ঢাকা, রোববার 15 October 2017, ৩০ আশ্বিন ১৪২8, ২৪ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আত্রাইয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা মেরামত

নওগাঁর আত্রাই উপজেরার হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের সন্ন্যাসবাড়ী থেকে চকশিমলার ভেতর দিয়ে হাটকালুপাড়া পর্যন্ত বন্যায় বিধ্বস্ত রাস্তাটি এভাবেই স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করছেন এলাকার যুবসমাজ

আত্রাই (নওগাঁ) সংবাদদাতা: নওগাঁর আত্রাইয়ে বন্যায় বিধ্বস্ত রাস্তা স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করছেন এলাকার যুব সমাজ।
অনেক মহৎ কাজের মধ্যে এ একটি মহৎ কাজ এলাকার যুব সমাজকে প্রসংশিত করেছে।
জানা যায়, উপজেলার হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের সন্যাসবাড়ি থেকে চকশিমলার ভেতর দিয়ে হাটকালুপাড়া পর্যন্ত ইট বিছানো রাস্তাটি এবারের স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় বিধ্বস্ত হয়ে যায়। রাস্তার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় রাস্তার ইট উঠে গিয়ে রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায়। অথচ এটি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। উপজেলার চকশিমলা গ্রামে রয়েছে একটি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি এবতেদায়ী মাদ্রাসা ও একটি হাট। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও হাটুরে জনসাধারণ এবং ওই গ্রামের সর্বসাধারণের চলাচলের জন্য একমাত্র এই রাস্তা ব্যবহার করতে হয়। বন্যায় বিধ্বস্ত হবার পর থেকে এ রাস্তাটি চলাচলের একেবারে অনুপযোগী হয়ে যায়। ফলে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয় ওই এলাকার শিক্ষার্থীসহ সকল স্তরের জনগণকে। এদিকে বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ রাস্তাটি সংস্কারের উদ্যোগ না নেওয়ায় চকশিমলা গ্রামের যুব সমাজ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে রাস্তাটি সংস্কার শুরু করেছেন। গত কয়েকদিন থেকে তারা এ সংস্কার কাজ দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। গত বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় একঝাঁক যুবক রোদ, বৃষ্টি উপেক্ষা করে আবেগ প্রবন হয়ে এ কাজ করছেন।
চকশিমলা গ্রামের ওমর ফারুক বলেন, আমরা বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে এ কাজ করছি। এটি মেরামত হলে এলাকার হাজার হাজার জনসাধারণেরও দুর্ভোগ লাঘব হবে।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস শুকুর সরদার বলেন, রাস্তাটি সংস্কারের জন্য আমি তালিকা প্রস্তুত করে সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরে প্রেরণ করেছি। ইতোমধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও এবং উপজেলা প্রকৌশলী এটি পরিদর্শনও করেছেন। এরপরও যতটুকু স্বেচ্ছাশ্রমে হচ্ছে এটাকে আমি সাধুবাদ জানাই।
এ ব্যাপারে আত্রাই উপজেলা প্রকৌশলী মোবারক হোসেন বলেন, এবারে আত্রাইয়ে স্মরণকালের বন্যায় উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার রাস্তাঘাট ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তার মধ্যে এটি একটি রাস্তা। আমরা এগুলোর তালিকা প্রস্তুত করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠিয়েছি। সেই সাথে সংস্কারের বরাদ্দ চাহিদাও দেয়া হয়েছে। বরাদ্দ পেলেই সংস্কার কাজ শুরু করা হবে। আশা করি খুব দ্রুত আমরা বরাদ্দ পাবো এবং এসব রাস্তা সংস্কার কাজ শুরু করতে পারবো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ