ঢাকা, রোববার 15 October 2017, ৩০ আশ্বিন ১৪২8, ২৪ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সারা দেশে বিএনপির বিক্ষোভে পুলিশের লাঠিচার্জ॥ আহত অর্ধশত

খালেদা জিয়ার গ্রেফতারি পরোয়ানার প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াসহ দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে দলটি। কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছে অর্ধশত বিএনপি নেতাকর্মী। এছাড়া অন্তত ৩০ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানা গেছে।  
সূত্র মতে, গতকাল শনিবার সকাল ১১ টায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল সভাপতি রফিকুল ইসলাম রফিক এবং সাধারণ সম্পাদক আসিফ রহমান বিপ্লব এর নেতৃত্বে পুরান ঢাকার কোর্ট এলাকায় মিছিল করার সময় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কয়েক রাউন্ড শর্টগানের গুলী ছুঁড়েছে পুলিশ। এমন ঘটনা ঘটে। ছাত্রদলের হামলায় জবি শাখা ছাত্রদলের ৩ কর্মী আহত হয়েছে। গতকাল সকালে রাজধানী শাহবাগ মোড়ে মিছিল বের করে ঢাক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল। এছাড়া পল্টনে মিছিল করে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ইউনিট।
খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অবৈধ গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে গ্রেফতার এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বাধা সত্ত্বেও দেশের সকল জেলা, মহানগর ও বিশ্ববিদ্যালয়সমূহে ঘোষিত ১ দিনের বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। সকাল ৯টায় রাজধানীর দৈনিক বাংলা মোড় থেকে ফকিরাপুল মোড় পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকরামুল হাসানের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ শেষে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালিয়ে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক আনিসুর রহমান রানা ও তিতুমীর কলেজ ছাত্রদলের সহসভাপতি শাহনুর শিফাতকে গ্রেফতার করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল বিক্ষোভ মিছিল সকাল ৯ টায় শাহবাগ মোড় থেকে শুরু হয়ে ঢাকা ক্লাবের সামনে দিয়ে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন এর বিপরীত পাশে রমনা পার্কের গেইটে গিয়ে সমাবেশ এর মাধ্যমে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে নেতৃত্ব দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক আবুল বাসার সিদ্দিকী। মহানগর দক্ষিণের বিক্ষোভ মিছিল রাজধানীর মতিঝিল ঘরোয়া হোটেল এর সামনে থেকে শুরু করে ইত্তেফাক মোড়ে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। ঢাকা মহানগর পূর্ব ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল খিলগাঁও রেলগেট হতে শাহাজাহানপুর মোড়ে পৌঁছলে পুলিশের লাঠিচার্জ করে। এ সময় পুলিশ ছাত্রদল নেতা রাব্বীসহ আরো ২ ছাত্রনেতাকে গ্রেফতার করে। ঢাকা মহানগর পশ্চিম ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল দুপুর ১.৩০ মিনিটে  মিরপুর ২ নং সেকশন এর প্রশিকা ভবনের সামনে থেকে শুরু করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মিরপুর কমার্স কলেজ এর সামনে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের আরেকটি বিক্ষোভ মিছিল খিলক্ষেতে অনুষ্ঠিত হয়। শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল বিক্ষোভ মিছিল বিশ্ববিদ্যালয় গেইট থেকে শুরু হয়ে কলেজ গেইটে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল বেলা ১টায়  মালিবাগ থেকে খিলগাঁও রেলগেট পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। রাজধানীর ল্যাব এইড থেকে সাইন্স ল্যাব পর্যন্ত ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন ঢাকা কলেজ ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সজিব। তিতুমীর কলেজ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল সভাপতি তসলিম আহসান মাসুম ও সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক হিমেল এর নেতৃতে গুলশান -১ থেকে মহাখালী অভিমুখী বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ধোলাইখাল নতুন রাস্তায় কবি নজরুল সরকারি কলেজ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। বাঙলা কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি মোহম্মদ আইয়ুব এর নেতৃত্বে মিরপুর-১০ নং গোলচত্তর থেকে বি.আর.টি পর্যন্ত বাঙলা কলেজ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর, রংপুর জেলা ও মহানগর, সিলেট জেলা ও মহানগর, সুনামগঞ্জ জেলা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম মহানগর, ফেনী জেলা, চাঁদপুর জেলা, লক্ষীপুর জেলা, মৌলভীবাজার জেলা, বরিশাল জেলা ও মহানগর, মাদারীপুর জেলা, শরীয়তপুর জেলা, ফরিদপুর জেলা, বরগুনা জেলা, যশোর জেলা, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা, টাঙ্গাইল জেলা, ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর, ফরিদপুর জেলা, ঝিনাইদহ জেলা, গাইবান্ধা জেলা, চুয়াডাঙ্গা জেলা, নীলফামারী জেলা, জয়পুরহাট জেলা, খুলনা জেলা ও মহানগর, কুড়িগ্রাম জেলা, সহ দেশের সকল জেলা, মহানগর ও বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীর প্রতিবাদে বিএনপি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের উদ্যোগে মহানগরীর থানায় থানায় বিক্ষোভ কর্মসচি পালন করা হয়। বিভিন্ন থানায় কর্মস–চি চলাকালে পুলিশ লাঠিচার্জ করে এবং মিছিল থেকে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে। পুলিশী বাধা উপেক্ষা করে নেতাকর্মীরা রাজপথে বিক্ষোভ কর্মসুচি সফল করে। মহানগর বিএনপি’র নেতা কে.এম জোবায়ের এজাজ এর নেতৃত্বে নিউমার্কেট থানার একটি বিক্ষোভ মিছিল সায়েন্সল্যাবরেটরীর মোড় থেকে শুরু হয়ে এ্যালিফেন্ট রোড, বাটা সিগনালে গিয়ে শেষ হয়। কাজী মাহবুব মাওলা হিমেল, শ্যামপুর থানার একটি মিছিল অনুষ্ঠিত হয় জুরাইন বাজার থেকে শুরু করে গেন্ডারিয়া রেল স্টেশনে গিয়ে শেষ হয়। মিছিল থেকে পুলিশ বিএনপি নেতারাজা, সুমন, আহম্মদ এই ৩ জনকে গ্রেফতার করে। মিছিলটি গেন্ডারিয়া রেলস্টেশন থেকে মুন্সিপাড়া এর সামনে গিয়ে পুলিশি বাধায় পন্ড হয়ে যায়। কামরাঙ্গীরচর থানা বিএনপির নেতা হাজী মনির হোসেন ও হাজী রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল ঝাউচর বেড়ী বাঁধ থেকে শুরু করে ঝাউচর প্রধান সড়কে যেয়ে শেষ হয়। বিএনপির একটি মিছিল পল্লীমা সংসদ থেকে শুরু হয়ে খিদমা হাসপাতাল গিয়ে শেষ হয়। রমনা থানা বিএনপির উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল মালিবাগ রেলগেট থেকে শুরু করে মৌচাক মার্কেট গিয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে। মহানগর নেতা জয়নাল আবেদিন রতন এর নেতৃত্বে ডেমরা রামপুরা রোডে একটি বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মূলক মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীর প্রতিবাদে দেশের জেলা ও মহানগরে বিক্ষোভ করেছে যুবদল। স্বেচ্ছাসেবক দল এর উদ্যোগে দেশব্যাপী সকল জেলা ও মহানগরে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের পল্টন, ডেমরা, শ্যামপুর, কদমতলী, শাহবাগ, রমনা, সূত্রাপুর, বংশাল, শাহজাহানপুর, যাত্রাবাড়ী, চকবাজার, লালবাগ, মুগদা, কামরাঙ্গীর চর, হাজারীবাগ, মতিঝিল, নিউমার্কেট, সবুজবাগ ও খিলগাঁও থানা শাখা স্বেচ্ছাসেবক দলের  পৃথক পৃথক বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা মহানগর উত্তরের পল্লবী, রূপনগর, মিরপুর, ক্যান্টনমেন্ট, শাহ আলী, উত্তরা, তেজগাঁও, বাড্ডা, গুলশান, বনানী, উত্তরখান, দক্ষিণ খান, বিমান বন্দর, খিলক্ষেত, কাফরুল, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
এদিকে বরিশালে বিএনপির মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। সেখান থেকে আটক করা হয়েছে সিটি করপোরেশনের কাউন্সিল মীর জাহিদুল কবিরসহ বিএনপির পাঁচ নেতাকর্মীকে। সমাবেশ চলাকালে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ছোট ছোট মিছিল এসে মিলিত হয় সমাবেশে। এসময় একটি অংশ মিছিল সহকারে সদর রোড অতিক্রমকালে পুলিশ তাদের বাঁধা দেয়। একপর্যায়ে পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে মিছিল করার চেষ্টা করলে পুলিশ লাঠিচার্জ ও ধাওয়া করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। অন্যদিকে রাজশাহী নগরের লোকনাথ স্কুল মোড় থেকে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। তারা সোনাদীঘি মোড় হয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে যাওয়ার সময় ভুবন মোহন পার্ক মোড়ে পুলিশ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিলে বাধা দেয়। এতে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় বিএনপির নেতারা গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে করে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের সরিয়ে নেয়। দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেত হয়ে নগর বিএনপির সভাপতি ও সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি মালেপাড়ার মোড়ের দিকে এগুতেই পুলিশ দ্বিতীয় দফায় বাধা দেয়। পুলিশের বাধায় তারা দলীয় কার্যালয়ের সামনে বসে পড়ে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।
এদিকে মাগুরার শালিখায় বিএনপির মিছিল থেকে পাঁচ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম জানান, শালিখায় বিএনপির মিছিল থেকে বিএনপির পাঁচ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২ টায় নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক সিটি কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের নেতৃত্ব মাহনগরীর প্রধান সড়ক বি বি রোডের সমবায় মার্কেট থেকে মিছিল শুরু করে নগরীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে এসে বিক্ষোভ সমাবেশ করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ