ঢাকা, রোববার 15 October 2017, ৩০ আশ্বিন ১৪২8, ২৪ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

প্রধান বিচারপতির বক্তব্যে প্রমাণিত হয়েছে আইনমন্ত্রী মিথ্যা বলেছেন শপথ ভঙ্গ করেছেন -রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার : আইনমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হলে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বিচার হবে। তাঁর সাজা হতেই হবে। তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতির বক্তব্যে প্রমাণিত হয়েছে আইনমন্ত্রী মিথ্যা বলেছেন, শপথ ভঙ্গ করেছেন। মন্ত্রী হতে হলে শপথ নিতে হয়। রাগ অনুরাগের বশবর্তী হয়ে তিনি  কোন কিছু করতে পারেন না।
গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদ ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে জাতীয় গণতান্ত্রিক আন্দোলন আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।
রুহুল কবির রিজভী বলেন, আইনমন্ত্রীর কমপক্ষে চার বার বিচারের মাধ্যমে সাজা হওয়া উচিত। কারণ আইনমন্ত্রী মিথ্যা কথা বলেছেন যে, প্রধান বিচারপতি ক্যান্সারে আক্রান্ত। কিন্তু সেটা সঠিক নয়, সরকারদলীয় বিভিন্ন মন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর আক্রোশমূলক কথা বার্তায় প্রধান বিচারপতি বিব্রত হয়েছেন। কিন্তু প্রধান বিচারপতি শুক্রবার বলেছেন যে তিনি সুস্থ আছেন। বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে তিনি শঙ্কিত।
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, স্বয়ং প্রধান বিচারপতি বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তাহলে আপনার-আমার নিরাপত্তা কোথায়?
আইনমন্ত্রীর বাবা একজন বরেণ্য আইনজীবী উল্লেখ করে রিজভী বলেন, আইনমন্ত্রীর এমন কর্মকাণ্ডে পারিবারিক ঐতিহ্য নষ্ট করেছেন।
প্রধান বিচারপতির পাশে থাকার আহ্বান জানিয়ে রিজভী বলেন, প্রধান বিচাপতি দেশে ফিরে আসবেন বলেছেন। দেশের বিচার বিভাগের স্বাধীনতা রক্ষার্থে তিনি আবার আসবেন বলেছেন। আমাদের প্রধান বিচারপতির পাশে থাকতে হবে।
খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার প্রতিবাদ জানিয়ে রিজভী বলেন,আরব্য উপন্যাসের এই স্বৈরাচারী দানবকে রাজপথে পতন করতে হবে।
আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এম. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, বিএনপির সম্পাদকম-লীর সদস্য হাবিবুর ইসলাম হাবিব, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমাত উল্লাহ, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, অপরাজেয় বাংলার সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন সিরাজী প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ