ঢাকা, মঙ্গলবার 17 October 2017, ২ কার্তিক ১৪২8, ২৬ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

৩৬ লাখ টাকা হাতিয়ে পালিয়েছে ইডিপি

খুলনা অফিস : প্রতারণার ফাঁদে ফেলে খুলনার পাইকগাছার ৪৭ জন পোল্ট্রি খামারির কাছ থেকে প্রায় ৩৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে ই.ডি.পি মিনি হ্যাচারি নামে একটি প্রতিষ্ঠান পালিয়ে গেছে। অর্থ হারিয়ে অনেকের খামার বন্ধের উপক্রম হয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তরা থানায় সাধারণ ডায়রি এবং সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন।
অভিযোগে জানা গেছে, ছয় মাস আগে উপজেলার আগড়ঘাটা বাজারে ই.ডি.পি মিনি হ্যাচারি নামে একটি প্রতিষ্ঠান অফিস নেয়। প্রতিষ্ঠানের সিও শচীন্দ্রনাথ ভক্ত ও আমিনুল করিম বিভিন্ন পোল্ট্রি খামারিদের সাথে প্রতারণা করে ৩৫ লাখ ৮৪ হাজার ৬শ’ টাকা হাতিয়ে নেয়। ননজুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে চুক্তিপত্র মোতাবেক প্রতি হাজার সোনালী মুরগির বাচ্চার বিপরীতে ৬০ হাজার টাকা জামানত আদায় করে তারা। এছাড়া শর্ত অনুযায়ী বিক্রি উপযুক্ত হওয়া পর্যন্ত বাচ্চার যাবতীয় খাবার ও ওষুধ সরবরাহ করবে প্রতিষ্ঠানটি। বিনিময়ে বিক্রিকালে প্রতি কেজি মুরগিতে খামারীকে ৩৩ টাকা দেওয়া হবে। ২/১টি সার্কেল শেষে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আমিনুল করিম ও শচীন্দ্রনাথ ভক্ত ৭ অক্টোবর পালিয়ে যায়। এ সময় অপর কর্মকর্তা খায়রুল আমিনকে পুলিশ গ্রেফতার করে।
ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করেন, খামারি ছুরমানের কাছ থেকে ৪ লাখ ৮৮ হাজার ৬শ’ টাকা, দ্বীপের কাছ থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা, ফরিদ গাজীর কাছ থেকে ১ লাখ টাকা, মিন্টু মোড়লের কাছ থেকে ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা, ফটিকের কাছ থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা, মশিউর রহমানের কাছ থেকে ২ লাখ ২০ হাজার টাকা, শফিকুল ইসলামের কাছ থেকে ৩ লাখ ৫শ’ টাকা, উদয় সাধুর কাছ থেকে ৪৮ হাজার টাকা, পিয়াসের কাছ থেকে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, মিরাজুল ইসলামের কাছ থেকে ৯০ হাজার টাকা, মুজাহিদের কাছ থেকে ৬৪ হাজার টাকা, মোবারেক ঢালীর কাছ থেকে ৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা, হিরোর কাছ থেকে ১ লাখ টাকা, মাহতাবের কাছ থেকে ৯০ হাজার টাকা, ইমদাদুলের কাছ থেকে ২২ হাজার ৫শ’ টাকা, সুদাম সাধুর কাছ থেকে ৩৬ হাজার টাকা, মোজাফফারের কাছ থেকে ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা, সালমা বেগমের কাছ থেকে ২২ হাজার ৫শ’ টাকা, হিল¬ালের কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা, মদন সাধুর কাছ থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা, রওশানারার কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা, মিঠুনের কাছ থেকে ৯০ হাজার টাকা, আনোয়ার হোসেনের কাছ থেকে ৪৫ হাজার টাকা, মিলনের কাছ থেকে ৮৩ হাজার টাকা এবং মহাসিনের কাছ থেকে ৯০ হাজার টাকা আদায় করা হয়। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তরা ৮ অক্টোবর পাইকগাছা থানায় সাধারণ ডায়েরি এবং প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেন।
এ ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সাইদুল করিম মুঠোফোনে জানান, সিও শচীন্দ্রনাথ এ কোম্পানির অর্ধেক শেয়ার। তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে খামারিদের কাছ থেকে আদায় করা টাকা সেও দিতে বাধ্য, এ ক্ষেত্রে তার কোন দায়ভার নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ