॥ গ্রেফতার ৮

খুলনা অফিস : খুলনার রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের কচাতলা বাজারের সন্নিকটে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। ইতোমধ্যে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ৩১ আসামির মধ্যে আটজনকে গ্রেফতার করেছে। এদিকে  পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলার ঘটনায় পুরো গ্রাম জুড়ে টরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। গ্রেফতার আতঙ্কে ইউনিয়নের অধিকাংশ পুরুষ এলাকা ছেড়েছেন। অপরদিকে দুইজন পুলিশের মাদকের অভিযান নিয়ে বিতর্ক তুলেছেন এলাকাবাসী। কেউ কেউ দাবি করেছেন মাদক বিক্রির টাকা নিয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। ফলে জনমনে বিষয়টি নিয়ে ধূ¤্রজালের সৃষ্টি হয়েছে।
পুলিশ জানায়, গত ৫ অক্টোবর রাতে উপজেলার পুঁটিমারী ফাঁড়ির এএসআই রবিউল ইসলাম ও সাইফুল ইসলাম মাদক বিক্রেতা দ্বিপ্তীশ্বর বিশ্বাস ওরফে দিপুর বাড়িতে অভিযান চালায়। খবর পেয়ে উক্ত এলাকার সংঘবদ্ধ মাদক বিক্রেতারা স্থানীয় কতিপয় যুবক সাথে নিয়ে পুলিশের উপর হামলা চালায়। এ সময় এএসআই রবিউল ইসলাম মারাত্মক জখম ও সাইফুল ইসলাম আহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে ৩১ জন এজাহারভুক্ত ও অজ্ঞাতনামা ৩০/৩৫ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে। পরে থানার ওসি রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে এক বিশেষ অভিযানে ঘটনার সাথে জড়িত আটজনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো-আনন্দনগর গ্রামের রুবেল লস্কর (২৩), বাকির লস্কর (১৯), দিদার লস্কর (১৯), সিন্দুর ডাঙ্গা গ্রামের নির্মল বিশ্বাসের ছেলে দ্বিপ্তীশ্বর বিশ্বাস (২৮), একই গ্রামের প্রশান্ত মন্ডল (৩২), সুজিত মন্ডল (৩৫), ঘাটভোগ গ্রামের রবিউল খাঁ (৩৫)ও  ফকিরহাটের মৌভোগ গ্রামের সাইফুল ইসলাম শেখ (৩৫)।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. ইব্রাহিম জানান, আসামিদের শুক্রবার কোর্ট হাজতে প্রেরণ করে আদালতে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে বিজ্ঞ আদালত ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।
রূপসা থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এক কেজি গাঁজা বিক্রির খবরে তারা অভিযান চালিয়েছিল। এএসআই রবিউল ইসলাম ও এসআই সাইফুল ইসলাম দু’জনকে গ্রেফতার করে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছিল। এ সময় বাকি পুলিশ সদস্যরা দূরে ছিল। পরে তাদের ওপর হামলা করা হয়।
এদিকে স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, টাকা নেয়ার জন্য এএসআই রবিউল নিয়মিত মাদক বিক্রেতাদের সাথে যোগাযোগ করত।
ওই দিনও তারা টাকা নিতে এসেছিল। কিন্তু টাকা না দেয়ায় তারা দু’জনকে গ্রেফতার করে নিয়ে যেতে চায়। এর এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়।
পরে স্থানীয় কয়েকজন মাদক বিক্রেতা প্রথমে রবিউলের ওপর হামলা করে। এক পর্যায়ে এসআই সাইফুলকে তারা আটকে রাখে। অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দু’জনকে উদ্ধার করে।
এ ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। অধিকাংশ পরিবারের পুরুষ গা ঢাকা দিয়েছেন। পুলিশের ভয়ে তারা মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। তাদের অভিযোগ দোষীরাতো ঘটনার পরপর গা ঢাকা দিয়েছে। কিন্তু আশপাশের মানুষকে ধরে পুলিশ হয়রানি করছে।
পুলিশ সুপার নিজামুল হক মোল্লা বলেন, পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমাদের পুলিশ সদস্যদের অর্থ লেনদেনসহ অনিয়মের বিষয়েও তদন্ত করা হবে। তারা কোন খারাপ কিছুর সাথে জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ